বাবা-মা নয় ‘দ্রৌপদী’ নাম কে দিয়েছিলেন জানালেন সদ্য শপথ নেওয়া দেশের সর্বকনিষ্ঠ রাষ্ট্রপতি

0
45

নয়াদিল্লি: আজ সকালের দেশের ১৫ তম রাষ্ট্রপতি হিসাবে শপথ নিয়েছেন দ্রৌপদী মুর্মু (Droupadi Murmu)। দ্রৌপদী হলেন দেশের প্রথম আদিবাসী মহিলা রাষ্ট্রপতি। এমনকি তিনি সর্বকনিষ্ঠও। দেশের দ্বিতীয় মহিলা রাষ্ট্রপতি জানিয়েছেন বাবা মা নয় মহাকাব্য ‘মহাভারত’-এর একটি চরিত্রের উপর ভিত্তি করে দ্রৌপদী নামটি কে রেখেছিলেন।

একটি ওডিয়া ভিডিও ম্যাগাজিনকে দেওয়া একটি সাক্ষাত্কারে সদ্য ভারতের রাষ্ট্রপতি হিসাবে শপথ নেওয়া দ্রৌপদী মুর্মু জানিয়েছেন প্রথমে তাঁর সাঁওতালি নাম ছিল “পুতি”। এই নাম পরিবারের পক্ষ থেকে রাখা হলেও স্কুলের একজন শিক্ষক সেই নাম বদলে দ্রৌপদী রেখেছিলেন। রাষ্ট্রপতি বলেছেন, “দ্রৌপদী আমার আসল নাম ছিল না। এটা আমার শিক্ষক দিয়েছিলেন যিনি অন্য জেলার বাসিন্দা, আমার জন্মভূমি ময়ূরভঞ্জ থেকে নয়।” তিনি বলছেন, আদিবাসী অধ্যুষিত ময়ূরভঞ্জ জেলার শিক্ষকরা ১৯৬০-এর দশকে বালাসোর বা কটক থেকে যাতায়াত করতেন। তাদের মধ্যেই একজন শিক্ষক এই দ্রৌপদী নামটি দিয়েছিলেন। তিনি আরও বলেছেন, “শিক্ষিক আমার আগের নাম পছন্দ করেননি এবং ভালোর জন্য এটি পরিবর্তন করেছেন।”

- Advertisement -

আরও পড়ুন- ভেঙে পড়ল ট্রেনার বিমান, ভিতরে ছিলেন ২২ বছরের মহিলা পাইলট

দ্রৌপদী মুর্মুকে (Droupadi Murmu) প্রশ্ন করা হয়েছিল কেন, ‘মহাভারত’ চরিত্রের মতো একটি নাম বেছে নেওয়া হয়। সেই প্রশ্নের উত্তরে তিনি আরও উল্লেখ করেছেন যে, তাঁর নাম বেশ কয়েকবার পরিবর্তিত হয়েছে “দুরপাদি” থেকে “দর্পদী” করা হয় শেষে তাঁর নাম ‘দ্রৌপদী’ হিসাবে সকলের সামনে আসে। এই প্রসঙ্গে জানিয়ে রাখা ভাল, দ্রৌপদী মুর্মু, যার স্কুল ও কলেজে টুডু উপাধি ছিল। তিনি শ্যাম চরণ টুডু নামে একজন ব্যাঙ্ক অফিসারকে বিয়ে করার পর মুর্মু উপাধি ব্যবহার করতে শুরু করেন। উল্লেখ্য, আজ সোমবার ভারতের প্রধান বিচারপতি এন ভি রমনা সংসদের সেন্ট্রাল হলে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে তাকে শপথবাক্য পাঠ করান। শপথগ্রহণের পর প্রথা মেনে তাঁকে ২১ বার বন্দুকের তোপ দিয়ে সম্মান জানানো হয়।