“যাকে আশীর্বাদ দিয়েছেন তারাই ডুবেছেন”, কটাক্ষ Sujan Chakraborty এর

0
109

কলকাতা: দেশের পাঁচ রাজ্যের নির্বাচনের ফলাফল এখন প্রকাশ্যে। বাংলার মানুষের নজর বেশি ছিল সমুদ্রসৈকত গোয়ার দিকে। এবারের গোয়া বিধানসভা নির্বাচনে (Election Result) লড়ছে বাংলার শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। তবে গোয়াতে ‘শূন্য’ তৃণমূল। স্থানীয় দল মহারাষ্ট্র গোমন্ত্রক পার্টির সঙ্গে জোট করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। যা ভোট পেয়েছিল তার সবটাই গোমন্ত্রক পার্টির, তৃণমূলের নয়। এই নিয়ে কটাক্ষ করতে ছাড়েনি বিরোধীরা। সিপিএমের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য সুজন চক্রবর্তী (Sujan Chakraborty) টুইট করেছেন।

সুজন চক্রবর্তী (Sujan Chakraborty) লিখেছেন, “তিন মাসের মধ্যে গোয়ায় সরকার গঠনের প্রতিশ্রুতি ভাইপোর। কিন্তু কি হলো? তৃণমূল যে শূন্য!! বিরোধী ভোট ভাগ করে বিজেপিকে সাহায্যই গোয়ায় তৃণমূলের একমাত্র সাফল্য যে!! রাজকীয় ব্যবস্থাপনায় গোয়ায় তৃণমূলী ভোট পর্যটন। লাভ হলো বিজেপির।। এখন শুধুই প্রতিদানের অপেক্ষায় – মাননীয়া!!” তিনি আরও বলেছেন, “অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় রোজই বলেছেন যে, আমরা গোয়াতে সরকার গঠনের জন্য এসেছি। টাকার শ্রাদ্ধ হয়েছে। কোথা থেকে সে টাকা পেয়েছে তা আলাদা কথা।”

আরও পড়ুন: “মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে হাত মেলানোর পর আর সেঞ্চুরি আসেনি বিরাটের”, তীব্র কটাক্ষ Sukanta Majumdar এর

তিনি আরও বলেছেন, “কিন্তু টাকার পর টাকা খরচ করেছেন, কোম্পানি ব্যবহার করেছেন। দেখা গেল, সরকার গঠন দূরে থাক, একটা আসনও তারা পায়নি। কিন্তু ভোট কেটে বিজেপির যাত্রাকে সুবিধা করে দিয়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সঙ্গে রেখে বিজেপির ভোট বাড়ার সুযোগটাকে তারা ব্যবহার করেছেন। যাদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন, আশীর্বাদ দিয়েছিলেন অখিলেশ যাদবের মাথায়। যত আশীর্বাদ হয়ে যাকে আশীর্বাদ দিয়েছে তারা ডুবেছেন। এটা হল তৃণমূলের খেলা।”

আরও পড়ুন: Goa: তৃণমূল ও আপ আদতে কার সুবিধা করল, উঠছে প্রশ্ন

উল্লেখ্য, ৪০ টি আসন বিশিষ্ট গোয়ায় বিজেপি এককভাবে দখল করেছে ২০ টি আসন৷ ম্যাজিক ফিগার ২১ থেকে এক কদম দূরে দাঁড়িয়ে থাকলেও সরকার গড়ার মতো পর্যাপ্ত আসন সংখ্যা তাঁদের ঝুলিতে রয়েছে বলে রাজ্যপালের কাছে ইতিমধ্যেই দাবি জানাতে চলেছে বিজেপি৷ রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা মনে করিয়ে দিচ্ছেন, গতবারে ১৭টি আসনে জয়ী হয়ে একক গরিষ্ঠতা অর্জন করেও শেষ পর্যন্ত সরকার গড়তে ব্যর্থ হয়েছিল কংগ্রেস।