বাড়ি যেতে পারেনি তো কি, সীমান্তের জওয়ানদের মঙ্গলকামনায় ভাইফোঁটা দিলেন কাশ্মীরি বোনেরা

0
24

শ্রীনগর: দুর্গাপুজো দীপাবলির পর এবার ভাইয়ের মঙ্গল কামনায় ভাইফোঁটার উৎসবে মেতেছে গোটা দেশ। বাংলাই ভাইফোঁটা বললেও গোটা ভারতজুড়ে এই অনুষ্ঠান ভাই দুজ হিসাবেই অধিক পরিচত। যে অনুষ্ঠানে দিদি বা বোন তাঁদের ভাই-দাদাদেড় মঙ্গল কামনায় প্রার্থনা করেন। এই শুভ অনুষ্ঠানে সামিল হয়েছে এলওসিতে থাকা ভারতীয় সেনারা। পরিবাররে থেকেও দূরে থাকেও সীমান্তে অনুষ্ঠানে যোগ দিয়েই নিজেদের আনন্দ খুঁজে নিয়েছেন তাঁরা।

বৃহস্পতিবার সেনাবাহিনীর দুর্গা ব্যাটালিয়নের জওয়ানরা জম্মু ও কাশ্মীরের গুলপুর সেক্টরে লাইন অফ কন্ট্রোলে (LoC) মহিলা এবং মেয়েদের সঙ্গে ভাই দুজের অনুষ্ঠান উদযাপন করেছে। মহিলারা সেনা কর্মীদের কপালে ফোঁটা দেন এবং অন্যান্য আচার-অনুষ্ঠান পালন করেন। একজন সেনা কর্মকর্তা বলেছেন, “আমাদের ব্যাটালিয়ন এখানে এলওসি-তে পোস্ট করা হয়েছে এবং আজ ভাই দুজ উৎসব। আমাদের বোনেরা বাড়িতে আছে এবং আমরা তাদের সাথে দেখা করতে পারি না কিন্তু এখানে পুঞ্চের বোনেরা আমাদের সঙ্গে উৎসব উদযাপন করেছে।” এলওসি-তে কর্মরত অন্য একজন সেনা কর্মকর্তা বলেছেন যে পুঞ্চ থেকে বোনেরা তাদের সঙ্গে ভাইফোঁটা উদযাপন করতে এসেছিল যাতে সেনারা নিজের বাড়ি থেকে দূরে থেকে তাঁদের নিজের বোনদের মিস না করেন। নিজেদের বোনেরা কাছে নেই তো কি হয়েছে কাশ্মীরের বোনেরাই তাঁদের জওয়ান ভাইদের মঙ্গলকামনায় প্রার্থনা করেছেন।

- Advertisement -

ভারতীয় সেনাদের সঙ্গে ভাইফোঁটা উদযাপন করতে আসা একজন মহিলা বলেছিলেন যে তিনি জওয়ানদের দীর্ঘ এবং সুস্থ জীবন কামনা করেছেন। মহিলা আরও বলেন, “পুঞ্চের সমস্ত মহিলারা এখানে ভারতীয় সেনাদের সঙ্গে সাথে ভাইফোঁটা উদযাপন করতে এসেছেন। আমরা প্রতি বছর আমাদের বাড়িতে ভাই দুজ উদযাপন করি তবে আমরা এখানে ভারতের গর্ব সেই জওয়ানদের ফোঁটা দিতে এসেছি। আমরা তাঁদের দীর্ঘ এবং সুস্থ্ জীবন কামনা করি।” প্রসঙ্গত চলতি বছর উৎসবটি দুই দিন ধরে পালিত হচ্ছে। দেশের কিছু অংশে বুধবার এবং কিছু অংশে বৃহস্পতিবার এই অনুষ্ঠান পালন করা হচ্ছে। তবে যাই হোক যারা সীমান্তে দেশের মানুষের সুরক্ষায় নিজেদের জীবন উৎসর্গ করেছেন তাঁদেড় এই উৎসবে সামিল হওয়ার ঘটনা মন কেড়েছে গোটা দেশবাসীর।