অপরাধ গুরুতর, সিবিআই হেফাজতে শহরের প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার

0
200

মুম্বই: বেআইনি ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জ ফোন ট্যাপিং মামলায় সেন্ট্রাল ব্যুরো অফ ইনভেস্টিগেশন তিম অর্থাৎ CBI মুম্বইয়ের প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার সঞ্জয় পান্ডেকে হেফাজতে নিয়েছে। CBI সঞ্জয় পান্ডেকে একটি আদালতে পেশ করা করেছিল। সেই আদলতই প্রাক্তন পুলিশ কমিশনারকে চার দিনের সিবিআই হেফাজতে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছে।

জানিয়ে রাখা ভাল, NSE কো-লোকেশন এবং ফোন ট্যাপিং মামলায় ইডি আগেই মুম্বইয়ের প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার সঞ্জয় পান্ডেকে গ্রেফতার করেছিল। আর্থিক তদন্তকারী সংস্থা একটি মামলা দায়ের করেছে এবং এক্সচেঞ্জের সঙ্গে কাজ করা নির্দিষ্ট ব্যক্তিদের স্নুপিংয়ে জড়িত থাকার অভিযোগে সঞ্জয় পান্ডে, NSE-এর প্রাক্তন প্রধান রবি নারায়ণ এবং চিত্রা রামকৃষ্ণের বিরুদ্ধে তদন্ত শুরু করেছে। জুলাই মাসে ইডি আদালতকে জানিয়েছিল যে, সঞ্জয় পান্ডে ২০০০ সালের এপ্রিল মাসে চাকরি থেকে পদত্যাগ করেছিলেন। ২০০১ থেকে ২০০৬ এর মধ্যে তাঁর চাকরি নিয়ে মামলা হয়েছিল। পরে তিনি ২০০৭ সালে স্বেচ্ছাসেবী অবসর পরিষেবা-এর জন্য আবেদন করেছিলেন, যা তিনি অক্টোবর ২০০৮ সালে প্রত্যাহার করেছিলেন। ইডি আদালতকে জানায় যে সঞ্জয় পান্ডে একটি কোম্পানি গঠন করেছিলেন জার নাম ছিল iSec সিকিউরিটিজ প্রাইভেট লিমিটেড এবং সেটি ২০০১ সালে অন্তর্ভুক্ত করেছিলেন। যখন এই ফার্মটি অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছিল, তখন সঞ্জয় পান্ডে এখনও চাকরিতে ছিলেন। ইডি জানিয়েছে যদিও তিনি কোম্পানির পরিচালক ছিলেন না।

- Advertisement -

আরও পড়ুন- ফের ব্যর্থ বড় চোরাচালান, সীমান্তে বাজেয়াপ্ত প্রায় ১৬৮ কোটি টাকার মাদক

জানান গিয়েছে সঞ্জয় পান্ডে অফিসের মিটিংয়ে অংশ নিয়েছিলেন এবং পরোক্ষভাবে কোম্পানির ক্রিয়াকলাপ নিয়ন্ত্রণ করছিলেন। এমনটাই অভিযোগে জানিয়েছে ইডি। NSE-এর সঙ্গে চুক্তিটি একটি অপরাধমূলক চুক্তি এবং এমটিএনএল ফোন লাইনগুলি ট্যাপ করা হয়েছিল বলেই ইডি আদালতকে জানিয়েছে। এমনকি এই ফোন ট্যাপিং-এর মামলায় আয় ছিল ৪.৫৪ কোটি টাকা। আরও বলা হয়েছে, NSE প্রাক্তন প্রধান চিত্রা রামকৃষ্ণ এবং রবি নারায়ণ NSE কর্মীদের বেআইনিভাবে লুটপাট করার জন্য একটি প্রাইভেট ফার্মে যোগ দিয়েছিলেন বলেও উল্লেখ করা হয়েছে। অভিযোগ করা হয়েছে যে সঞ্জয় পান্ডের সংস্থা iSec পরিষেবাগুলি চুক্তির পরিমাণ হিসাবে প্রায় ৪.৪৫ কোটি টাকা পেয়েছে। সিবিআই সঞ্জয় পান্ডের বাড়ি সহ মুম্বই, পুনে, কোটা, লখনউ এবং দিল্লি-এনসিআর-এ অভিযুক্তদের পরিচিত ১৮ টি জায়গায় তল্লাশি চালিয়েছে।