এই স্থানে আজও সংরক্ষিত রয়েছে গণেশের কাটা মাথা

0
105

বিশ্বদীপ ব্যানার্জি: জন্মের পরপরই পিতার কোপে কাটা পড়ে মাথা। অতঃপর একটি শ্বেত হস্তির (কোনও কোনও মতে, ইন্দ্রের বাহন ঐরাবত) মস্তক ধরের সঙ্গে যুক্ত করা হল। ফলে তিনি হয়ে গেলেন গজানন। কিন্তু সেই কাটা পড়া মাথার কী হল শেষপর্যন্ত? সেটি গেল কোথায়?

আরও পড়ুন: এক জন নয়, হিন্দু পুরাণে যম রয়েছেন মোট ১৪ জন, চিনে নিন তাঁদের

খাস খবর ফেসবুক পেজের লিঙ্ক:
https://www.facebook.com/khaskhobor2020/

ভগবান গণেশের সেই মাথা এই একবিংশ শতাব্দীতেও বর্তমান। হ্যাঁ, আজও। জায়গাটা উত্তরাখণ্ডের পিথোরগড়স্থিত গঙ্গলিহাট থেকে প্রায় ১৪ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত একটি পাহাড়ি গুহা। স্থানীয় লোকশ্রুতি অনুযায়ী, আদি শঙ্করাচার্য এই গুহা খুঁজে বের করেন। আর পুরাণ বলে, পার্বতীপুত্র বিনায়কের মুণ্ডচ্ছেদনের পর এখানেই সেই কাটা মুণ্ড এনে রেখেছিলেন দেবাদিদেব।

আজও সেই মস্তক রক্ষা করে চলেছেন তিনি। গুহাটি ‘পাতাল ভুবনেশ্বর’ নামে খ্যাত। এবং গণেশ এই স্থানে আদি গনেশ পরিচয়ে পরিচিত হয়ে থাকেন। এখানে এলে গণেশের সেই বিচ্ছিন্ন মাথার ওপর ১০৮টি পাপড়ির মতো একটি শিলা দেখতে পাওয়া যায়। যা থেকে বিন্দু বিন্দু জল অনবরত গণেশের মাথার (বলা হয়, তাঁর মুখে) ওপর পড়তে থাকে। শোনা যায়, এটি নাকি আসলে একটি ব্রহ্মকমল। যা স্বয়ং মহাদেবই স্থাপন করেছেন।

তাহলে কী পুত্রের মরা মাথাটি সুন্দর ছিল বলে তার মায়া কাটেনি? নাকি নিজে কেটেছিলেন বলে কষ্টটা বেশি? বলা মুশকিল। যদি সময় সুযোগ থাকে, তবে নিজেই গিয়ে অনুধাবন করার চেষ্টা করুন কারণটি। বেশি দূর তো নয় পাতাল ভুবনেশ্বর। পিথোরগড় থেকে মাত্র ১৪ কিমি দূরে।