বিশ্বের দীর্ঘতম রিভার ক্রুজে মদ পরিবেশন করার বার আছে,অখিলেশ যাদবে মন্তব্যে শুরু বিতর্ক

0
49
Ganga Vilas

লখনউ: শুক্রবার ১৩ জানুয়ারী ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বারাণসীতে এমভি গঙ্গা বিলাসের যাত্রা শুরু করেছেন। ‘গঙ্গা বিলাস’ (Ganga Vilas) হল বিশ্বের দীর্ঘতম নদী ক্রুজ, যাতে করে সফরের সময় ভারত বাংলাদেশের একাধিক মনোরম জায়গা দেখা যাবে। ভারতের যাত্রা শুরু করা দীর্ঘতম বিলাসবহুল নদী ক্রুজ নিয়ে মানুষের আগ্রহের শেষ নেই। এই ক্রুজে থাকা ব্যবস্থা নিয়েই মন্তব্য করেছেন সমাজবাদী পার্টির প্রধান অখিলেশ যাদব। দাবি করেছেন এমভি গঙ্গা বিলাসে রয়েছে মদ পরিবেশনকারী বার কাউন্টার। এই মন্তব্য বিতর্ক তৈরি করতে পারে বলেই মনে করছেন অনেকেই।

মোদী সরকারকে কটাক্ষ করে সপা প্রধান বলেছেন,  বিজেপির বিদ্যমান জিনিসগুলিকে পুনরায় উদ্বোধন করার ঐতিহ্য রয়েছে। তিনি দাবি করেছেন যে ক্রুজটি ইতিমধ্যে গত ১৭ বছর ধরে পরিষেবা প্রদান করছে। অখিলেশ যাদব সাংবাদিকদের বলেছেন, “এই নদী ক্রুজটি বহু বছর ধরে চলছে, এটি নতুন নয় এবং কেউ আমাকে জানিয়েছে যে এটি গত ১৭ বছর ধরে চলছে। তারা (বিজেপি) এর কিছু অংশ যোগ করেছে এবং বলেছে যে আমরা এটি শুরু করেছি। প্রচার ও মিথ্যাচারে বিজেপি অনেক এগিয়ে। আমি আরও শুনেছি যে পবিত্র গঙ্গা নদীতে ক্রুজ যাত্রা শুধুমাত্র একটি ক্রুজই নয়, এতে মদ পরিবেশন করার বারও রয়েছে।” তবে গঙ্গা বিলাস পরিচালনাকারী অন্তরা লাক্সারি রিভার ক্রুজ-এর প্রতিষ্ঠাতা ও সিইওর মতে, যাত্রার সময় বোর্ডে থাকা যাত্রীদের শুধুমাত্র নিরামিষ ভারতীয় খাবার এবং বিভিন্ন ধরনের নন-অ্যালকোহলযুক্ত পানীয় দেওয়া হবে।

- Advertisement -

আরও পড়ুন- Army Day-তে ভারতীয় সেনাদের বিশেষ কথা উল্লেখ করে শুভেচ্ছা জানালেন PM Modi

উল্লেখ্য, গঙ্গা বিলাস(Ganga Vilas) নিয়ে চর্চার শেষ নেই। এই ক্রুজ বারাণসী থেকে যাত্রা শুরু করেছে এবং ৫২ দিনের মধ্যে প্রায় ৩,২০০ কিমি  পথ ভ্রমণ করে বাংলাদেশ হয়ে আসামের ডিব্রুগড়ে পৌঁছাবে। দুই দেশের ২৭টি নদী প্রণালী পেরিয়ে যাবে। প্রধানমন্ত্রী মোদী বলেছেন যে, গঙ্গা বিলাস আমাদের সাংস্কৃতিক শিকড়ের সঙ্গে সংযোগ স্থাপন করে এবং ভারতের বৈচিত্র্যের সুন্দর দিকগুলি আবিষ্কার করার একটি অনন্য সুযোগ করে দেবে। পিএমও একটি বিবৃতিতে জানিয়েছে এমভি গঙ্গা বিলাসের তিনটি ডেক, ১৮টি স্যুট বোর্ডে ৩৬ জন পর্যটকের ধারণক্ষমতা রয়েছে। সমস্ত বিলাসবহুল সুযোগ সুবিধা রয়েছে৷ প্রথম যাত্রায় সুইজারল্যান্ডের ৩২ জন পর্যটক ভ্রমণের পুরো দৈর্ঘ্যের জন্য বুক করেছেন। বিশ্ব ঐতিহ্যবাহী স্থান, জাতীয় উদ্যান, নদীর ঘাট, বিহারের পাটনা, ঝাড়খণ্ডের সাহেবগঞ্জ, পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা, বাংলাদেশের ঢাকা এবং আসামের গুয়াহাটি-এর মতো বড় শহরগুলি সহ ৫০টি পর্যটনকেন্দ্র ঘুরে দেখা যাবে।