যারা ক্ষমতায় আছেন তারা সমাজে “তিক্ততা ছড়ানোর” চেষ্টা করছেন, BJP-কে আক্রমণ শরদ পাওয়ারের

0
16
Sharad Pawar

নয়াদিল্লি: ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচন যত সামনে আসছে ততই বিজেপির উপর বিরোধীদের আক্রমণ। এদিন গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে এনসিপি প্রধান শরদ পাওয়ার(Sharad Pawar) বড় অভিযোগ করেছেন। বিজেপি নিশানা করে বলেছেন শাসক দল সমাজে তিক্ততা ছড়ানোর চেষ্টা করা হচ্ছে এই কারণেই দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া এবং সম্প্রীতি বজায় রাখা একটি চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

সারাদিনের সমস্ত খবরের আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন খাস খবর অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ: https://play.google.com/store/apps/details?id=app.aartsspl.khaskhobor

বিস্তারিত খবর, লাইভ ভিডিও সহ সমস্ত রকম আপডেট পেতে লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ: https://www.facebook.com/khaskhobor2020

শরদ পাওয়ার (Sharad Pawar) শনিবার বলেছেন, রাজনীতি অতীতে মানুষকে সংযুক্ত করত, কিন্তু এখন দেশে ধর্মের ভিত্তিতে তাদের বিভক্ত করার চেষ্টা করা হচ্ছে। তোপ দেগে বলেছেন, দেশের নেতৃত্ব মহাত্মা গান্ধীর মতো জাতীয় আইকনদের অপমান করার চেষ্টা করছে। প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর অভিযোগ মহাত্মা গান্ধী, মাওলানা আবুল কালাম আজাদ দেশের স্বাধীনতার জন্য লড়াই করেছেন এবং এটি নির্মাণে কাজ করেছেন। তবে বর্তমানে, দেশের নেতৃত্ব এই লোকদের মানহানি করার চেষ্টা করছে। পাওয়ারের কথায়, দেশ বর্তমানে একটি দলের নেতৃত্বে পরিচালিত হচ্ছে, যার একটি ভিন্ন চিন্তা প্রক্রিয়া রয়েছে। রাজনীতি আগে মানুষকে সংযুক্ত করলেও এখন ধর্মের ভিত্তিতে মানুষকে বিভক্ত করার চেষ্টা করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন- এপ্রিলে কদিন বন্ধ ব্যাঙ্ক, কোন দিন মিলবে পরিষেবা, জেনে নিন ছুটির তালিকা 

পাওয়ার বলেছেন, “সম্প্রতি, বিজেপি-শাসিত কর্ণাটকে, কিছু সংগঠনের দ্বারা একটি ‘ফতোয়া’ জারি করা হয়েছিল, যেখানে লোকেদেরকে একটি সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের সদস্যদের দ্বারা পরিচালিত দোকানগুলি থেকে কিছু না কিনতে বলা হয়েছিল৷ এই ধরণের তিক্ততা সেই উপাদানগুলি ছড়িয়ে দিচ্ছে যারা রাজ্যগুলিতে ক্ষমতায়। এই দেশ কীভাবে এগিয়ে যাবে এবং আমরা কীভাবে সম্প্রীতি বজায় রাখব তা একটি প্রশ্ন।” তিনি আরও বলেন, “আজ, আমরা এই ধর্মান্ধতার বিরুদ্ধে লড়াই করতে চাই। আমাদের উন্নয়নের রাজনীতি করতে হবে, শ্রমিক ও কৃষকদের জন্য উন্নত ভবিষ্যতের জন্য। আমি আত্মবিশ্বাসী যে (মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী) উদ্ধব ঠাকরে, (উপ-মুখ্যমন্ত্রী) অজিত পাওয়ার, (এনসিপি মন্ত্রী) জয়ন্ত পাতিল এবং অন্যরা একসাথে এই ছবি পরিবর্তন করবে।” সব মিলিয়ে যত নির্বাচন এগিয়ে আসছে ততই কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপির উপর চাপ বৃদ্ধি করছে বিরোধী পক্ষরা।