‘চলচ্চিত্র নিয়ে কথা বলা তাঁর জন্য বেশি গুরুত্বপূর্ণ’ কাশ্মীরি পণ্ডিত হত্যাকাণ্ডে মোদীর নীরবতা নিয়ে খোঁচা রাহুলের

0
30

নয়াদিল্লি: জম্মু-কাশ্মীরে নতুন করে কাশ্মীরী পণ্ডিতদের মধ্যে ছড়িয়েছে আতঙ্ক। কয়েকদিন আগেই এক সংখ্যালখু কাশ্মীরী পণ্ডিতের মৃত্যু ঘিরে উত্তাল হয়ে রয়েছে উপত্যকা। কাশ্মীরে পন্ডিতদের সুরক্ষা নিশ্চিত করার দাবি তুলেছে কেন্দ্রের কাছে। এই প্রসঙ্গে সকলকে মুখ খুলতে দেখা গেলেও একটি বাক্যও উচ্চারণ করেননি প্রধানমন্ত্রী। নরেন্দ্র মোদীর নীরবতা নিয়েই এবার সরব হয়েছেন কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধী। “কাশ্মীরি পণ্ডিতদের গণহত্যা” নিয়ে নির্মিত ছবি ‘দ্য কাশ্মীর ফাইলস’-এর প্রসঙ্গ টেনে প্রধানমন্ত্রীকে দিয়েছেন খোঁচা।

কংগ্রেস নেতা শনিবার জম্মু ও কাশ্মীরে একজন কাশ্মীরি পন্ডিত যিনি সরকারি কর্মী ছিলেন তার হত্যার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর নীরবতা নিয়ে আক্রমণ করেছেন। ক্ষোভ উগড়ে বলেছেন, “কাশ্মীরি পণ্ডিতদের গণহত্যা” নিয়ে কথা বলার চেয়ে একটি চলচ্চিত্র সম্পর্কে কথা বলা তাঁর কাছে বেশি গুরুত্বপূর্ণ। প্রাক্তন কংগ্রেস প্রধান অভিযোগ করেছেন যে বিজেপির নীতির কারণে আজ কাশ্মীরে সন্ত্রাস চরমে উঠেছে। টুইটারে নিহত সরকারি কর্মকর্তার স্ত্রীর একটি ভিডিও শেয়ার করে রাহুল গান্ধী প্রধানমন্ত্রীকে নিরাপত্তার দায়িত্ব নিতে এবং কাশ্মীরে শান্তি ফিরিয়ে আনার জন্য আবেদন করেছিলেন। মোদীকে পরামর্শ দিয়ে বলেছেন, “প্রধানমন্ত্রী, নিরাপত্তার দায়িত্ব নিন এবং শান্তি আনতে চেষ্টা করুন।”

রাহুল ভাট, যিনি চাদুরা শহরের তহসিল অফিসের একজন কেরানি ছিলেন। বৃহস্পতিবার মধ্য কাশ্মীরের বুদগাম জেলায় তাঁকে তার অফিসের সামনেই সন্ত্রাসবাদীরা গুলি করে হত্যা করেছে। ২০১০-১১ সালে পরিযায়ীদের জন্য বিশেষ কর্মসংস্থান প্যাকেজের অধীনে তিনি চাকরি পেয়েছিলেন। হত্যাকাণ্ড উপত্যকায় ব্যাপক ক্ষোভের জন্ম দেয় এবং বিরোধী নেতাদের কাছ থেকে তীব্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে। ভাট হত্যার একদিন পর ৩৫০ জনের বেশি সরকারি কর্মচারী, সমস্ত কাশ্মীরি পণ্ডিত, তাদের পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছিলেন। কাশ্মীর ইস্যু নিয়েই এবার প্রধানমন্ত্রী ও কেন্দ্র সরকারের উপর চাপ সৃষ্টি করতে চাইছে বিজেপি বিরোধীরা।