মমতাকে হারাতে ভবানীপুরে বিজেপি প্রার্থীর হয়ে প্রচারে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরদীপ সিং পুরীর

0
18

কলকাতা: হাতে গোনা কয়েকদিন পরেই হতে চলেছে ভবানীপুরে হাইভোল্টেজ উপ নির্বাচন। কলকাতার এই কেন্দ্রে তৃণমূলের হয়ে লড়ছেন তৃণমূল সুপ্রিমো তথা বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোধ্যায়। অন্য দিকে বিজেপির হয়ে লড়াই করছেন আইনজিবী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল। গত কয়েকমাস আগেই হয়ে যাওয়া বঙ্গ বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির হয়ে প্রচারে এসেছিলেন কেন্দ্রের শীর্ষ নেতারা। এবারেও কেউ আসবে কিনা সেই নিয়ে উঠছিল প্রশ্ন। মিলছে জবাবাও। ভবানীপুরের বিজেপি প্রার্থীর হয়ে কলকাতায় প্রচারে এসেছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরদীপ সিং পুরী।

আরও পড়ুন-আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি প্রয়োজন, রাষ্ট্রসঙ্ঘে বক্তব্য রাখতে চেয়ে চিঠি তালিবানের

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে উপ নির্বাচনে বিজেপি প্রার্থী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়ালের সমর্থনে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরদীপ সিং পুরী ভবানীপুর বিধানসভা কেন্দ্রে ঘরে ঘরে প্রচার চালাচ্ছেন। ২১-এর বিধানসভা নির্বাচনে বাংলায় বিজেপিকে জেতাতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী, অমিত শাহ সহ কেন্দ্রের শীর্ষ নেতারা এসেছিলেন। ফের নির্বাচনে মমতার বিরুদ্ধে লরছে বিজেপি। এবার কেউ সমর্থনে আসবেন কিনা সেই নিয়ে শুরু হয়েছিল চর্চা। না এলেও কেন এখন আসবেন না তা নিয়েও উঠেছিল প্রশ্ন।

সব দিক সামাল দেওয়ার জন্যই কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কলকাতায় এসেছেন বলেই বলছেন রাজনৈতিক মহলের একাংশ। ভবানীপুর তৃণমূলের শক্ত গড়। সেখানে মমতাকে হারানো যে এত সহজ নয় তা খুব ভালো করেই জানে বঙ্গ বিজেপি। তবুও শাসক দলকে এক ইঞ্চি জায়গা ছাড়তে রাজি নয় বিজেপি। বলা ভালো নন্দীগ্রামের মতই মমতাকে হারাতে চাইছে বিজেপি। এই প্রথম কোনও কেন্দ্রীয় মন্ত্রী কলকাতায় এসেছেন বিজেপি প্রার্থীর হয়ে প্রচারে। বলে রাখা ভালো উপনির্বাচনের প্রচারকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত হয়ে রয়েছে ভবানীপুর।

আরও পড়ুন-ক্ষেপণাস্ত্র প্রযুক্তিতে ভারত সম্পূর্ণভাবে ‘আত্মনির্ভর’: ডিআরডিও প্রধান

প্রিয়াঙ্কা প্রচারের শুরু থেকেই পুলিশের সঙ্গে ঝামেলায় জড়িয়েছে। প্রায় প্রতিদিনই প্রচারে বেড়িয়ে কথাকাটাকাটি হচ্ছে পুলিশের সঙ্গে। এই বিষয় নিয়ে পুলিশের বিরুদ্ধে কমিশনে যাওয়ারও হুশিয়ারি দিয়েছেন ভবানীপুরের বিজেপি প্রার্থী। বুধবারে প্রিয়াঙ্কার হয়ে প্রচারে বেড়িয়ে পুলিশের সঙ্গে বচসায় জড়ান বিজেপির নয়া রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার। এই ঘটনায় ক্ষুব্ধ হন স্বয়ং প্রিয়াঙ্কাও। সব মিলিয়ে ভবানীপুরে উপ নির্বাচন নিয়ে বঙ্গ রাজনীতিতে পারদ চড়ছে হু হু করে। রাজ্যবাসী এখন তাকিয়ে আগামী ৩ অক্টোবরের দিকে। কে শেষ হাসি হাসে সেটাই এখন দেখার অপেক্ষা।