ক্ষমতায় আট বছর, তবুও বিকল্পহীন মোদী 

0
46

খাস খবর ডেস্ক : বিকল্প শব্দটি রাজনীতি থেকে সমাজ-সংসার সর্বত্রই অপরিহার্য বর্তমানে। সবসময়ই প্রত্যেক বিষয় থেকে ব্যক্তির বিকল্প খোঁজে এই সমাজ। রাজনীতির ক্ষেত্রেও সবসময় বিকল্প ভাবনা, বিকল্প দর্শন, বিকল্প নেতৃত্বের খোঁজ করা হয়। তবে যার বিকল্প থাকে না, তিনি স্বাভাবিকভাবেই এই ইঁদুর দৌড়ের সমাজ ব্যবস্থায় নিজের ক্ষমতা এবং অধিকারের উদযাপন করেন। এই মুহূর্তে ভারতের প্রধানমন্ত্রী যিনি, তিনিও সেই ধরণের একজন রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব, নরেন্দ্র দামোদরদাস মোদী (Narendra Modi)।

আরও পড়ুন : মহকুমা পরিষদ নির্বাচন নিয়ে সমঝোতার ইঙ্গিত দিলেন মহম্মদ সেলিম 

২০১৪ সালের ২৬মে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নেওয়ার পর কেটে গিয়েছে আট বছর, তবুও এখন পর্যন্ত ভারতের রাজনীতিতে তাঁর কোনও বিকল্প মুখ হাজির করতে পারেনি বিরোধী দলগুলি। সাধারণত দ্বিতীয় বার নির্বাচিত হয়ে আসলে পরেই একাধিক সরকারের বিরুদ্ধে জমা হয় প্রতিষ্ঠান বিরোধিতার হাওয়া। তবে মোদী সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিষ্ঠান বিরোধিতা থাকলেও তা কোনওভাবেই হাওয়ায় পরিণত হয়নি বা বলা ভাল দানা বাঁধতে পারেনি। এর কারণ অবশ্য যতটা না মোদীর সাফল্য তাঁর থেকেও বেশি বিরোধীদের ব্যর্থতা। 

পরপর দুটি লোকসভা নির্বাচনে বিরোধী দলের তকমাটুকু না পাওয়া কংগ্রেস এখনও নিজেদেরকে গুছিয়ে উঠতেই পারেনি, মুখ ঠিক করা তো পরের কথা। শতাব্দী প্রাচীন দল এখনও তাঁদের সভাপতি কবে হবেন রাহুল গান্ধী সেই আশাতেই দিন গুনছে, এমনকি প্রিয়াঙ্কা গান্ধী ভাদ্রা উত্তরপ্রদেশ নির্বাচনের পর থেকে রাজনীতির ময়দান থেকে অনেকটাই দূরে। এছাড়াও স্ট্যালিন, মমতা, কেজরিওয়াল প্রত্যেকেই প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে আছেন নিজেদের ভাবনায়, তবে তাঁদের জনপ্রিয়তা নির্দিষ্ট রাজ্যের বাইরে এখনও কতটা পৌঁছেছে তা নিয়ে দেশের রাজনৈতিক মহলে প্রশ্ন রয়েছে। 

আরও পড়ুন : জেলে কোন কাজে নিযুক্ত করা হল সিধুকে, জানা গেল এবার 

নরেন্দ্র মোদীর (Narendra Modi) ক্ষেত্রে বলতে গিয়ে অনেক রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকই একটা বিষয় বলেন, সারা বছর মোদী নির্বাচনের জন্য লড়াই করেন। পাঁচ রাজ্যের ফল বেরোনোর পরের দিন দীর্ঘ প্রচারের পর বিশ্রাম না নিয়েই পরের নির্বাচনমুখী রাজ্য গুজরাটে পৌঁছে গিয়েছিলেন মোদী। তাঁর দলের মধ্যেও তিনি এই মুহূর্তে বিকল্পহীন। বিজেপির অন্দরে মাঝেমাঝেই মোদীর পরবর্তী হিসেবে যোগীর নাম নিয়ে আলোচনা হয়, তবে এখনও মোদীর বিকল্প হয়ে ওঠার জন্য আরও একাধিক অগ্নিপরীক্ষা দিতে হবে অজয় সিং বিস্তকে।

যদি এনডিএ এর কথাও বলতে হয়, তাহলে বর্তমানে এনডিএ শব্দটি শুধুই যেন কিছু লোকের মনে রয়েছে তারা হলেন বিজেপির জোট শরিক। বাকী সবটাই বর্তমানে বিজেপি আর নমো নমো। একমাত্র নীতিশ কুমার বাদ দিয়ে মোদীকে অস্বস্তিতে ফেলার মতো কোনও শরিক নেতাও বর্তমানে নেই ভারতের রাজনীতিতে, নীতিশ কুমারও এমন ভাবে তাঁর নিজের রাজ্যে প্রতিষ্ঠান বিরোধিতার সম্মুখীন হয়েছেন, ফলে তাঁর কাছেও বর্তমানে প্রধানমন্ত্রীকে অস্বস্তিতে ফেলার কথা ভাবা দিবাস্বপ্ন আর প্রধানমন্ত্রী হওয়ার কথা ভাবা সেটা তো আজ অতীত।ভবিষ্যৎ উত্তর দেবে কবে কে হয়ে উঠবেন মোদীর বিকল্প।