‘ভারত দেখতে অনেকটা শ্রীলঙ্কার মতো’ দেশের অর্থনীতির গ্রাফ শেয়ার করে মোদী সরকারকে খোঁচা রাহুলের

0
41
rahul gandhi

নয়াদিল্লি: পাঁচ রাজ্যের নির্বাচনে কংগ্রেসের পরাজয়ের পর থেকেই চাপে রয়েছে সনিয়া বাহিনী। তবে কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরধিতা থেকে এক ইঞ্চি জমি ছাড়তে নারাজ শতাব্দীর প্রাচীন দল। দলের ভুল-ত্রুটি সমাধান করে ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখেই ময়দানে নামাতে চাইছে দলটি। সেই কারণেই জট সময় এগিয়ে আসছে ততই বাড়ছে গেরুয়া শিবিরের উপরে আক্রমণের তীব্রতা। দেশের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে প্রতিদিনই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও মোদী সরকারকে আক্রমণের ফলায় বিদ্ধ করেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। এদিন ফের একবার সেই একই ভাবে দেখা গেল। এবার শ্রীলঙ্কার সঙ্গেই ভারতের অর্থনৈতিক অবস্থার তুলনা করতে দেখা গেল।

প্রাক্তন কংগ্রেস প্রধান বুধবার দেশের অর্থনৈতিক অবস্থার সমালোচনা করে একটি টুইটে সঙ্কটে ডুবে থাকা শ্রীলঙ্কার সঙ্গে ভারতের তুলনা করেছেন। শেয়ার করেছেন একটি গ্রাফ যেখানে বেকারত্ব, জ্বালানির দাম এবং সাম্প্রদায়িক সহিংসতার ক্ষেত্রে দুই দেশের গ্রাফকে একই রকম ভাবে দেখা গেছে। ওয়ানাডের সাংসদ টুইটে লিখেছেন, “মানুষকে বিভ্রান্ত করা ঘটনাগুলিকে পরিবর্তন করবে না। ভারত দেখতে অনেকটা শ্রীলঙ্কার মতো।” কংগ্রেস নেতা পোস্ট করেছেন, ছয়টি গ্রাফিক্সের একটি সেট। যেখানে ভারত ও শ্রীলঙ্কার তিনটি করে বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে। রাহুলের শেয়ার করা একটি গ্রাফে দেখা গিয়েছে ২০১৭ থেকে উভয় দেশে বেকারত্ব বেড়েছে, যা ২০২০ সালের দিকে শীর্ষে রয়েছে। গ্রাফের দ্বিতীয়টি জোড়াতে ভারত এবং শ্রীলঙ্কায় পেট্রোলের দামের তুলনা করে দেখানো হয়েছে ২০১৭ সাল থেকে ২০২১ পর্যন্ত বেড়েছে। আর তৃতীয় গ্রাফে দেখানো হয়েছে উভয় দেশে ২০২০-২১ সালে সাম্প্রদায়িক সহিংসতা দুই দেশে তীব্রভাবে বেড়েছে।

আরও পড়ুন- নিজাম প্যালেসে ‘পরীক্ষার্থী’ পার্থ, জেরা করতে তৈরি সিবিআই

প্রসঙ্গত, স্বাধীনতার পর থেকে ভারতের প্রতিবেশি দেশ শ্রীলঙ্কা তীব্র অর্থনৈতিক সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। পরিস্থিতই অত্যন্ত জটিল। পদত্যাগ করেছেন দেশের প্রধানমন্ত্রী। ভারতের পক্ষ থেকে করা হয়েছে একাধিকভাবে সাহায্য । তবে ভারত সাহায্য করলেও মোদী সরকারকে আক্রমণ করতে ছাড়ছে না বিরোধীরা। শ্রীলঙ্কার এই শোচনীয় অবস্থার পর থেকেই বিরোধীরা ভারতের পরিস্থিতি নিয়ে তুলনা করেছে। এমনকি ভারতের অবস্থা যাতে প্রতিবেশী দেশের মত না হয় সেই কারণে এখন থেকেই মোদী সরকারকে সতর্ক হওয়ার পরামর্শ দিয়েছে।