ভারতে কি প্রবেশ করল ভয়ঙ্কর মাঙ্কিপক্স, আইসোলেশন ওয়ার্ড প্রস্তুত রাখার নির্দেশ মুম্বাই নাগরিক সংস্থার

0
41

মুম্বই: করোনার ধাক্কা কাটিয়ে উঠতে না উঠতেই নতুন আতঙ্ক নিয়ে হাজির হয়েছে মাঙ্কিপক্স (Monkeypox Virus)। ইউরোপ সহ ১২টি দেশে ছড়িয়েছে সংক্রমণ। নতুন এই ভাইরাস নিয়ে সতর্ক করেছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থাও(WHO)। তাতেই চিন্তা বেড়েছে ভারতের। করোনার মত লাগামছাড়া গতিতে যাতে এই সংক্রমণ বৃদ্ধি পেতে না পারে তারই আগাম ব্যবস্থা হিসাবে মুম্বাই নাগরিক সংস্থা সন্দেহভাজন রোগীদের বিচ্ছিন্ন করার জন্য আইসোলেশন ওয়ার্ড তৈরি করেছে এখন থেকেই।

কিছু দেশ থেকে রিপোর্ট করা মাঙ্কিপক্স মামলার পরিপ্রেক্ষিতে মুম্বইয়ে কস্তুরবা হাসপাতালে ২৮ শয্যার ওয়ার্ড প্রস্তুত রাখা হয়েছে বলেই সোমবার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন। বৃহত মুম্বই মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনের (BMC) জনস্বাস্থ্য বিভাগের একজন আধিকারিক জানিয়েছেন, আজ পর্যন্ত, শহরে মাঙ্কিপক্সের কোনও সন্দেহভাজন বা নিশ্চিত মামলার কোনও রিপোর্ট পাওয়া যায়নি। ভাইরাল জুনোটিক রোগ সম্পর্কে জারি করা একটি পরামর্শে, বিএমসি বলেছে যে বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ প্রাদুর্ভাবের কোথা বিচার করেই স্থানীয় এবং অ-স্থানীয় দেশগুলি থেকে আগত যাত্রীদের স্ক্রীনিং করছে।

আরও পড়ুন- নারী সুরক্ষায় জোর দিতে মহিলা কনস্টেবল নিয়োগের সিদ্ধান্ত রাজ্যের

নাগরিক সংস্থার পরামর্শে বলা হয়েছে, “সন্দেহজনক কেসগুলিকে আইসোলেট করার জন্য, কস্তুরবা হাসপাতালে একটি পৃথক ওয়ার্ড (২৮ শয্যা) প্রস্তুত করা হয়েছে এবং তাদের নমুনাগুলি পুনে-ভিত্তিক ন্যাশনাল ইনস্টিটিউট অফ ভাইরোলজিতে (এনআইভি) পরীক্ষার জন্য পাঠানো হবে।” মুম্বইয়ের সমস্ত স্বাস্থ্য সুবিধাগুলিকে অবহিত করা হয়েছে যে কোনও সন্দেহভাজন মাঙ্কিপক্স কেস কস্তুরবা হাসপাতালে পাঠানোর জন্য।

আরও পড়ুন- বিচারকদের আক্রমণ করা বর্তমানে ফ্যাশানে পরিণত হয়েছে, উদ্বেগ প্রকাশ সুপ্রিম কোর্টের

উল্লেখ্য, বেলজিয়াম, ফ্রান্স, জার্মানি, ইতালি, ব্রিটেন, নেদারল‌্যান্ড, পর্তুগাল, স্পেন, সুইডেন সহ বেশ কয়েকটি দেখে মাঙ্কিপক্সের বাড়বাড়ন্তের কারণে কেন্দ্রীয় সরকার বিদেশ থেকে ভারতে ঢোকার স্থল, জল আকাশ তিন থেই কড়া স্বাস্থ‌্যপরীক্ষার নির্দেশ দিয়েছে। অন্যদিকে যৌন সঙ্গমের সময় এই ইনফেকশন সবচেয়ে দ্রুত ছড়াচ্ছে বলেই দাবি করেছেন বিশেষজ্ঞরা। বর্তমানে বিশ্বে এই মাঙ্কিপক্সই(Monkeypox Virus) নতুন আতঙ্কের জন্ম দিয়েছে। তবে ভারতে যাতে কোনও ভাবেই এই ভাইরাস প্রপভাব বিস্তার করতে না পারে তার জন্য আগাম যাবতীয় সতর্কতা অবলম্বন করছে ভারত সরকার।