29 C
Kolkata
Wednesday, July 28, 2021
Home অফবিট মৃত্যুর ন'বছর পরে আজও বরুণ এক বিশ্বাসের নাম

মৃত্যুর ন’বছর পরে আজও বরুণ এক বিশ্বাসের নাম

শান্তনু কর্মকার : ন’য়ের দশকের বলিউড সিনেমা দেখেছেন নিশ্চয়ই। যে সিনেমাগুলিতে নিম্ন মধ্যবিত্ত বাড়ির ছাপোষা ছেলেদের অসাধারণ হয়ে ওঠার গল্প বলতেন পরিচালকরা। ছেলেরা আপন খেয়ালে বেড়ে উঠত, হাজারও প্রতিকূলতা জয় করে ঠিক জায়গা করে নিত সমাজে। অন্যায় কিছুতেই সহ্য করতে পারত না, দরকারে লড়ে যেত সমাজের তাবড় ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে। রক্ত ঝরত, মাল্টিপ্লেক্সে বসা দর্শকের রক্তচাপ বাড়িয়ে দিত তার জীবনের উত্থান-পতন। রিল লাইফে অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখা যেত, জীবনযুদ্ধে জয়ী হয়ে সমাজ পাল্টাতে পেরেছে সেই নায়ক, বুকে টেনে নিয়েছে নিজের প্রেয়সীকে। তবে, রিল লাইফের গল্পের শেষটা বরাবর এমন হলেও বাস্তব সবক্ষেত্রে গোলাপ ছড়ানো বিছানা সাজিয়ে দেয় না চোখের সামনে। কিছুক্ষেত্রে প্রাণও হারাতে হয়, সমাজকে শিক্ষা দিতে নিজেকেই হয়ে উঠতে হয় এক দৃষ্টান্ত।

- Advertisement -

আরও পড়ুন, পেট্রোপণ্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি, কোভিডবিধি উপেক্ষা করেই পথে নামল কংগ্রেস

বরুণ বিশ্বাসের গল্পটাও ঠিক তেমনই, কলেজে পড়াকালীন WBCS অফিসার হতে চেয়েছিলেন। ভেবেছিলেন প্রশাসনিক আধিকারিক হয়ে সমাজ গড়বেন, পাশে দাঁড়াবেন সকলের। পরিকল্পনা অনুযায়ী WBCS পরীক্ষা দিয়েছিলেন, পাশও করেছিলেন প্রত্যাশা অনুযায়ী। তবে শেষ অবধি আর আধিকারিক হওয়া হয়নি বরুণের, বুঝেছিলেন প্রশাসক হলে বহুক্ষেত্রে চুপ থাকতে হবে৷ দ্রোণাচার্য, ভীষ্মের মতো মুখ বুজে সহ্য করতে হবে সমাজের বস্ত্রহরণ।

- Advertisement -

তাই তখন লক্ষ্য পরিবর্তন না করে পথ বদলেছিলেন বরুণ, সমাজকে শিক্ষা দিতে নিজেই হয়ে উঠেছেন এক অনুপ্রেরণা। মৃত্যুর ঠিক ৯ বছর বাদেও তিনি একইভাবে প্রাসঙ্গিক তিনি। আজও প্রত্যেকটা অন্যায়ের চোখে ভয়ের অপর ছবি বরুণ বিশ্বাস। ব্যক্তিগত উচ্চাকাঙ্খা বহু আগেই ছুঁড়ে ফেলেছিলেন,কোনও রাজনৈতিক দলের ব্যানারের নীচেও থাকেননি একার প্রচেষ্টায় অসামাজিক কাজের বিরুদ্ধে গড়ে তুলেছিলেন আস্ত একটা দল।

হিসেব বলছে, ২০০০ থেকে ২০০২ সাল অবধি সুটিয়া ও তার পার্শ্ববর্তী এলাকায় মোট ৩৩টি ধর্ষণ ও ১২ টি খুনের ঘটনা ঘটেছিল। দুষ্কৃতিদের এই দৌরাত্ম্যের প্রতিবাদ করার সাহস হয়নি কারুর। ব্যতিক্রম ছিলেন শুধু বরুণ, শাসকের চোখে চোখ রেখে তিনি আন্দোলন শুরু করেন। অভিযুক্তদের গ্রেফতার করার জন্য ক্রমাগত চাপ দিতে থাকেন প্রশাসনকে। ২০০০ সালে মাত্র ২৮ বছর বয়সে তৈরি করেন ‘সুটিয়া গণধর্ষণ প্রতিবাদ মঞ্চ’। এই মঞ্চের উদ্যোগেই দিকে দিকে জনসভা করতে শুরু করেন। সাধারণ মধ্যবিত্ত রোগা চেহারার ছেলেটির বক্তব্যে উজ্জীবিত হয় এলাকার অন্যান্য যুবক-যুবতীরা। এলাকার সেই যুবক-যুবতীদের নিয়েই লড়াই শুরু করেন বরুণ। ধর্ষিতা মহিলাদের মানসিক শক্তি জোগানো থেকে শুরু করে তদন্তকাজে পুলিশকে সাহায্য করা, সবটাই চলতে থাকে জোরকদমে।

আরও পড়ুন, ব্যারাকপুরে রবিনসন স্ট্রিটের ছায়া, এক সপ্তাহ স্বামীর মৃতদেহ আগলে রাখলেন স্ত্রী

- Advertisement -

এমনভাবেই এগোচ্ছিলেন বরুণ, জোরালো হচ্ছিল অত্যাচারীদের ভয় ধরানো কণ্ঠস্বর। ততদিনে রাজ্যে পালাবদল ঘটে গিয়েছে, ৩৪ বছরের বামশাসন পেরিয়ে মুখ্যমন্ত্রী পদে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে পেয়েছে পশ্চিমবঙ্গ। কিন্তু তা সত্ত্বেও দুষ্কৃতিদের বাড়বাড়ন্ত তখনও কমেনি। এতদিনের একছত্র অধিপত্যে এভাবে প্রতিবাদের চোরাস্রোত সামলাতে সহ্য করতে পারেনি তারা। পথের কাঁটা সরাতে সিদ্ধান্ত নেয় বরুণকে হত্যা করার। সেই উদ্দেশ্যে সফলও হয় তারা, ২০১২ সালে আজকের দিনেই সন্ধেবেলায় পিছন থেকে গুলি করে হত্যা করা হয় বরুণকে।

এই খুনে অভিযুক্ত ভাড়াটে খুনি সুমন্ত দেবনাথ, দেবাশিষ সরকার, বিশ্বজিৎ বিশ্বাস এবং রাজু সরকার, প্রত্যেককেই গ্রেফতার করে পুলিশ৷ পুলিশি জেরায় তারা জানিয়েছিল, দমদম কেন্দ্রীয় সংশোধনাগারে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রাপ্ত বন্দী সুশান্ত চৌধুরীর নির্দেশেই তারা খুন করেছিল বরুণকে। তবে, মৃত্যুর ন’বছর বাদে আজও নিষ্পত্তি হয়নি বরুণ হত্যা মামলার৷ ভাইয়ের মৃত্যুর বিচার চেয়ে পথে নেমেছেন দিদি প্রমীলা রায়। মাঝের এই কয়েক বছরে নাম জড়িয়েছে একের পর এক নেতা-মন্ত্রীর। প্রমীলা রায় নিজে অভিযোগ করেছেন যে, রাজ্যের তৎকালীন খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের এই ঘটনায় হাত রয়েছে। পুলিশ অবশ্য সেই সমস্ত অভিযোগ দায়েরই করেনি, উলটে প্রমীলার বিরুদ্ধেই মানহানির মামলা করেছেন মন্ত্রীমশাই। গোটা ঘটনায় রাজ্য সরকারের ঔদাসিন্য দেখে বারেবারে সিবিআই তদন্তের দাবিও জানিয়েছে সুটিয়া। তবে তাতেও লাভের লাভ কিছুই হয়নি, বরুণ এখনও বিচার পাননি।

- Advertisement -

সপ্তাহের সবচেয়ে জনপ্রিয় সংবাদ

রাজের হাত ধরেই পর্ণ ইন্ডাস্ট্রিতে এসেছিলেন, চাঞ্চল্যকর দাবি পুনম পান্ডে ও শার্লিনের

খাস খবর ডেস্ক: পর্ণ ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে রাজ কুন্দ্রার যোগাযোগ নতুন কিছু নয়। বহুদিন ধরেই পর্ণোগ্রাফির সঙ্গে ওতপ্রোতভাবে জড়িত রাজ। এমনকি, তাঁর তত্ত্বাবধানেই পর্ণোগ্রাফিতে হাতেখড়ি...

এবার থেকে টিকিট কেটেই ওঠা যাবে ট্রেনে, বড়সড় পরিবর্তন স্টাফ স্পেশ্যালে

খাসখবর ডেস্ক: যাত্রীদের জন্য এল এক নতুন সুখবর। বড়োসড়ো পরিবর্তন এলো স্টপ স্পেশালের নিয়মে। এবার থেকে টিকিট কেটে ওঠা যাবে ট্রেনে। অর্থাৎ এবার থেকে...

কপিলের শো থেকে বাদ পড়ায় মনের ব্যথা প্রকাশ ‘কর্মহীন’ সুমনার

মুম্বই: শিশুশিল্পী হিসেবে প্রথম অভিনয় জগতে পা রাখেন অভিনেত্রী সুমনা চক্রবর্তী। তিনি প্রথম স্ক্রিন শেয়ার করেছেন বলিউডের জনপ্রিয় অভিনেতা আমির খানের সঙ্গে। তখন সেই...

এক্সক্লুসিভ: প্রয়াণ দিবসে মহানায়কের নাতবৌ অভিনেত্রী দেবলীনা কুমারের ‘উত্তম-কথা’

পূর্বাশা দাস: তিনি শুধু নায়ক নন, তিনি মহানায়ক। আপামর বাঙালির কাছে উত্তম কুমার মানে আবেগ। মৃত্যুর এক চল্লিশ বছর পরেও সকলের মনের মনিকোঠায় রয়েছেন...

খবর এই মুহূর্তে

নতুন লুকে নতুন চরিত্রে ফিরছেন দিতিপ্রিয়া রায়

অর্পিতা দাস: 'রানী মা' ইমেজ থেকে বেরিয়ে নতুন লুকে নতুন চরিত্রে দর্শকদের সামনে আসতে চলেছেন অভিনেত্রী দিতিপ্রিয়া রায়। তবে বড় পর্দা বা ছোট পর্দায়...

চকোলেটের লোভ দেখিয়ে নাবালিকা ধর্ষণ, পলাতক অভিযুক্ত

ডোমজুড়: বয়স মাত্র সাত বছর, একরত্তি শরীর তার। সেই নাবালিকাও ছাড় পেল না। প্রতিবেশী সালাম শেখ চকোলেটের লোভ দেখিয়ে প্রথমে ঘরে বন্দি করে রাখল৷...

‘মিথ্যে মামলায় ফাঁসানো হচ্ছে’, আদালতে স্বেচ্ছামৃত্যুর আবেদন শুভেন্দু ঘনিষ্ঠের

কাঁথি: চাকরি দেওয়ার নাম করে প্রতারণা সহ একাধিক অভিযোগ ছিল তাঁর বিরুদ্ধে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই কিছুদিন আগেই কলকাতায় গ্রেফতার করা হয়েছিল শুভেন্দু অধিকারী ঘনিষ্ঠ...

‘আমার এই হরিনাম যাবে সেদিন সাথে গো’, শেষযাত্রায় হেলেদুলেই শ্মশানঘাটে গেলেন বৃদ্ধা

মালদহ: 'আমার এই হরিনাম যাবে সেদিন সাথে গো, আমি হেলেদুলে যাবো শ্মশানঘাটে', চটুল বাংলা গানে মাতলেন শ্মশানযাত্রীরা। নাহ, ভুল কিছু পড়েননি। শেষযাত্রাও যে এতটা আনন্দের...