ছিল সেনা ছাউনিতে হামলার পরিকল্পনা, অনুপ্রবেশের সময় আহত পাক জঙ্গির মৃত্যু ভারতের সেনা হাপাতালে

0
28

শ্রীনগর: দু’সপ্তাহ আগে পাকিস্তান সীমান্তে অনুপ্রবেশের চেষ্টার সময় ধরা পড়েছিল এক পাকিস্তানি ফিঁদায়ে জঙ্গি। সেনারগুলিতে আহত হয়ে ভর্তি ছিল শ্রীনগরের হাসপাতালে। পাক জঙ্গিকে বাঁচাতে রক্ত দিয়েছিলেন এক ভারতীয় সেনা। তবে শেষ রক্ষা হয়নি। সেনা হাসপাতালে মৃত্যু হয়েছে ওই পাক জঙ্গির।

জম্মু ও কাশ্মীরের রাজৌরির একটি সামরিক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিল পাক সন্ত্রাসবাদী। তবরাক হুসেন হিসাবে চিহ্নিত জঙ্গি গত মাসে রাজৌরি জেলার নওশেরা সেক্টরে এলওসি দিয়ে অনুপ্রবেশের চেষ্টা করেছিল। যতই সে ভারতের ক্ষতি করতে আসুক না কেন গুরুতর আহত হওয়ার কারণে সন্ত্রাসবাদীর চিকিৎসা নিশ্চিত করা হয়। তখন থেকেই সেনা হাপাতালে চিকিৎসাধিন ছিল সে। তবে শনিবার জীবন যুদ্ধের কাছে হার মেনেছে সে। শনিবার হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে পাকিস্তানি মদতপুষ্ট সন্ত্রাসবাদীর। পাকিস্তান অধিকৃত কাশ্মীরের সবজকোট গ্রামের বাসিন্দা হোসেন ভারতীয় সেনা পোস্টে হামলার পরিকল্পনার কথা স্বীকার করেছিল।

- Advertisement -

আরও পড়ুন- উপমুখ্যমন্ত্রীর দলের নেতাকে প্রকাশ্যে গুলি করে খুন

হাসপাতাল থেকেই আহত জঙ্গি সংবাদমাধ্যমের সামনে জানিয়েছিল তাকে পাকিস্তানি সেনা ভারতে অনুপ্রবেশে সহায়তা করেছিল। তাকে জম্মু ও কাশ্মীরে ফিঁদায়ে সন্ত্রাসী হামলা চালানোর জন্য পাঠানো হয়েছিল । তবারক হুসেন বলেছিল যে, তাকে কর্নেল ইউনুস চৌধুরী নামে পাকিস্তান গোয়েন্দা সংস্থার একজন কর্নেল পাঠিয়েছিলেন। যিনি তাকে পাকিস্তানি মুদ্রায় ৩০ হাজার টাকা দিয়েছিলেন। তবারক আরও প্রকাশ করেছিল যে সে অন্যান্য সন্ত্রাসবাদীদের সঙ্গে ভারতীয় ফরোয়ার্ড পোস্টগুলিতে একাধিকবার ‘রেকি’ করেছে। সন্ত্রাসবাদ নিয়ে ভারত পাকিস্তানকে একাধিকবার হুঁশিয়ারি দিলেও সেই কথা কানে নিতে নারাজ তারা। উল্টে সুযোগ পেলেই চেষ্টা করছে হামলা চালানোর। তবে সীমান্তে ভারতীয় সেনার নজরদারির কারণে অনেকটাই কমেছে জঙ্গি অনুপ্রবেশ।