সমলিঙ্গের বিবাহে আইনি বৈধতা কি সময়ের অপেক্ষা, শীর্ষ আদালতের মন্তব্যে বাড়ল জল্পনা

0
29
supreme court on same sex marrige

নয়া দিল্লি : সমলিঙ্গের বিবাহের (same sex marriage) আইনি বৈধতার আর্জি বিবেচনা করে দেখা হবে। শুক্রবার জানাল দেশের সুপ্রিম কোর্ট (supreme court)। দেশের শীর্ষ আদালতের এ হেন সিদ্ধান্তে অনেকটাই আশার আলো দেখছেন ‘এলজিবিটিকিউ’ সম্প্রদায়ের মানুষরা।

আরও পড়ুন : ব্যাগ ভর্তি দেহাংশের টুকরো কি শ্রদ্ধার, তড়িঘড়ি ছুটল দিল্লি পুলিশ

- Advertisement -

এই মন্তব্যের পাশাপাশি দেশের কেন্দ্রীয় সরকারকে নোটিস দিয়েছে শীর্ষ আদালত। প্রধান বিচারপতি ডিওয়াই চন্দ্রচূড় এ বিষয়ে কেন্দ্রের কাছ থেকে জবাব চেয়ে পাঠাতে নির্দেশ দিয়েছেন। আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে কেন্দ্র সরকারকে জবাব দিতে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। স্পেশাল ম্যারেজ আইনে’র আওতায় সমলিঙ্গের বিবাহের আইনি স্বীকৃতির দাবি জানিয়ে আদালতের দ্বারস্থ হয়েছেন এক সমপ্রেমী যুগল। সেই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে এই নির্দেশ।

আরও পড়ুন :Sraddha Murder Case: ‘ভুয়ো’ মুসলিম সেজে Aftab-কে সমর্থন, গ্রেফতার উত্তরপ্রদেশের যুবক

আরও পড়ুন :শ্মশান বন্ধ করে বাউল কীর্তন, শীতের রাতে ফিরতে হল শ্মশান যাত্রীদের

সমপ্রেম (Homosexuality) আবার কী? এ আবার হয় নাকি? ইত্যাদি ইত্যাদি নানা তীক্ষ্ণ প্রশ্নে জর্জরিত ছিলেন সমপ্রেমীরা। সমাজে অনেক ক্ষেত্রে তাঁদের নীচু চোখে দেখা হত। চলত নানা ঠাট্টা, তামাশা। এরপর ২০১৮ সালে সমকামিতা নিয়ে যুগান্তকারী রায় দেয় সুপ্রিম কোর্ট (supreme court)। ভারতে সমকামিতা অপরাধ নয়— শীর্ষ আদালতের এই রায়ে ‘এলজিবিটিকিউ’ সম্প্রদায়ের মানুষদের দীর্ঘ দিনের দাবি পূরণ হয়েছিল। এই রায়ের পর সমাজে সমপ্রেমীদের গ্রহণযোগ্যতা অনেকটা বেড়েছে। সমপ্রেমী মানুষরা অনেকটাই ‘স্বাধীন’ হয়েছেন। এমনকি, এ নিয়ে সমাজে ভ্রান্ত ধারণাও অনেকটা দূর হয়েছে বলে মনে করেন কেউ কেউ। ২০১৮ সালের ওই রায়ের পরই এ দেশে সমলিঙ্গের বিবাহের (same sex marriage) আইনি স্বীকৃতির দাবি আরও জোরালো হয়। এমনকি, দেশের শীর্ষ আদালতের ঐতিহাসিক রায়ের পর দেশে সমপ্রেমের বিবাহও হয়েছে। কলকাতা, হায়দরাবাদ-সহ দেশের নানা শহরে সমপ্রেমের বিবাহের খবর শিরোনামে এসেছে।