বাংলা-কেরল সহ আরও কতগুলি রাজ্যে সরকার গঠন করবে BJP, বৈঠকে অঙ্গীকার শাহের

0
43

নয়াদিল্লি: দেশের সমস্ত রাজ্যের শাসনভার নিজেদের হাতে রাখতে চাইছে বিজেপি। একে একে সোজা না হোক বাঁকা পথেই রাজ্য দখলের খেলায় নেমেছে গেরুয়া শিবির। মহারাষ্ট্রেরর উদাহরণ টেনে এমনটাই বলছে রাজনৈতিক মহল। সেই ধারনা যে মিথ্যা নয় মিলল প্রমাণও। রবিবার হায়দরাবাদে জাতীয় কার্যনির্বাহী বৈঠকের সময় গৃহীত একটি প্রস্তাবে বিজেপি জানিয়েছে আগামী দিনে কোন কোন রাজ্য দখলের দিকে নজর রেখেছে গেরুয়া বাহিনী।

হায়দরাবাদে জাতীয় কার্যনির্বাহী বৈঠকের সময় গৃহীত একটি প্রস্তাবে বিজেপি জানিয়েছে পদ্ম শিবির শীঘ্রই তেলেঙ্গানা, অন্ধ্রপ্রদেশ, তামিলনাড়ু, কেরালা, পশ্চিমবঙ্গ এবং ওড়িশায় সরকার গঠন করবে। অর্থাৎ কেবল যে মহারাষ্ট্রই বিজেপির পাখির চোখ নয় তা স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে। বেশ কতগুলি রাজ্য প্রবেশ করা কঠিন এই কথা স্বীকার করে গেরুয়া বাহিনী প্রস্তাবে জানিয়েছে আরও কয়েকটি রাজ্যের উপর দৃষ্টি রাখবে পদ্ম শিবির। রাজনৈতিক রেজোলিউশনের প্রস্তাব করে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেছেন যে আগামী ৩০ থেকে ৪০ বছর বিজেপির যুগ হবে এবং ভারত একটি “বিশ্ব গুরু” (বিশ্ব নেতা) হয়ে উঠবে। ওয়াকিবহল মহল বলছে ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে থেকেই আরও বড় গেম প্ল্যান তৈরি করছে বিজেপি।

আরও পড়ুন- রাষ্ট্রপতি পদপ্রার্থী দ্রৌপদী মুর্মুকে নিয়ে নিজের অনুভূতির কথা জানালেন প্রধানমন্ত্রী

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কথা, বিজেপি তেলেঙ্গানা এবং পশ্চিমবঙ্গের মতো রাজ্যে পারিবারিক শাসনের অবসান ঘটাবে এবং অন্ধ্রপ্রদেশ, তামিলনাড়ু এবং ওড়িশায় ক্ষমতায় আসবে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেছেন যে শেষ বিধানসভা নির্বাচন এবং উপনির্বাচনে বিজেপির জয় দলটির “উন্নয়ন ও কর্মক্ষমতার রাজনীতি” সম্পর্কে জনগণের অনুমোদনকে নির্দেশ করেছে এবং পারিবারিক শাসন, বর্ণবাদ এবং তুষ্টির রাজনীতির অবসানের আহ্বান জানিয়েছে। এই শোনে শাহ খোঁচা দিয়েছেন কংগ্রেসকেও। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী দাবি করেছেন যে কংগ্রেস গান্ধী পরিবারের একটি দল হয়ে উঠেছে। তবে এই দলের মধ্যে অনেক সদস্যে গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করছে বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি। এটা বলার অপেক্ষা রাখে না যে আগামী দিনে বিজেপি ঠিক কি করতে চাইছে সেই দিকেই নজর রেখেছে গোটা দেশের রাজনৈতিক মহল।