‘বিজ্ঞান মিথ্যা বলে না, মোদী বলেন’ করোনায় ভারতে ৪৭ লক্ষ মৃত্যু প্রসঙ্গে WHO-র দাবি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীকে খোঁচা রাগার

0
43

নয়াদিল্লি: করোনায় ভারতে মৃত্যুর আসল সংখ্যা নিয়ে ফের রাহুল গান্ধীর নিশানায় মোদী সরকার। ভারতে করোনায় কত জনের মিত্যু হয়েছে তারাসল সংখ্যা মোদী সরকার প্রকাশ করেনি বলেই আগে দাবি করেছিলেন কংগ্রেস নেতা। একদিন আগে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দেওয়ার তথ্য নিয়ে ফের একবার কেন্দ্র সরকার ও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে খোঁচা দিয়েছেন রাগা। সম্প্রতি WHO একটি রিপোর্টে দাবি করেছে ভারতে করোনায় ৪৭ লক্ষ মানুষের মৃত্যু হয়েছে। সেই তথ্যকেই পুনরায় বিজেপিকে আক্রমণের হাতিয়ার হিসাবে ব্যবহার করেছেন তিনি।

একটি টুইটে WHO-এর প্রকাশির রিপোর্ট উল্লেখ করে রাহুল গান্ধী বলেছেন, “বিজ্ঞান মিথ্যা বলে না, মোদী বলেন।” তিনি ভারত সরকারের কাছে করোনায় নিহতদের পরিবারকে ৪ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দেওয়ার দাবি করেছেন। রাহুল গান্ধী লিখেছেন, “কোভিড মহামারীর কারণে ৪৭ লাখ ভারতীয় মারা গিয়েছে। সরকারের দাবি অনুযায়ী ৪.৮ লাখ নয়। বিজ্ঞান মিথ্যা বলে না। মোদী বলেন। প্রিয়জন হারিয়েছে এমন পরিবারকে সম্মান করুন। বাধ্যতামূলক ৪ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ দিয়ে তাদের সমর্থন করুন।” বলা ভাল, গত মাসেই কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী দাবি করেছেন যে ভারতে মহামারী চলাকালীন ৪০ লাখ ভারতীয় মৃত্যু হয়েছে। এনওয়াইটি-এর একটি প্রতিবেদনে প্রকাশ্যে এসে প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ করেছেন যেখানে বলা হয়েছিল ভারত সরকার WHO অতিরিক্ত মৃত্যুর অনুমান প্রকাশের প্রচেষ্টাকে আটকে দিচ্ছে। তিনি টুইটে লিখেছিলেন, “মোদীজি সত্য বলেন না, তিনি অন্যদের কথা বলতে দেন না।”

অন্যদিকে ভারত বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দ্বারা ব্যবহৃত মডেলিং পদ্ধতি নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে বলেছে যে এটি তার “এক-আকারে সমস্ত জায়গায় ফিট” পদ্ধতিতে হতাশ। NITI আয়োগের স্বাস্থয় সদস্য প্রশ্ন তুলে সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন, ভারতের জোরালো লেখা এবং মন্ত্রী পর্যায়ে যৌক্তিক যোগাযোগ সত্ত্বেও, সংস্থাটি মডেলিং অনুমানের উপর ভিত্তি করে নম্বর ব্যবহার করেছে। নয়াদিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্সেসের পরিচালক রণদীপ গুলেরিয়াও WHO পদ্ধতিতে আপত্তি জানিয়েছেন এবং এর জন্য তিনটি কারণ তালিকাভুক্ত করেছেন। তিনি বলেছেন, এই সময়ে ঘটে যাওয়া অতিরিক্ত মৃত্যুর সংখ্যা এবং COVID-19 এর জন্য দায়ী হতে পারে এমন অতিরিক্ত মৃত্যুর সংখ্যা দেখতে ডেটা ব্যবহার করা উচিত এবং WHO সেই ডেটা ব্যবহার করেনি। সেই সঙ্গে তিনি আরও বলেছেন করোনায় মারা যাওয়া লোকদের ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ক্ষেত্রে খুব ভারত উদার।