পার্টির সেবায় আর বিলাসবহুল গাড়ি নয়, গণপরিবহণেই ফিরছেন কমরেডরা

0
40
CPIM

খাস প্রতিবেদন: পার্টির সেবায় ঝাঁ চকচকে গাড়ির জমানা শেষ, ফের গণপরিবহণেই ফিরছেন কমরেডরা৷ অন্তত পূর্ব বর্ধমান জেলা সিপিএমের অন্দরের খবর তেমনটাই৷ বিক্রি করা হচ্ছে জেলা সিপিএমের মালিকানায় থাকা ৬টি গাড়ি৷ কেন? বাড়তি খরচ বহন করা সাধ্যের বাইরে হয়ে যাচ্ছে বলেই দলের একাংশের অভিমত৷ সেই সঙ্গে বিলাসবহুল গাড়ি থেকে নামার বিষয়টিকেও সাধারণ মানুষ ভাল চোখে দেখেন না বলেই মনে করছেন আলিমুদ্দিনের একাংশ ম্যানেজারেরা৷ তাই শুরুর দিকে যেভাবে গণপরিবহণে ভরসা রেখে মানুষের কাছে পৌঁছানো হত, আবার পুরনো দিনের সেই কালচার ফিরিয়ে আনা হচ্ছে৷

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে নিয়েছেন সিপিআইএমের পূর্ব বর্ধমান জেলা সম্পাদক সৈয়দ হোসেন৷ তিনি বলেন, ‘‘বিভিন্ন কারণেই গাড়িগুলি বিক্রির সিদ্ধান্ত। এমনতেই ওই গাড়িগুলি পুরাতন হয়েছে । মেরামতির খরচও বেড়ে যাওয়ায় ব্যয় বহুল হয়ে পরেছে। এতো খরচ বহন করা দলের পক্ষে সম্ভব নয় । তাই জেলা কমিটির পক্ষ থেকে সর্বসম্মতিক্রমে গাড়িগুলি বিক্রির সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।’’

- Advertisement -

বস্তুত, দুয়ারে পঞ্চায়েত নির্বাচন৷ এমন আবহে এলাকায় এলাকায় যেতে হচ্ছে কমরেডদের৷ ৬টি গাড়ি বিক্রি করে দিলে কিভাবে পরিবহণ সমস্যা মিটবে? দলীয় সূত্রের খবর: অতীতে যেভাবে গণ পরিবহণের সাহায্যে কমরেডরা মানুষের কাছে পৌঁছাতেন এবারেও সেটাই করা হবে৷ দলের একাংশের মতে, এতে অবশ্য দলের কালচারের দিক থেকে ভালই হবে৷ কারণ, বিলাসবহুল গাড়িতে চড়ে চড়ে আলিমুদ্দিনের একাংশের মানুষের সঙ্গে মেশার ক্ষমতা কমে গিয়েছে৷
তাই আর বিলাসবহুল গাড়ি নয় । গণপরিবহণে নির্ভর করতে হবে কমরেডদের। এমনই ভাবনা-চিন্তাতে সিপিআইএম জেলা কমিটির কাছে থাকা ৬টি গাড়ি বিক্রি করা হচ্ছে বলে দলীয় সূত্রে খবর। আরো জানা গিয়েছে গাড়ি ছাড়া নেতাদের চলছিল না । এতেই বর্তমান নেতাদের আবার অভ্যাস খারাপ হচ্ছিল । পাশাপাশি জনগণের থেকে অনেকটা দূরে সরে যাওয়ায় জনগণও দূরে সরে যাচ্ছে তাদের থেকে৷ তাই এমন সিদ্ধান্ত৷ যদিও সিপিএমের এমন উদ্যোগের নেপথ্যে জনগণকে বোকা বানানোর কৌশল দেখছেন তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্যে নেতা তথা জেলাপরিষদের সহ-সভাপতি দেবু টুডু৷ তিনি বলেন, ‘‘৩৪ বছর রাজত্ব চালানোর পর এদের আবার গাড়ি বিক্রি করে রাজনৈতিক কর্মসূচি নিতে হচ্ছে! বিষয়টি অত্যন্ত হাস্যকর৷ এটা জনগনকে বোকা বানানো ছাড়া আর কিছুই না।’’

আরও পড়ুন: বিশ্ব উষ্ণায়ন নিয়ে সচেতন করতে অভিনব পন্থা গ্রামবাসীদের