স্নান করতে গিয়ে স্ত্রীকে চুমু, বেধড়ক মার স্বামীকে

0
49

খাস ডেস্ক : স্ত্রীকে চুমু খেয়ে বিপাকে স্বামী। জনরোষের মুখে স্বামী। চুমুর অপরাধে  ক্ষেপে উঠল জনতা। নিজের স্ত্রীকে চুমু খেয়েই বেধড়ক মারধরের সম্মুখীন স্বামী। স্নান করছিলেন দুজনে। সেই মূহুর্তেই এমন অপ্রীতিকর ঘটনার সম্মুখীন হতে হল যুগলকে। ঘটনাটি এখন ভাইরাল নেটদুনিয়ায়।

সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া এই ঘটনা এখন বহুল চর্চিত। অযোধ্যার সরয়ূ নদীতে স্নান করছিলেন স্বামী ও স্ত্রী। সেখানে স্নানের সময়েই স্ত্রীকে চুমু খান স্বামী। তারপরেই ক্ষিপ্ত জনগণ তাঁদের ওপর চরাও হয়। ভিডিওটিতে দেখা গিয়েছে, স্বামী ও স্ত্রী দুজনে স্নান করছিলেন, জলের স্রোতের কারনে বারবার ভারসাম্য হারিয়ে ফেলছেন স্ত্রী। ভারসাম্য বজায় রাখতেই স্বামীকে চেপে ধরছেন। স্বামীও তাকে আগলে রয়েছেন। এরকম অবস্থাতেই স্ত্রীকে আঁকড়ে ধরে স্নান করছেন দুজনে। এই মুহুর্তেই স্ত্রীর গালে একটি চুমু খেতে দেখা যায় স্বামীকে।

এরপরেই পবিতের নদীতে স্নান করতে আসা অন্যান্য মানুষজন তাঁদের দিকে এগিয়ে আসে। এরপরেই কোনও কথাবার্তা নয়, সোজা জল থেকে তুলে আনা হয় স্বামীকে। প্রথমে এক ব্যক্তি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলে, অযোধ্যায় এসব অসভ্যতামি চলবে না। তারপরেই আক্রমণ শুরু করে তারা। স্ত্রী বারবার চেষ্টা করেন থামানোর কিন্তু বেশ কয়েকজনের ভিড়ে তিনিও কিছু করতে পারছিলেন না। লাথি, ঘুষি, চড় মারতে শুরু করে তাঁকে। স্ত্রী প্রাণপনে জনতার রোষ থেকে বাচানোর চেষতা করতে থাকেন কিন্তু কিছুতেই স্বামীকে বাঁচাতে পারেন না।

এই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় এখন ভাইরাল। নেটিজেনরা এই ভিডিও দেখামাত্রোই প্রশ্ন তুলেছেন, স্ত্রীকে চুমু খাওয়া অপরাধ কিনা? স্ত্রীকে চুমু খেয়েছে বলে মারধর করা হবে? একে অপরাধ কেন বলা হচ্ছে? এই ঘটনার ভিডিও ভাইরাল হতেই পুলিশের কাছে পৌঁছয়। পুলিশ অপরাধীদের শনাক্ত করা শুরু করেছে বলে জানা গিয়েছে। এই ভিডিওর পরিপ্রেক্ষিতে তদন্ত চালাচ্ছে পুলিশ। অযোধ্যার কোতোয়ালি থানার পুলিশ এই ঘটনার তদন্ত শুর করেছে বলেও টুইট করে জানানো হয়েছে অযোধ্যা পুলিশের পক্ষ থেকে। পাশাপাশি এর বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলেও জানানো হয়েছে।