26 C
Kolkata
Saturday, June 19, 2021
Home খাস দুনিয়া ধর্মের কারণে ভাইরাসের অস্তিত্বকে অস্বীকার করছে পাকিস্তানিরা: তসলিমা

ধর্মের কারণে ভাইরাসের অস্তিত্বকে অস্বীকার করছে পাকিস্তানিরা: তসলিমা

নয়াদিল্লি: ধর্ম মানব সমাজ খুবই গুরুত্বপূর্ণ। যা যুগ যুগ ধরে মানূষের কাছে সমাদর পেয়ে এসেছে। সয়াজের প্রায় সকল বিষয়ের সঙ্গেই জুড়ে দেওয়া হয় ধর্মকে। বর্তমান সময়ে মহামারির প্রতিষেধকের মাঝেও প্রতিকূলতা হয়ে দাঁড়িয়েছে ধর্ম। যা নিয়েই ভারতের পড়শি রাষ্ট্র পাকিস্তানকে আক্রমণ করেছেন বাংলাদেশের নির্বাসিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন।

- Advertisement -

গত এক বছর ধরে সমগ্র বিশ্ব করোনা ভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করছে। সাম্প্রতিককালে সেই মারণ ভাইরাসের প্রতিষেধক বাজারে এসেছে। বিশ্বের যে গুটিকয়েক দেশ ভ্যাকসিন প্রস্তুত করেছে তার মধ্যে একটি হচ্ছে ভারত। কূটনৈতিক কারণে ভারতের থেকে ভ্যাকসিন গ্রহণ করেনি পাকিস্তান। সমগ্র বিষয়টি ঈশ্বর এবং ধর্মের উপরেই ছেড়ে দিয়েছে ওই দেশ।

এই নিয়েই নিজের পূর্বতন রাষ্ট্রকে কটাক্ষ করেছেন তসলিমা নাসরিন। টুইট করে তিনি লিখেছেন, “অধিকাংশ পাকিস্তানি করোনার ভ্যাকসিন নিতে নারাজ। তাঁরা মনে করে যে করোনা ভাইরাস বা পোলিও বলে বিশ্বে কিছুই নেই।” এরপরেই প্রতিষেধকের সঙ্গে ধর্মের যোগসাজশ নিয়ে পাক মনোভাবের কথা ব্যক্ত করেছেন লেখিকা তসলিমা নাসরিন। ওই টুইটের মধ্যেই তিনি লিখেছেন যে পাকিস্তানের বাসিন্দাদের বড় অংশের মানুষ মনে করনে খ্রিষ্টান বা অমুসলিমরা কখনই মুসলিম ধর্মাবলম্বী মানুষদের স্বাস্থ্যের বিষয়ে উদ্বিগ্ন হতে পারে না। সেই কারণে ভাইরাস বা ভ্যকসিন মুসলিম বিরোধী ষড়যন্ত্র ছাড়া আর কিছুই নয়।

- Advertisement -

এই মনোভাব নিয়ে চলার জন্য পাকিস্তানের মানুষদের ‘অসহায়’ বলে দাবি করেছেন লজ্জার লেখিকা। টুইটের শেষ লাইনে তসলিমা লিখেছেন, “পানিস্তানিদের কোন ধারনা নেই যে সাধারণ মানুষ সমগ্র মানবতা নিয়ে উদ্বিগ্ন হতে পারে!” লেখিকা হলেও চিকিৎসা শাস্ত্র নিয়ে লেখাপড়া করেছেন তসলিমা নাসরিন। রীতিমতো ডাক্তারি পাশ করেছেন। কৈশর থেকেই ধর্মের বিরুদ্ধে বিশেষ অনীহা ছিল। সেই কারণে প্রশ্ন তুলেছিলেন ধর্মীয় বিধান এবং সমাজের চিরাচরিত ধার্মিক রীতি নিয়ে। যার কারণে নিজের দেশ বাংলাদেশের মাটিতে মৌলবাদীদের বিদ্বেষের শিকার হতে হয় তাঁকে।

ধর্মের বিরোধিতার কারণেই তসলিমা নাসরিনকে ত্যাগ করতে হয় নিজের জন্মভূমি বাংলাদেশ। ধর্মের ভিত্তিতে জন্ম নেওয়া পাকিস্তানের অংশ থাকা বাংলাদেশ থেকে বিতাড়িত হয়ে ভারতে আসেন তিনি। বাঙালির প্রাণের শহ কলকাতাতেও ঠাঁই মেলেনি তাঁর। সেই ধর্মের কারণেই পদ্মার মতো গঙ্গা পারের শহর ছেড়ে যেতে হয়েছিল ২০০৭ সালে। ভারত সরকারের পক্ষ থেকে তসলিমা নাসরিনকে নাগরিকত্ব দেওয়া হয়নি। যদিও এই মুহূর্তে তিনি ভারতের জাতীয় রাজধানী দিল্লির বাসিন্দা। সুইডেনের নাগরিকত্ব নিয়ে ভারতের মাটিতেই বাস করছেন দুঃসহবাসের শ্রষ্ঠা।

- Advertisement -

সপ্তাহের সবচেয়ে জনপ্রিয় সংবাদ

কলকাতা থেকে দফতর সরাচ্ছে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা, আশঙ্কায় বহু কর্মী

খাস খবর ডেস্ক: কেন্দ্রের অধীনে থাকা রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার সদর দফতর কলকাতা থেকে সরিয়ে ফেলা হতে পারে অন্য রাজ্যে। যার জেরে কর্মহীন হয়ে পড়তে পারেন...

বাস তো নয় যেন হাতি পুষছি, সরকারি সাহায্যের দাবি স্কুল বাস মালিকদের

রায়গঞ্জ: প্রায় দেড় বছর ধরে বন্ধ রয়েছে স্কুল৷ তখন থেকেই গ্যারেজ বন্দী স্কুল বাসগুলিও৷ দীর্ঘদিন ধরে অচল অবস্থায় পড়ে থেকে নষ্ট হয়ে গিয়েছে বাসের...

স্বাস্থ্য দফতরে ১০০ শতাংশ অবাঙালি নিয়োগ, ক্ষুব্ধ বাংলাপক্ষ

সৌমেন শীল, কলকাতা: বাংলা নিজের মেয়েকেই চাই। এই স্লোগান দিয়ে একুশের বিধানসভা নির্বাচনে লড়াই করে বিপুল সাফল্য পেয়েছে তৃণমূল। তৃতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় আসার একমাসের...

মুকুলের বিরুদ্ধে ওঠা সম্মানহানিকর অভিযোগের সামনে দাঁড়িয়েও শুভ্রাংশু নীরব কেন, উঠছে প্রশ্ন

কলকাতা: যা রটে তার কিছু তো বটে৷ বহুল ব্যবহারে জীর্ণ এই প্রবাদটাই ফের সামনে উঠে আসছে মুকুল রায়ের তথ্য পাচারের প্রসঙ্গে পুত্র শুভ্রাংশুর নীরবতাকে...

খবর এই মুহূর্তে

হ্যাপি ফাদার্স ডে…

পূর্বাশা দাস: প্রত্যেকটা সন্তানের জীবনে যেমন তার মায়ের গুরুত্ব থাকে তেমনই গুরুত্ব থাকে বাবারও। মা যেমন পরম মমতায় আগলে রাখেন সন্তানদের, বাবা তেমন এই...

বহুতলের কার্নিশে বেড়়াল, হুলুস্থুলু কাণ্ড নিউটাউনে

কলকাতা: দুদিকে সুউচ্চ বহুতল৷ তার মাঝখানে পাইপ লাইন৷ সেই পাইপ লাইন সংলগ্ন কার্নিশে বসে একটি পূর্ণ বয়স্ক বেড়াল। আরও পড়ুন: জ্ঞানেশ্বরী কাণ্ড: ক্ষতিপূরণের লোভে জীবিত মানুষের...

জীবনের ট্র্যাকে হেরে গেলেন ‘ফ্লাইং শিখ’: এক নজরে এই কিংবদন্তির নানান কীর্তি

খাস খবর ডেস্ক: গত বছর করোনা আবহ শুরু হওয়া থেকে একাধিক ক্রীড়াবিদকে হারিয়েছি আমরা। এই বছরও কমছে না সেই মৃত্যু মিছিল। শুক্রবার রাতে প্রয়াত...

জ্ঞানেশ্বরী কাণ্ড: ক্ষতিপূরণের লোভে জীবিত মানুষের মৃত সাজার অভিনয়

কলকাতা: অবশেষে জ্ঞানেশ্বরী কাণ্ডের ১১ বছর পর জানা গেল ‘মৃত’ অমৃতাভ চৌধুরী বহাল তবিয়তেই বেঁচে রয়েছেন৷ ইতিমধ্যে তাঁর ‘মৃত্যু’র ক্ষতিপূরণ বাবদ রেলের তরফে পরিবারকে...