অঙ্কিতা ভাণ্ডারী খুনের ঘটনায় আরও চাঞ্চল্যকর তথ্য পুলিশের হাতে

0
47
ankita bhandari

হৃষীকেশঃ অঙ্কিতা ভাণ্ডারী (ankita bhandari murder case) খুনের ঘটনায় উঠে আসছে একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। হৃষীকেশের চিলা খাল থেকে উদ্ধার হয় অঙ্কিতা ভাণ্ডারীর দেহ। ১৯ বছরের ওই কিশোরী লক্ষণ ঝুলার কাছে একটি রিসোর্টে কাজ করতেন। এদিন সকালে উত্তরাখণ্ডের মুখ্যমন্ত্রী পুস্কর সিং ধামি অঙ্কিতা খুনের ঘটনায় গভীর শোক প্রকাশ করে টুইট করেন এবং অভিযুক্তদের কঠিন শাস্তির আশ্বাস দেন।

অঙ্কিতা খুনের ঘটনায় ইতিমধ্যে সিট গঠন করা হয়েছে। পুলিশি তদন্তে জানা গেছে কথা কাটাকাটির পরই তরুণী রিসেপশনিস্ট অঙ্কিতাকে খালে ফেলে দিয়েছিলেন অভিযুক্তরা। তার পর খালের ধারে বসেই মোমো দিয়ে মদ্যপান করেন। গত ১৮ সেপ্টেম্বর খুন হন বছর উনিশের তরুণী। পাঁচ দিন নিখোঁজ থাকার পর শুক্রবার হৃষীকেশের চিলা খাল থেকে তাঁর দেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এই ঘটনায় অভিযুক্ত রিসর্ট মালিক তথা বিজেপি নেতা বিনোদ আর্যর ছেলে পুলকিত আর্য এবং তাঁর দুই সঙ্গী সৌরভ ভাস্কর এবং অঙ্কিত গুপ্ত। শুক্রবার তাঁদের গ্রেফতার করা হয়েছে।

- Advertisement -

রিসর্টের নিরাপত্তারক্ষীকে জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ জানতে পেরেছে, গত ১৮ সেপ্টেম্বর খুব বিচলিত দেখাচ্ছিল রিসেপশনিস্ট তরুণীকে (ankita bhandari murder case)। কাঁদতে কাঁদতে ফোন করে এক সহকর্মীকে ব্যাগ দিয়ে যাওয়ার জন্যও বলেছিলেন। তার কিছুক্ষণ পর, রাত ৮টা নাগাদ তরুণীকে নিয়ে পুলকিত, সৌরভ এবং অঙ্কিত হৃষীকেশের উদ্দেশে বেরিয়ে যান। রাত সাড়ে ১০টা থেকে সাড়ে ১১টার মধ্যে ওই তিন জন রিসর্টে ফিরে আসেন। কিন্তু তরুণীকে তাঁদের সঙ্গে দেখতে পাননি বলে পুলিশকে জানিয়েছেন রিসর্টের নিরাপত্তারক্ষী। ওই দিন রিসর্টে তরুণী এবং পুলকিতের মধ্যে একপ্রস্ত কথা কাটাকাটি হয়। দুই সঙ্গীকে পুলকিত বলেন, ‘‘ওকে হৃষীকেশ নিয়ে যাওয়া উচিত। চলো আমরা সেখানে যাই।” তার পর তাঁরা সকলে এক সঙ্গে রিসর্ট থেকে বেরিয়ে যান।চার জনে এক সঙ্গে রিসর্ট ছাড়লেও আলাদা আলাদা গাড়িতে গিয়েছিলেন। হৃষীকেশ ব্যারেজ হয়ে তাঁরা সকলে এমসের কাছে পৌঁছন। এরপর তাঁরা সেখান থেকে চিলা রোডে যান। খালের পাশেই এই রোড। খালের ধারে একটি অন্ধকার জায়গা বেছে নেন পুলকিতরা। পুলিশকে ধৃতরা জানিয়েছেন, খালের ধারে বসেও তরুণীর সঙ্গে আর এক দফা কথা কাটাকাটি হয় পুলকিতের। তবে এ বার পরিস্থিতি আরও উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল। তরুণী পুলকিতকে ধমকি দেন, রিসর্টে তাঁর সঙ্গে যা ঘটেছে, সব বলে দেবেন। তার পরই পুলকিতের ফোন খালে ছুড়ে ফেলে দেন তরুণী। তখন পুলকিতরা মত্ত অবস্থায় ছিলেন। ফোন খালে ফেলে দেওয়ার পরই তরুণীকে মারধর করেন তিন জন মিলে। তার পর খালের জলে ঠেলে ফেলে দেন। তার পর সেখানে বসে অভিযুক্তরা মোমো দিয়ে মদ পান করেন। ডুবে যাওয়ার আগে বার দুয়েক বাঁচানোর জন্য আর্জিও জানিয়েছিলেন। কিন্তু তাঁকে ডুবতে দেখেও গাড়ি নিয়ে সেখান থেকে রিসর্টের উদ্দেশে রওনা দেন পুলকিতরা।জানা গেছে রিসর্টের অতিথিদের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক তৈরি করতে রাজি না হওয়ায় খুন হতে হয় অঙ্কিতাকে। এই ঘটনায় অভিযুক্তের বাবা বিনোদ আর্য ও দাদা অঙ্কিত আর্যকে পার্টি থেকে বরখাস্ত করে বিজেপি।