খুব দ্রুত অনুমোদন পেতে পারে শিশুদের জন্য ভারতের প্রথম করোনা ভ্যাকসিন

0
24

নয়াদিল্লি: প্রথমের পর করোনার দ্বিতীয় ঢেউ থেকে রক্ষা করা যায়নি ভারতকে। ভয়াবহ আকার নিয়ে দেশে আছড়ে পড়েছিলও করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। কয়েকদিন আগে পর্যন্ত বিশ্ব দেখেছে ভারতে মৃত্যু মিছিল। বর্তমানে অনেকটা সংক্রমণ কমলেও একেবারে শেষ হয়নি করোনা। বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, ভারতে আছড়ে পড়বে করোনার তৃতীয় ঢেউ। এবার এতে শিশুদের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। তাই সকল রাজ্যকেই আগে থেকে সতর্ক করা হচ্ছে। জানা গিয়েছে শিশুদের জন্য ভারতের প্রথম কোভিড ভ্যাকসিনটি শীঘ্রই অনুমোদন পেতে পারে।

ক্লিনিকাল ট্রায়ালগুলি দেশে সফলভাবে শেষ হওয়ার পরে ১২ থেকে ১৮ বছর বয়সের শিশুদের জন্য ভারতের প্রথম করোনার ভ্যাকসিন জাইকোভি-ডি (ZyCoV-D) জরুরী ব্যবহারের অনুমোদনের জন্য ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অফ ইন্ডিয়া (DGCI) কাছে পাঠিয়েছে ফার্মাসিউটিক্যাল সংস্থা জাইডাস ক্যাডিলা। DGCI এর অনুমোদন দেওয়ার পর বহু প্রতীক্ষিত জাইকোভি-ডি (ZyCoV-D) টিকা ৮ থেকে ১০ দিনের শিশুদের দেওয়া হবে বলেই আশা করা হচ্ছে। যদিও সূত্র জানিয়েছে নির্দেশাবলী মেনে আসল ট্রায়াল শেষ হবে ২০২২ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে। তার মধ্যে যদি ডিজিসিআই মাঝপথে জরুরি অনুমোদন দেয় তবে শিশুদের টিকা দেওয়া যেতে পারে।

সূত্রের খবর, শিশু এবং প্রাপ্তবয়স্ক উভয়কেই টিকা দেওয়ার জন্য জরুরি অনুমোদনের দেওয়ার জন্য ড্রাগ কন্ট্রোলার জেনারেল অফ ইন্ডিয়ার কাছে অনুরোধ করা হয়েছে। জীবন রেখা হাসপাতালে জাইকোভি-ডি-এর ক্লিনিকাল ট্রায়ালের নেতৃত্বদানকারী ডাঃ অমিত ভাতে বলেছেন, “এটি একটি তিন-ডোজ ভ্যাকসিন এবং শিশু এবং প্রাপ্তবয়স্কদের প্রথম ডোজের ২৮ দিন পরে দ্বিতীয় ডোজ এবং প্রথম ডোজের পর ৫৬ তম দিনে তৃতীয় ডোজ গ্রহণ করতে হবে।” জীবন রেখা সহ ২০ টি কেন্দ্রের প্রত্যেকটিতে, ১২ থেকে ১৮ বছর বয়সী ২০ জন শিশুর উপর ক্লিনিকাল ট্রায়াল হয়েছে।

উল্লেখ্য, চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যেই ভারতের সকলকে টিকাদান সম্পন্ন করতে চাইছে কেন্দ্র। সেই লক্ষ্যেই ধাপে ধাপে টিকা নেওয়ার বয়স নির্ধারণ করে দেওয়া হচ্ছে। ভারতে অনিবার্য করোনার তৃতীয় ঢেউ এমনটাই জানিয়ে দিয়েছেন এআইআইএমএস প্রধান। আবার বিশেষজ্ঞরা বলছেন করোনার তৃতীয় ঢেউে শিশুদের আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা প্রবল। এই কারণেই শিশুদের ভ্যাকসিন প্রদানের ক্ষেত্রে আরও বেশী করে জোর দেওয়া হচ্ছে।