28 C
Kolkata
Wednesday, June 16, 2021
Home খাস কলকাতা Breaking News: মমতার ওপর চাপ বাড়াতে রাজ্যপালের সঙ্গে বৈঠক কেন্দ্রীয় দলের

Breaking News: মমতার ওপর চাপ বাড়াতে রাজ্যপালের সঙ্গে বৈঠক কেন্দ্রীয় দলের

কলকাতা: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ওপর চাপ বাড়াতে রাজ্যপালের সঙ্গে বৈঠক করতে শুক্রবার সকালে রাজভবন গেলেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের চার সদস্যের প্রতিনিধি দল। গতকাল রাজ্যে এসেই প্রতিনিধি দলের সদস্যরা নবান্নে যান। প্রায় ১ ঘণ্টা ১৫ মিনিট আলোচনা সারেন রাজ্যের মুখ্যসচিব ও ডিজির সঙ্গে। এই প্রতিনিধি দলের নেতৃত্বে আছেন অতিরিক্ত সচিব স্তরের আধিকারিক। নবান্ন থেকে বেরিয়ে বেলেঘাটা, জগদ্দলের পাশাপাশি দক্ষিণ ২৪ পরগণার একাধিক জায়গায় যান তাঁরা।

- Advertisement -

সূত্রের খবর, রাজ্যপালের সঙ্গে বাংলার আইনশৃঙ্খলা সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে কথা বলবেন প্রতনিধি দলের সদস্যরা। গতকাল সন্ত্রাস কবলিত বিভিন্ন এলাকায় ঘুরে কী চিত্র উঠে এসেছে তা নিয়েও রাজ্যপালের সঙ্গে কথা বলতে পারেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের চার সদস্যের প্রতিনিধি দল। ইতিমধ্যেই রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। ফলে রাজ্যে হিংসার বিষয়ে রাজ্যপাল ও কেন্দ্রীয় দলের মধ্যে বৈঠক খুবই তাৎপর্যপূর্ণ। সাংবিধানিক প্রধান হিসাবে রাজ্যপালের মতও অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

উল্লেখ্য, বুধবারই নির্বাচন পরবর্তী হিংসা নিয়ে রাজ্য প্রশাসনের কাছে কড়া ভাষায় চিঠি লিখেছিল কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। চিঠিতে দ্রুত রিপোর্টও চাওয়া হয়। সেই রিপোর্ট পাওয়ার আগেই গতকাল দুপুরে রাজ্যে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের প্রতিনিধি দল পাঠিয়ে কেন্দ্র। প্রতিনিধি দলের আধিকারিকরা জানিয়েছেন, যে সমস্ত জায়গায় নির্বাচন–পরবর্তী হিংসা হয়েছে সেখানকার বর্তমান পরিস্থিতি সরেজমিনে খতিয়ে দেখার জন্য তাঁরা এসেছেন। এই দল রিপোর্ট দেওয়ার পরই নির্বাচন পরবর্তী হিংসা বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে কেন্দ্র।

- Advertisement -

সদ্য বিধানসভা নির্বাচন শেষ হয়েছে পশ্চিমবঙ্গের পাশাপাশি আরও তিন রাজ্য এবং একটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে। কিন্তু কোথাও কোনও হিংসার ঘটনা ঘটেনি। একমাত্র বাংলাতেই চলছে সন্ত্রাস। বেশ কয়েকজনের প্রাণ গিয়েছে। যা নিয়ে বিজেপির পক্ষ থেকে কাঠগড়ায় তোলা হয়েছে তৃণমূলকে। বিজেপির জেতা রাজ্যগুলিতে হিংসা না হওয়া নিয়েও উঠছে প্রশ্ন।

বিজেপির অভিযোগ, রবিবার থেকে এখনও পর্যন্ত বাংলায় হিংসার ঘটনায় বহু কর্মীর প্রাণ গিয়েছে, বহু জেলা অফিসে আগুনে লাগিয়ে দেওয়া হয়েছে, বহু জায়গায় সাধারণ মানুষের ঘরে হামলা করা হয়েছে। হিংসার তান্ডব এত ভয়াবহ যে এই বিষয়ে রাজ্যপালকেও বক্তব্য দিয়ে হয়েছে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূল সরকারে এই পর্যন্ত বিজেপির ১৪০ জন কর্মীর প্রাণ গিয়েছে কিন্তু প্রশাসন চোখ বুজে আছে।

চার রাজ্য এবং কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল পন্ডিচেরিতে অনুষ্ঠিত হয়েছিল বিধানসভা নির্বাচন। অসম এবং পুডুচেরিতে জয় হাসিল করেছে বিজেপি। ওই সকল রাজ্যের কোথাও কোনও হিংসাত্মক ঘটনা ঘটেনি। কেবলমাত্র বাংলার মাটিতেও দেখা যাচ্ছে হিংসার ছবি। বিজেপি কর্মীদের উপরে হামলা, হত্যা এবং বাড়িতে ভাঙচুর চালানোর অভিযোগ উঠেছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে।

- Advertisement -

বিজেপির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে যে নির্বাচনের ফলাফল আসার ২৪ ঘন্টার মধ্যে বহু কার্যকর্তা খুন হয়েছেন এবং গুরুতর আহত হয়েছেন। তাঁদের বাড়ি এবং দোকান আগুনে জ্বালিয়ে দেওয়া হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূলের হিংসার যে চিত্র সামনে আসছে তা চিন্তাজনক, ভয়ানক এবং দুঃখজনক। ভারতীয় জনতা পার্টি এর নিন্দা করে।

উত্তপ্ত বাংলার হিংসার চিত্র খতিয়ে দেখতে সর্বভারতীয় বিজেপি সভাপতি শ্রী জেপি নাড্ডা মঙ্গলবার রাজ্যে আসেন। দুপুরে কলকাতা পৌঁছে প্রথমেই সোনারপুরে রাজনৈতিক হিংসার বলি বিজেপি কর্মীর বাড়িতে যান তিনি। নিহত হারান অধিকারীর স্ত্রী স্বর্ণলতা অধিকারী সঙ্গে কথা বলেন। মৃতের নাবালক ছেলেকে পাশে থাকার আশ্বাস দেন তিনি। গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে হিংসার প্রতিবাদও করেছেন নাড্ডা।

এরপর সোনারপুরেরই আরও একটি জায়গায় যান। সেখানে দলের এক কর্মী খুন হয়েছেন বলে অভিযোগ। নাড্ডার অভিযোগ, হামলার ঘটনায় আক্রান্তদের কাউকেই এখনও পর্যন্ত গ্রেফতার করা হয়নি। অথচ আক্রান্তরা হামলাকারীদের নাম জানিয়েছেন। রাজ্যে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি ভেঙে পড়েছে। বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি বলেছেন, দলের এক-একজন কর্মীর পাশে রয়েছেন কোটি কোটি দলের কর্মী। তাঁদের আত্মবলিদান বৃথা যাবে না।

উল্লেখ্য, রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা নিয়ে যথেষ্ট উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও৷ ইতিমধ্যেই রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সঙ্গে ফোনে কথা বলেছেন তিনি৷ এদিকে বুধবার মুখ্যমন্ত্রী পদে তৃতীয়বারের জন্য শপথ গ্রহণ করেছেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দায়িত্ব নিয়েই ভোট পরবর্তী হিংসা রোধ করার বার্তা দিয়েছেন তিনি। এতদিন কমিশনের হাতে ছিল আইন-শৃঙ্খলা। এখন তা হাতে নিয়ে কড়া হাতে হিংসা নিয়ন্ত্রণের বার্তা দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

- Advertisement -

সপ্তাহের সবচেয়ে জনপ্রিয় সংবাদ

কলকাতা থেকে দফতর সরাচ্ছে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা, আশঙ্কায় বহু কর্মী

খাস খবর ডেস্ক: কেন্দ্রের অধীনে থাকা রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থার সদর দফতর কলকাতা থেকে সরিয়ে ফেলা হতে পারে অন্য রাজ্যে। যার জেরে কর্মহীন হয়ে পড়তে পারেন...

লাইভে এসে ঘুমের ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করলেন অভিনেতা

অর্পিতা দাস: লাইভে এসে গাইলেন কবীর সুমনের 'হাল ছেড়ো না বন্ধু'। কিন্তু নিজে এই গান গাইলেও জীবনের প্রতি হাল ছেড়ে ১০টা ঘুমের ওষুধ খেয়ে...

শুভেন্দুর ‘কারসাজি’তে মাথা নোয়াতে বাধ্য হলেন মুকুল

সুমন বটব্যাল, কলকাতা: জল্পনা চলছিল বেশ কিছুদিন ধরেই৷ অবশেষে সেই জল্পনার অবসানও হতে চলেছে৷ সবকিছু ঠিক থাকলে জুম্মাবারের বিকেলে বিজেপি ছেড়ে পুরনো ঘরে ফিরতে...

স্বাস্থ্য দফতরে ১০০ শতাংশ অবাঙালি নিয়োগ, ক্ষুব্ধ বাংলাপক্ষ

সৌমেন শীল, কলকাতা: বাংলা নিজের মেয়েকেই চাই। এই স্লোগান দিয়ে একুশের বিধানসভা নির্বাচনে লড়াই করে বিপুল সাফল্য পেয়েছে তৃণমূল। তৃতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় আসার একমাসের...

খবর এই মুহূর্তে

বিশালাকার ময়াল সাপকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য বাঁকুড়ার গ্রামে

বাঁকুড়া: সদ্য বৃষ্টি থেমেছে৷ ধান জমিতে কতখানি জল জমেছে তা দেখতে গিয়েছিলেন এক চাষি৷ জমির পাশেই পুকুর পাড়৷ অন্ধকারে কে যেন সরল মনে হল!...

রানীমা নয় অন্যজনের কাছেই জামাইষষ্ঠীর ভোজ খেলেন মথুরবাবু

কলকাতা: করুণাময়ী রানী রাসমনি ধারাবাহিকে রানীমার সেজো জামাই মথুরাবাবু। রানীমার মতো বাঙালি বহু মা কাকিমার ও প্রিয় জামাই। এতদিন ধারাবাহিকে রানিমার কাছে বহুবার জামাইষষ্ঠী...

মা নেই, গৌরবের জামাইষষ্ঠী পালন করলেন রিধিমার বাবা

অর্পিতা দাস: গতবছর লকডাউনের জন্য ভার্চুয়াল জামাইষষ্ঠী সেরেছিলেন গৌরব চক্রবর্তী এবং রিধিমা ঘোষ, তখন হয়তো ভাবেন নি এই বছর বাড়িতে আসলেও মাকে ছাড়াই জামাইষষ্ঠী...

প্রেম করার অপরাধে মেয়ের গায়ে আগুন লাগিয়ে দিল বাবা-মা

খাস খবর ডেস্ক: মেয়ের বয়স ২০ পার হয়ে গিয়েছে। কথায় আছে মেয়েরা কুড়িতেই বুড়ি। সেই কারণে মেয়ের জন্য পাত্রী খুঁজতে শুরু করেছিল বাবা-মা। সব...