পার্কেই চালু হল স্কুল, পড়ুয়াদের মন পড়ে স্কুলের বেঞ্চে

0
2868

প্রতিবেদন: স্কুল খুলেছে বটে৷ তবে স্কুলের চৌহদ্দিতে ঢোকার অনুমতি নেই ওদের৷ কারণ, ক্লাস হবে পাড়ার পাঠশালায়৷ অগত্যা, স্কুল ইউনিফর্ম পরে পার্কে এসে ক্লাসে বসতে হল পড়ুয়াদের৷ কেমন লাগছে, প্রশ্নের জবাবে পড়ুয়ারা যেন খানিকটা আড়ষ্ট, বিব্রতও৷

অদূরে দাঁড়িয়ে প্রধান শিক্ষক৷ অগত্যা মিনমিনে গলায় সপ্তম শ্রেণির পড়ুয়াদের কন্ঠে শোনা গেল, ‘‘ঘরে বসে অনলাইনে ক্লাসের চেয়ে পার্ক ভাল৷ তবে কেন জানি না, স্কুলের বেঞ্চগুলোকে খুব মিস করছি!’’

- Advertisement -

পড়ুয়াদের এমন বক্তব্যের সঙ্গে সহমত শিক্ষকেরাও৷ তবে তাঁরা বলছেন, বর্তমান মহামারীর পরিস্থিতিতে স্কুল মানেই চার দেওয়াল৷ অর্থাৎ বদ্ধ পরিবেশ৷ সেখানে একসঙ্গে অনেক পড়ুয়ার পাশাপাশি বসে ক্লাস করাটা অনেকটা ঝুঁকির হয়ে যায়৷ তাই ছোটদের ক্ষেত্রে খোলা আকাশের নিচে ক্লাস করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে৷

অভিভাবকদের একাংশও মনে করছেন, প্রথম দু’একদিন হয়তো অসুবিধে হতে পারে৷ তবে আসতে আসতে সবই ঠিক হয়ে যাবে৷ যদিও আক্ষেপের সুরে পড়ুয়ারা বলছেন, দাদা, দিদিদের মতো আমরাও যদি বেঞ্চে বসে ক্লাস করতে পারতাম!

বস্তত, বহুদিন ধরে স্কুলের পঠন পাঠন বন্ধ। মাঝখানে নবম থেকে দ্বাদশ ক্লাস আরম্ভ হয়েও বন্ধ হয়ে যায়। এরপর ফের আরম্ভ হলেও নতুন করে করোনার দাপটের জেরে এবছরের শুরু থেকেই বন্ধ বিদ্যালয়ে পড়াশুনা। আজ থেকে ফের রাজ্যে খুলে গেল স্কুল-‌কলেজ। আপাতত অষ্টম থেকে উচ্চতর শ্রেণির পঠন-‌পাঠন চালু হল। কোভিড বিধি মেনেই সমস্ত সরকারি-‌বেসরকারি স্কুল-‌কলেজ খুলল। পাশাপাশি আজ থেকেই পঞ্চম থেকে সপ্তম শ্রেণির পড়ুয়াদের জন্য ‘‌পাড়ায় শিক্ষালয়’‌ চালু হল। আজ বারাসাত পার্কের মাঠে বারাসাত মহাত্মা গান্ধী মেমোরিয়াল হাইস্কুলের ক্লাস করল পড়ুয়ারা৷

মহাত্মী গান্ধী স্কুলের সপ্তমশ্রেণির ছাত্র প্রিন্স চক্রবর্তীর কথায়, ‘‘স্কুলের পরিবেশটাই তো আলাদা। সেখানে বেঞ্চ আছে। বেঞ্চে বসে পড়ার মধ্যে একটা অন্য অনুভূতি থাকে!’’ এগিয়ে এসে স্কুলের প্রধান শিক্ষক শেখ আলি হোসেন বলেন, ‘‘বুঝতে পারছি, ওদের মানিয়ে নিতে কিছুটা কষ্ট হচ্ছে৷ তবু উপায় তো কিছু নেই৷’’

আরও পড়ুন: Anubrata Mandal: তারাপীঠে মহাযজ্ঞ, রায় শুনে হাসি ফুটল শাহেনশার…