কনভয়ের যাওয়ায় পথে আটকে মৃত্যু মহিলার, দুঃখপ্রকাশ রাষ্ট্রপতির

0
19

কানপুর: দেশের রাষ্ট্রপতি বলে কথা তাঁর সুরক্ষা থাকবে না এটা তো হতেই পারে না। রাষ্ট্রপতির কনভয় যাবে ঠিক এই কারণে সুরক্ষার কারণে রাস্তা বন্ধ রেখেছিল পুলিশ। রাস্তা বন্ধ রাখার খেসারত জীবন দিয়ে দিতে হল এক মহিলাকে। কানপুরে শুক্রবার রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ নিজের গ্রামের বাড়িতে যাওয়ার দিনে এই ঘটনাটি ঘটেছে। এই দুঃখজনক ঘটনার অভিযোগ পেয়েই মৃতার মৃতের পরিবারের কাছে দুঃখপ্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি।

রাষ্ট্রপতি যে পথ দিয়ে যাচ্ছিলেন সেই পথে দিয়ে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল কানপুরের ইন্ডিয়ান অ্যাসোসিয়েশন অফ ইন্ডাস্ট্রিজ-এর মহিলা শাখার প্রধান বন্দনা মিশ্রকে। শুক্রবার রাতে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় বন্দনা মিশ্রকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময়ে রাষ্ট্রপতির জন্য পুলিশ রাস্তা আটকালে সেখানেই জ্যামে আটকে পড়ে তাঁর গাড়ি। রাস্তা ফাঁকা করে যেতে যেতেই রাস্তাতে ৫০ বছর বয়সি ওই মহিলার মৃত্যু হয় বলে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার পর জানান চিকিৎসকরা। ঘটনাটি শুনেই অনিচ্ছাকৃত ঘটনার জন্য পরিবারের কাছে ও কানপুর পুলিশের প্রধানকে ফোন করে নিজে দুঃখপ্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ।

আরও পড়ুন- সীমান্তে সুরক্ষা খতিয়ে দেখতে তিন দিনের সফরে লাদাখ যাচ্ছেন প্রতিরক্ষা মন্ত্রী

রাষ্ট্রপতির দুঃখপ্রকাশের কথা ট্যুইট করে জানিয়েছে কানপুর পুলিশের কমিশনার। তিনি ট্যুইট করে লিখেছেন, “মাননীয় রাষ্ট্রপতি পুলিশ কমিশনার এবং জেলাশাসককে ফোন করে ঘটনার সম্পর্কে খোঁজখবর নিয়েছেন৷ এই ঘটনায় তিনি খুবই বিচলিত৷ শোকস্তব্ধ ওই পরিবারকে তাঁর সমবেদনা জ্ঞাপন করার জন্যও পুলিশ প্রশাসনের কর্তাদের বলেন রাষ্ট্রপতি।” এই মর্মান্তিক ঘটনার কথা শিকার করেছেন কানপুরের পুলিশ কমিশনার অসীম অরুণ। তিনিও সমবেদনা প্রকাশ করে ট্যুইট করেছেন।

পুলিশের এই গাফিলতির ঘটনা নিয়ে শুরু হয়ে যায় সমালোচনা। কানপুরের পুলিশ কমিশনার নিজেদের ভুলের কথা শিকার করে ট্যুইট করে লিখেছেন, ‘কানপুর পুলিশ এবং আমার তরফ থেকে বন্দনা মিশ্রর মৃত্যুতে অন্তর থেকে দুঃখপ্রকাশ করছি৷ এই ঘটনা আমদের ভবিষ্যতের জন্য শিক্ষা দিল৷ এর পর থেকে আমরা এমন ভাবেই যান নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা করব যাতে নাগরিকদের ন্যূনতম সময় অপেক্ষা করতে হয়৷ এই ঘটনার পুনরাবৃত্তি আর হবে না৷’