এইভাবেই গুজরাটের মানুষের আস্থা ফেরানো যাবে, নির্বাচনের আগে কংগ্রেসকে পরামর্শ PM Modi-র

0
15

আহমেদাবাদ: প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর আক্রমণের তীরে প্রতিনিয়ত বিদ্ধ হয়ে চলেছে কংগ্রেস। রাহুল গান্ধীর নেতৃত্বে ভারত জোড়ো যাত্রায় নর্মদা বাঁচাও আন্দোলনের কর্মী মেধা পাটকরের অংশগ্রহণ নিয়ে সোমবার ফের একবার প্রধানমন্ত্রীকংগ্রেসকে নিশানা করেছেন। সেই সঙ্গেই কটাক্ষের সুরে জানিয়েছেন জানিয়েছেন কংগ্রেস কিভাবে মানুষের বিশ্বাস ফিরে পেতে পারে।

প্রধানমন্ত্রী এদিন প্রচার মঞ্চ থেকে বলেছেন কংগ্রেস কেবল ‘বিভাজনের রাজনীতি’ কৌশলটি পরিহার করলে তবেই গুজরাটের জনগণের আস্থা ফিরে পেতে পারবে। বিজেপি প্রার্থীদের সমর্থনে ভাবনগর জেলার পালিটানা শহরে একটি নির্বাচনী সমাবেশে ভাষণ দিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, গুজরাটের জনগণ কংগ্রেসকে প্রত্যাখ্যান করেছে কারণ একটি অঞ্চলের বিভিন্ন সম্প্রদায়ের লোকেদের উসকানি দেওয়া দলের নীতির কারণে রাজ্যটি অনেক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। মোদী বলেছেন, গুজরাটের জনগণ কংরেসকে সাহায্য করতে প্রস্তুত নয় কারণ মানুষ “ভারত ভাঙতে চায় এমন উপাদান” সমর্থন করে না। সৌরাষ্ট্রের শুকনো অঞ্চলে নর্মদার জলের নাগাল ব্যাহত করার চেষ্টা করার জন্য কংগ্রেসকে দায়ী করেছেন। তিনি বলেছেন এই নর্মদা প্রকল্প নিয়ে ঘটনার জন্য গুজরাটের জনগণ কংগ্রেসকে কখনই ক্ষমা করবে না যারা ৪০ বছর ধরে সর্দার সরোবর বাঁধ প্রকল্প আটকানোর জন্য দায়ী ব্যক্তির সঙ্গে একসঙ্গে হেঁটেছে।

- Advertisement -

আরও পড়ুন- মইনপুরী লোকসভা কেন্দ্রে জিততে বাবা ‘নেতাজির’ নামে স্ত্রী ডিম্পল যাদবের হয়ে ভোট চাইলেন অখিলেশ

বিরোধী দলকে আরও নিশানা করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, “কংগ্রেসের আদর্শ হল বিভাজন এবং শাসন করা। গুজরাট আলাদা রাজ্য হওয়ার আগে, এটি (কংগ্রেস) গুজরাটি এবং মারাঠিদের একে অপরের বিরুদ্ধে লড়াই করতে বাধ্য করেছিল। পরে, কংগ্রেস বিভিন্ন বর্ণের মানুষকে উস্কানি দিয়েছিল। এবং সম্প্রদায়গুলি একে অপরের বিরুদ্ধে লড়াই করবে। কংগ্রেসের এমন পাপের জন্য গুজরাট অনেক ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে।” প্রধানমন্ত্রীর কথায়, গুজরাটের বুদ্ধিমান মানুষ কংগ্রেসের এই কৌশল বুঝতে পেরেছিল এবং এই ধরনের “বিভাজনকারী শক্তিকে” বাইরের দরজা দেখাতে একত্রিত হয়েছিল। নরেন্দ্র মোদী এদিন আরও বলেছেন, বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর পরিস্থিতি বদলে গিয়েছে। গত ২০ বছর ধরে গুজরাট উন্নয়নের পথে হাঁটছে বলেও জানান তিনি।