যুদ্ধ শুরু এখনই, টুইটারে ট্রেন্ডিং নতুন হ্যাশট্যাগ ‘আব কি বার দিদি সরকার’

0
30

কলকাতা: দিল্লির গদি মোদীকে সরানো যুদ্ধ এখন থেকেই শুরু হয়ে গিয়েছে। এমনটাই বলছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ। বাংলা ছাড়িয়ে এবারে দেশের ভূমিতে নিজেদের আধিপত্য বজায়ে মরিয়া তৃণমূল৷ ‘মিশন ২৪’কে সামনে রেখে ঘুঁটি সাজাতে তাই দিদিমনির দিল্লি সফরের সঙ্গী হয়েছেন তৃণমূলের ‘ঘরের ছেলে’ মুকুল রায়৷ তারপরেই ট্যুইটারে নতুন হ্যাশট্যাগকে ভাইরাল হয়েছে। যেখানে হ্যাশট্যাগ দিয়ে লেখা ‘আব কি বার দিদি সরকার’।

“বহত হুই জনতা পর পেট্রল-ডিজেলকে মার/ আব কি বার মোদি সরকার” এই শ্লোগানকে সামনে রেখেই কংগ্রেসকে ক্ষমতাচ্যুত করেছিল বিজেপির। যে ইস্যু নিয়ে বিজেপি লড়াই জিতেছিল সেই পেট্রোল-ডিজেলের দাম বৃদ্ধিতেই এখন বিদ্ধ বর্তমান বিজেপি সরকার। সেটাকেই হাতিয়ার করেছে তৃণমূল। দুপুর ৩ টের উড়ানে দিল্লির জন্য উড়ে গিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তারপরেই সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে ভাইরাল হয়েছে একটি ছবি যেখানে লেখা “নেহি চাহিয়ে ফেকু সরকার, আব কি বার দিদি সরকার”।

মমতার দিল্লি যাওয়া পরেই যেখানে এই ট্যুইট ভাইরাল হয়েছে সেখানে আগামী দিনে সর্বভারতীয় রাজনীতিতে আরও অনেক কিছুই হতে পারে বলেই আন্দাজ করছেন অনেকেই। বাংলায় বিজেপি স্বপ্ন ভেঙে ছুরমার হওয়ার পরেই ট্যুইটারে একটি হ্যাশট্যাগ ভাইরাল হয়েছিল যেখানে লেখা হয়েছিল বাঙালি প্রধানমন্ত্রী চাই। এবার #AbkiBaarDidiSarkar এবং #BengalModel হ্যাশট্যাগে ভাইরাল হয়েছে। বলা ভালো যে নির্বাচনের আগে পায়ে চোট নিয়েই দিদি বলেছিলেন এক পায়ে বাংলা জয় করবেন আর দু পায়ে দিল্লি। সেই কথা মতোই কাজ শুরু করে দিয়েছেন বলেই আলোচনা চলছে রাজনৈতিক মহলে।

দিল্লিতে আগেই পৌঁছে গিয়েছেন তৃণমূলের যুবরাজ। এক তৃণমূল নেতার ব্যাখ্যা, ‘‘একুশের কঠিন লড়াইয়ে বড় ভূমিকা নিয়েছিলেন অভিষেক৷ প্রমাণ করে দিয়েছেন যে তিনি জাত রাজনীতিক৷ কিন্তু সর্বভারতীয় রাজনীতিতে ছোট ছোট দলগুলিকে একমালায় গাঁথতে হলে নবীন অভিষেকের পক্ষে তা যথেষ্ট কষ্টসাধ্য হয়ে উঠবে৷ এদিকে দেশকে রক্ষা করাও জরুরি৷ তাই সচিন-শেহবাগ জুটির মতো তৃণমূলের হয়ে সর্বভারতীয় স্তরে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে চোখে চোখ রেখে লড়াই করতে হলে প্রবীণ-নবীনের মিশ্রনটা জরুরি৷ মুকুল-অভিষেক দ্বৈরথ সেই অসাধ্যসাধনটা করতে পারবেন বলেই মনে করছেন স্বয়ং নেত্রী৷’’