ধারা ৩৭০ প্রত্যাহারের পর উল্লেখযোগ্যভাবে জঙ্গিসংখ্যা কমেছে ভূস্বর্গে: তথ্য

0
22
Kashmir

নয়াদিল্লি: স্বাধীন ভারতবর্ষের ইতিহাসে এই প্রথম সন্ত্রাসদমনে উল্লেখযোগ্যভাবে সাফল্য এলো ভূস্বর্গে। তথ্য বলছে, চলতি বছরের ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত জম্মু কাশ্মীরে (Kashmir) স্থানীয় সন্ত্রাসবাদীর সংখ্যা কমে ৬০ এ এসে দাঁড়িয়েছে, পাশাপাশি, পাকিস্তানি জঙ্গির সংখ্যা বর্তমানে কমে ৪৭ হয়েছে। জম্মু কাশ্মীর পুলিশ, প্রতিরক্ষা দফতর এবং গত বুধবার শ্রীনগরে অমিত শাহের দেওয়া তথ্য অনুযায়ী ২০১৯ সালে উপত্যকা থেকে ৩৭০ অনুচ্ছেদ তুলে নেওয়ার পর সন্ত্রাসবাদীর সংখ্যা উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পেয়েছে।

কাউন্টার-টেররের তথ্য বলছে, ২০১৮ সালে যেখানে সন্ত্রাসবাদী হামলার সংখ্যা ছিল ৪১৭, ২০২২ এর সেপ্টেম্বরে তা কমে দাঁড়িয়েছে মাত্র ৯০। নিরাপত্তাবাহিনীর হাতে গত ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত জঙ্গি খতমের সংখ্যা ১৬৭। যার মধ্যে ১২০ জন স্থানীয় এবং ৪৭ জন বিদেশি জঙ্গি ছিল বলে জানা হয়েছে। যদিও, যাঁদের স্থানীয় জঙ্গি বলে চিহ্নিত করা হয়েছে, তাঁরা জম্মু কাশ্মীরের ভারতীয় অংশে বসবাসকারী হলেও পাক-জঙ্গি গোষ্ঠীর মদতপুষ্ট।

- Advertisement -

লাহোর, বাহাওয়ালপুর এবং খাইবার পাখতুনখোয়ার জঙ্গি গোষ্ঠীরা এসের সন্ত্রাস ছড়ানোর অস্ত্র এবং প্রশিক্ষণ দেয়। অন্যদিকে, ২০২১ এবং ২০২২ সালে আটক হওয়া জঙ্গির সংখ্যা প্রায় ১২৮, বলছে তথ্য। উল্লেখ্য, মোগল বাদশা জাহাঙ্গীর কাশ্মীর সম্পর্কে বলেছিলেন, “পৃথিবীর কোথাও স্বর্গ থাকলে তা এখানেই আছে, এখানেই আছে, এখানেই আছে”।

আরও পড়ুন- এরপরও বারবার পরীক্ষায় বসতে হবে সঞ্জু স্যামসনকে

দেশভাগের পর থেকে গুলি-বোমায় ছিন্নভিন্ন করা হয়েছে ভূস্বর্গের বুক। জঙ্গি হামলার আতঙ্কে একদা বিচ্ছিন্ন দ্বীপে পরিণত হয়েছিল ভারতের এই মাথার মুকুট। কিন্তু ধীরে ধীরে হয়ত সময় বদলাচ্ছে। কোনও একদিন নিশ্চয়ই আসবে যখন নিশ্চিন্তে ঘুমোতে যাবেন উপত্যকার প্রত্যেক বাসিন্দা। কাশ্মীর (Kashmir) মানে আর আতঙ্ক নয়, বরং পাহারঘেরা স্বর্গের ছবি মাথায় আসবে। নির্ভয়ে মানুষ ভূস্বর্গের সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারবেন।