সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণহানি রুখতে গাড়িতে ৬ টি এয়ারব্যাগ বাধ্যতামূলক করছে কেন্দ্র সরকার

0
16

নয়াদিল্লি: দেশে প্রতিদিন বহু গাড়ি দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান একাধিক মানুষ। সম্প্রতি টাটা সন্সের প্রাক্তন চেয়ারম্যান সাইরাস মিস্ত্রির (Cyrus Mistry) গাড়ি দুর্ঘটনায় মৃত্যু সকলকে নাড়িয়ে দিয়েছে। গাড়ির উচ্চ গতিবেগের কারণে দুর্ঘটনাকেই মৃত্যুর কারণ হিসাবে উল্লেখ করা হয়েছে। এমনকি গাড়ি যখন ধাক্কা লাগে তখন সুরক্ষার জন্য এয়ারব্যাগও খোলেনি বলেই জানানো হয়েছে রিপোর্টে। সেই ঘটনার পর থেকেই নড়েচড়ে বসেছে কেন্দ্র সরকার। যাত্রীদের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখেই গাড়িতে ৬ টি এয়ারব্যাগ বাধ্যতামূলক করেছে কেন্দ্র সরকার।

২০২৩ সালের অক্টোবর থেকে যাত্রীবাহী যানবাহনে ন্যূনতম ছয়টি এয়ারব্যাগ বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক মন্ত্রী, নীতিন গড়করি, বৃহস্পতিবার বলেছেন যে মোটর গাড়িতে ভ্রমণকারী সমস্ত যাত্রীদের নিরাপত্তা সর্বাগ্রে অগ্রাধিকার প্রাপ্ত। তাঁর কথায়, “মোটর গাড়িতে ভ্রমণকারী সকল যাত্রীদের নিরাপত্তা তাদের মূল্য এবং রূপ নির্বিশেষে অগ্রাধিকার দেওয়া হয়।” বাইরে বেড়িয়ে কেউ যাতে প্রাণ না হারান সেই কথা মাথায় রেখেই এই সিদ্ধন্ত নেওয়া হয়েছে বলেই উল্লেখ করা হয়েছে। নীতিন গড়করি টুইটে লিখেছেন, “অটো শিল্পের মুখোমুখি হওয়া বিশ্বব্যাপী সরবরাহ শৃঙ্খলের সীমাবদ্ধতা এবং সামষ্টিক অর্থনৈতিক পরিস্থিতিতে এর প্রভাব বিবেচনা করে, ১ অক্টোবর ২০২৩ থেকে প্যাসেঞ্জার কারগুলিতে ন্যূনতম ৬ টি এয়ারব্যাগ বাধ্যতামূলক করার প্রস্তাবটি বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে (M-1 ক্যাটাগরি)। ” যাত্রীদের সুরক্ষা সবার আগে এই কথাই কেন্দ্রের পক্ষ থেকে বারবার উল্লেখ করা হয়েছে।

- Advertisement -

উল্লেখ্য,মুম্বই-আহমেদাবাদ জাতীয় সড়কে টাটা গ্রুপের প্রাক্তন চেয়ারম্যান সাইরাস মিস্ত্রির গাড়ির দুর্ঘটনার পর, বিশেষজ্ঞরা এবং সমালোচকরা পরিবহন এবং ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থায় ত্রুটিগুলি নির্দেশ করেছেন। কারণ  যখন দুর্ঘটনা ঘটেছিল তখন দামি গাড়ি হওয়া সত্বেও গাড়ির এয়ার ব্যাগ খোলেনি এবং সাইরাস মিস্ত্রি এবং তার বন্ধু জাহাঙ্গীর পান্ডোল ঘটনাস্থলেই মারা যান। সেই ঘটনার পরে গাড়ির যাত্রীদের জন্য সিটবেল্ট পরিচালনার আইন নিয়ে জল্পনার মধ্যে কেন্দ্র সরকার সেপ্টেম্বরের শুরুতে একটি গাড়িতে থাকা সমস্ত যাত্রীদের জন্য সিটবেল্ট বাধ্যতামূলক করেছে। কড়া নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যে কেবল সামনের আসনে যারা থাকবেন তাঁরা নয় পিছনের যাত্রীদেরও বাঁধতে হবে সিটবেল্ট।  সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণহানি রুখতে বিশেষ ভাবে তৎপর হয়েছে মোদী সরকার।