সতর্ক করল গয়েন্দারা, ভারত থেকে নতুন সদস্য নেওয়ার ভিডিও প্রকাশ জেহাদি গোষ্ঠী IS-র

0
553
IS

নয়াদিল্লি: সন্ত্রাসবাদ ভারতের মাথাব্যথার বড় কারণ। সেই আশঙ্কা আরও বেড়েছে সদ্য সামনে আসা একটি ভিদিওকে কেন্দ্র করে। ইসলামিক স্টেট (IS) সাম্প্রতিক একটি ভিডিওতে দাবি করেছে যে তারা ভারতে অন্তত তিনটি মডিউল প্রস্তুত করেছে। ভিডিওতে ইসলামিক স্টেটের কর্মীদের তিনটিটি ভিন্ন গ্রুপের সদস্যপদে লোক নিতে দেখা গিয়েছে। চার মিনিটের ভিডিওটি ISHP (ইসলামিক স্টেট হিন্দ প্রদেশ) প্রকাশ করেছে।

ভিডিওটি ২৫ মার্চ দুপুর ১ টায় এনক্রিপ্টেড মেসেজিং প্ল্যাটফর্ম টেলিগ্রামে প্রকাশ করা হয়েছিল। যেখানে দাবি করা হয়েছে যে আইএস যোদ্ধাদের তিনটি ভিন্ন দল আইএস (IS) খলিফার নামে ভারতে জিহাদের প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। সেই যোদ্ধাদের মুখ ঢেকে রাখা হয়েছে এবং তাদের চোখ ঝাপসা করে দেওয়া হয়েছে ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলোকে ফাঁকি দেওয়ার জন্য। ইসলামিক স্টেট ট্র্যাকিং রোধ করতে ভিডিওতে কথা বলার লোকদের আওয়াজও পরিবর্তন করেছে। ভিডিওতে আইএস সন্ত্রাসবাদী আবু তুরাব আল বলেছেন অনেক ছেলে ভারতে ইসলামিক স্টেটে যোগ দিয়েছে।

আরও পড়ুন- প্রধানমন্ত্রী মোদীর উপস্থিতিতেই আগামীকাল গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী হিসাবে শপথ নেবেন ইনিই

উল্লেখ্য এর আগে NIA-র তড়িঘড়ি পদক্ষেপে ভেঙে পড়েছিল এই সন্ত্রাসী সংগঠন। NIA গোয়েন্দা সংস্থাগুলির সঙ্গে হাত মিলিয়ে, গত দু’বছরে ২০ জনেরও বেশি জঙ্গিকে গ্রেফতার করেছে। করেছে, এইভাবে তাদের পরিকল্পনা ব্যর্থ হয়েছে। তবে সাইবার বিশেষজ্ঞরা, যারা ভিডিওটির ফরেনসিক বিশ্লেষণ করেছেন, দাবি করেছেন যে ভিডিওটি কাশ্মীরে শ্যুট করা হয়েছে বলে মনে হচ্ছে তবে ভিডিওটি পাকিস্তান থেকে টেলিগ্রামে প্রকাশ করা হয়েছে। আইএস-এর প্রকাশ করা ভিডিওতে সন্ত্রাসবাদীদের অস্ত্র নিয়ে অনুশীলন করতেও দেখা গিয়েছে। এই ভিডিওতে সবচেয়ে লক্ষণীয় বিষয় হল যে সমস্ত সন্ত্রাসীকে আইএস-এর সদস্যকে দেখা দেখা যাচ্ছে তাদের হাতে ছোট অস্ত্র রয়েছে। যার কারণে গোয়েন্দা সংস্থাগুলি সন্দেহ করছে যে এটি একটি স্থানীয় মডিউল এবং তাদের উদ্দেশ্য টার্গেট কিলিং।

আরও পড়ুন- প্রায় ৩০ লক্ষ টাকা উদ্ধার সীমান্তে, বিএসএফের জালে পাচারকারী

জম্মু ও কাশ্মীরে টার্গেট কিলিং এর পর ভিডিওটি প্রকাশ করা হয়েছে। গত বছর জম্মু ও কাশ্মীরে বসবাসকারী অন্যান্য রাজ্যের লোকজনকে টার্গেট করা হয়েছিল। ওই হত্যাকাণ্ডের পর ইসলামিক স্টেট একটি ভিডিও প্রকাশ করে দায় স্বীকার করেছিল এবং ছোট অস্ত্রের মাধ্যমে সব হত্যাকাণ্ড চালিয়েছিল। এটা সকলেই জানে যে পাকিস্তানের গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই ইসলামিক স্টেটের আড়ালে ভারতে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড চালায়। অতীতে, ইসলামিক স্টেট এবং টিআরএফ-এর মতো নতুন সন্ত্রাসী সংগঠনগুলি কাশ্মীরে সন্ত্রাসী হামলা চালিয়েছিল। ভারতীয় গোয়েন্দা সংস্থাগুলো মনে করছে, পাকিস্তানের আইএসআই এর পেছনে রয়েছে।