শুধু জীবদেহে নয়, জড়ে-ও ঈশ্বরের বাস, এক অসাধারণ শিক্ষা দিয়েছেন মা সারদা

0
35

বিশ্বদীপ ব্যানার্জি: মা সারদা সকলেরই মা। তিনি নিজেই বলতেন, “কথার কথা মা নয়, আমি সত্যিকারের মা।” কথার কথা নয়। সারা জীবন ধরেই প্রকৃত মায়ের মত শিক্ষা দিয়ে গিয়েছেন শ্রীমা। লীলা সংবরণের ১০০ বছর পরেও দিয়ে চলেছেন।

আরও পড়ুন: ঠাকুর রামকৃষ্ণের মধ্যেই বাস করতেন মা কালী, সময় বিশেষে ভক্তদের দর্শন-ও দেন

- Advertisement -

মায়ের এমনই একটি শিক্ষা হল, জড় বস্তুকেও মান্যতা দেওয়া। মা ভক্তদের বারবার বুঝিয়ে দিয়েছেন, জীবদেহে-ই শুধু নয়। জড় পদার্থেও বাস করেন ঈশ্বর। তাই জড় বলে তাকে তুচ্ছ তাচ্ছিল্য করা মোটেই উচিত কাজ নয়। জড়কেও মান্যতা দিতে হয়।

এ প্রসঙ্গে একটি ঘটনা বর্ণনা করেছেন স্বামী ঈশানানন্দ। তিনি তাঁর মাতৃসান্নিধ্যে বইতে লিখেছেন, একবার জয়রামবাটীর বাড়িতে জনৈকা মহিলা মায়ের সামনে উঠোন ঝাঁট দিয়ে ঝাঁটাটি ছুঁড়ে একদিকে ফেলে দিয়েছিলেন। ব্যস্ আর যায় কোথায়? সঙ্গে সঙ্গে তাঁকে পাকড়াও করেন মা।

খাস খবর ফেসবুক পেজের লিঙ্ক:
https://www.facebook.com/khaskhobor2020/

মা তাঁকে বলেন, “সে কি গো, কাজ হয়ে গেল আর অমনি অশ্রদ্ধা করে ঝাঁটাটি ছুঁড়ে দিলে! ছুঁড়ে রাখতে যতক্ষণ, ধীরেসুস্থে ভাল করে রাখতেও তো ততক্ষণ-ই।” এরপরই মা সারদা তাঁকে ব্যখ্যা দিয়ে বোঝান, “যাকে রাখো, সেই রাখে। ছোট জিনিস বলে তুচ্ছ করতে আছে? আবার তো ওটি প্রয়োজন হবে, মা। তাছাড়া, ওটিও তো এই সংসারের একটি অঙ্গ। সেদিক থেকে ওটির-ও একটা মান্যতা আছে। যার যা প্রাপ্য তাকে তা দিতে হয়। সামান্য ঝাঁটাটিকেও মান্য করতে হয়। কাজ যত সামান্যই হোক না কেন, তা পরম শ্রদ্ধা আর নিষ্ঠার সঙ্গে করতে হয়।”