কর্নাটকে পেশ ধর্মীয় স্থাপত্য রক্ষা বিল, ‘বিজেপিই মন্দির ভেঙেছে’, বলছে কংগ্রস

0
56

খাস খবর ডেস্ক: মঙ্গলবার কর্নাটক বিধানসভায় ধর্মীয় স্থাপত্য রক্ষা বিল পেশ করল শাসকদল বিজেপি৷ যা নিয়ে কিনা তুলকালাম রাজ্যজুড়ে। মূলত পাবলিক প্লেসে বিভিন্ন ধর্মীয় স্থাপত্যর রক্ষণাবেক্ষণ নিয়েই এই বিল পেশ করেছে বাসবরাজ বোম্মাইয়ের সরকার। যা নিয়ে আলোচনার প্রয়োজন রয়েছে বলে মনে করছে কংগ্রেস। তাঁদের অভিযোগ, বিজেপিই মন্দির ভেঙেছে, আর এখন তারাই ভোটব্যাঙ্কের কথা ভেবে আইন আনতে চাইছে৷

আরও পড়ুন,  ত্রিপুরায় পুলিশি জেরার মাঝেই বমি, গুরুতর অসুস্থ কুণাল ঘোষ

আজই বিধানসভায় এই বিল পেশ করে সেখানের শাসকদল বিজেপি। রাজ্যের রাজস্ব মন্ত্রী আর অশোক বলেন, ‘আমরা এই বিল আনতে চাইছি। কারণ আমরা মন্দির সহ অন্যান্য সমস্ত ধর্মীয় স্থাপত্য রক্ষা করতে চাই।’ একই সুর শোনা যায় বিজেপির জাতীয় সম্পাদক সিটি রবির মুখেও৷ তিনি এই প্রসঙ্গে বলেন, ‘আমরা কর্নাটক সরকারের এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানাই। এই বিল আগে আনা হলে বহু সমস্যা এড়ানো সম্ভব হত৷ এই ইস্যুতে কংগ্রেস বৃথাই নাটক করছে।’

সরকারি হিসেব বলছে, সেই রাজ্যে প্রায় ৬৩০০টি অবৈধ ধর্মীয় স্থান রয়েছে যা একেবারে অনুমতি ছাড়াই গড়ে উঠেছে। সম্প্রতি তেমনই এক মন্দির ভাঙা নিয়ে বিতর্কে জড়িয়েছে বিজেপি। প্রবল হিন্দুত্ববাদের জিগির তোলা বিজেপি যে ঘটনায় অল্প হলেও ব্যাকফুটে বলা চলে। আর এই ইস্যুতেই আক্রমণ শানাচ্ছে কংগ্রেস।

আরও পড়ুন, ‘গোয়ার সমস্ত চাকরিতে ভূমিপুত্রদের জন্য ৮০ শতাংশ সংরক্ষণ’, বড় প্রতিশ্রুতি আপের

কর্নাটকের কংগ্রেস নেতা এনএ হ্যারিস বলেন, ‘ওরাই মন্দির ভেঙেছে৷ আর এখন ওরা বলছে, মন্দির রক্ষা করবে। মানুষকে বোকা বানাচ্ছে বিজেপি। কোনও ধর্মীয় স্থাপত্যে হাত দেওয়া উচিত নয় ওদের। শুধুমাত্র ভোটব্যাঙ্কের জন্য এই কাজ করা হচ্ছে। সবকিছুকে আইনসিদ্ধ বানানো যায় না। এই বিষয়ে আরও আলোচনা হওয়া উচিত।’