মন্ত্রী বাছাই করবেন নীতিশ কুমার নিজে, উপ মুখ্যমন্ত্রী হবেন তেজস্বী যাদব, বলছে সূত্র

0
50

পাটনা: যাবতীয় জল্পনার অবসান ঘটেছে। বিহাররে মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে ইস্তফা দিয়েছেন নিতিশ কুমার। আজ ঠিক বিকেল ৪ টে নাগাদ রাজভবনে গিয়ে রাজ্যপালের কাছে গিয়ে পদত্যাগ পত্র জমা দিয়েছেন। সেই সঙ্গেই বিহারে বিজেপির সঙ্গে করেছেন সম্পর্ক ছেদ। জেডিইউ প্রধান রাজ্যপালকে জানিয়েছেন কংগ্রেস ও আরজেডির সঙ্গে জোট সরকার গড়ার কথা। এর পরেই যা নিয়ে চর্চা শুরু হয়েছে তা হল বিহারের নতুন সরকার ও মন্ত্রী নিয়ে। সূত্রের খবর মন্ত্রী বাছাই করবেন নীতিশ কুমার নিজেই। উপ মুখ্যমন্ত্রী কে হবেন সেটাও জানা গিয়েছে সূত্র মারফত।

এবার মহাগঠবন্ধন ২.০ শুরু হবে যেখানে নীতিশ কুমার এবং রাষ্ট্রীয় জনতা দলের মধ্যে প্রথম জোট তৈরি হবে। এই খবর মিলেছে লালু প্রসাদ যাদবের দলের সূত্রে। আজ বেলাতেই “লালুকে ছাড়া বিহার চলতে পারে না বলে” টুইট করেছিলেন লালু প্রসাদ যাদবের কন্যা রোহিণী আচারিবর্তনর্য। তারপরেই বিহাররে রাজনীতিতে বড় পরিবর্তন ঘটেছে। সূত্র জানিয়েছে নীতিশ কুমারের নতুন সরকারের নতুন মন্ত্রীসভায় উপ-মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে থাকবেন আরজেডি নেতা তেজস্বী যাদব এবং তাঁর বড় ভাই তেজ প্রতাপ যাদব মন্ত্রিসভায় থাকবেন। রাজনৈতিক মহল বলছে কোনও বড় লড়াই নয় বরং রক্তপাতহীন যুদ্ধের মধ্যে দিয়েই রাজ্যে বিজেপির সঙ্গে সম্পর্ক ছেদ করেছেন। ইস্তফা দিয়ে নীতিশ কুমার বলেছেন, “সব নেতাদের সমর্থন নিয়েই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সকলেরই এনডিএ ছাড়ার ইচ্ছা ছিল।”

- Advertisement -

আরও পড়ুন- “লালু ছাড়া বিহার চলতে পারে না”, টুইট কন্যা রোহিণীর

উল্লেখ্য, গত কয়েক মাস ধরেই নীতিশ কুমাররে সঙ্গে বিজেপির দূরত্ব বাড়ছিল। এমনকি বেশ কয়েকবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠকও এড়িয়ে গিয়েছেন। বিজেপি ছেড়ে আরজেডি-র হাত ধরার যাত্রাটি স্পষ্টতই মে মাসে শুরু হয়েছিল। যখন নীতীশ কুমার একটি ইফতার পার্টির জন্য তেজস্বী যাদবের বাড়িতে গিয়েছিলেন। তবে তারপরেই বিজেপির পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছিল জেডিইউর সঙ্গে সবকিছু ঠিক রয়েছে। এমনকি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ বলেছিলেম ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচন ও ২০২৫ সালের বিহাররে বিধানসভা নির্বাচন বিজেপি ও জেডিইউ একসঙ্গে লড়বে। কিন্তু কথা আর বাস্তবে পরিণতি পেল না নীতিশ কুমারের আজকের এই সিদ্ধান্তের জন্য।