কাকার বিয়েতে গিয়ে খুন ভাইপো

কাকার বিয়ের মণ্ডপের বাইরে দাঁড়িয়েছিল কিশোর। বিয়ের অনুষ্ঠানের দিকেই ছিল তাঁর যাবতীয় মন। আর সেই সময়েই পাশ থেকে এসে গুলি চালাল এক ব্যক্তি

0
191

খাস খবর ডেস্ক: কাকার বিয়ের মণ্ডপের বাইরে দাঁড়িয়েছিল কিশোর। বিয়ের অনুষ্ঠানের দিকেই ছিল তাঁর যাবতীয় মন। আর সেই সময়েই পাশ থেকে এসে গুলি চালাল এক ব্যক্তি। মাথায় গুলি লাগার পরে মাটিতে লুটিয়ে পরল রক্তাক্ত কিশোর।

আরও পড়ুন- বাড়ছে বেআইনি অনুপ্রবেশ, হাওড়া থেকে গ্রেফতার বাংলাদেশি যুবক

ঘটনাটি উত্তরপ্রদেশের মিরাট জেলার খিওয়াই এলাকার। মৃত কিশোরের নাম সুমিত কাশ্যপ। ১৮ বছর বয়সী ওই ছেলেটি একাদশ শ্রেণীর ছাত্র ছিল। বিয়ের অনুষ্ঠানে সুমিতের পাশে থাকা অঙ্কুর নামক অপর এক কিশোরের গায়েই গুলি লেগেছে। গুরুতর জখম অবস্থায় এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন- সেতু ভেঙে ৩০ ফুট নিচের খালে ট্রাক, খোঁজ নেই চালক ও খালাসির

পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, রাত ১২টা নাগাদ বিয়ের অনুষ্ঠান চলছিল। সেই সময়ে সুরেন্দ্র ওরফে কাল্লু নামক এক ব্যক্তি সুমিতের মাথা লক্ষ্য করে গুলি করে। পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জ থেকে গুলি চালায়। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় সুমিতের। পাশে দাঁড়িয়ে থাকা অঙ্কুরের চোয়ালেও গুলি লাগে। তাঁকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

আরও পড়ুন- বৃক্ষরোপণ করতে গিয়ে মিলল মানুষের মাথার খুলি, চাঞ্চল্য এলাকায়

অন্যদিকে, বিয়ের অনুষ্ঠানে মাঝে গুলি চালানোর মতো ঘটনার জেরে তীব্র বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি হয়। যদিও অভিযুক্ত কাল্লু পালিয়ে যেতে পারেনি। বিয়ে বাড়িতে হাজির ব্যক্তিরাই অভিযুক্তকে ধরে ফেলে। পরে পুলিশ এসে কাল্লু ওরফে সুরেন্দ্রকে গ্রেফতার করে। পুরনো শত্রুতার জেরেই এই হামলা চালানো হয়েছিল বলে দাবি করেছে পুলিশ।