বড় সুখবর, এই দিনেই প্রধানমন্ত্রী মোদী ভারতে চালু করতে চলেছেন 5G পরিষেবা

0
16

নয়াদিল্লি: প্রযুক্তির উপরেই নির্ভর করেই চলছে গোটা বিশ্ব। সময় যাচ্ছে ততই উন্নত হচ্ছে প্রযুক্তি। এই উন্নয়নের দৃষ্টান্ত হল 5G পরিষেবা। ভারতে 5G পরিষেবা চালুর কথা তথ্য প্রযুক্তিমন্ত্রক আগেই জানিয়েছিল। সেই শুভক্ষণি এসে গিয়েছে। কেন্দ্র সরকারের ন্যাশান্যাল ব্রডব্যান্ড মিশন এই সুখবর দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর হাত ধরেই এই পরিষেবা ভারতে চালু হতে চলেছে।

কেন্দ্র সরকারের ন্যাশান্যাল ব্রডব্যান্ড মিশন আজ টুইট করে জানিয়েছে আগামী ১ অক্টোবর অর্থাৎ দুর্গাপুজোর শুরুর দিনেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী একটি ইভেন্টে ভারতে 5G পরিষেবা চালু করবেন। টুইটে লেখা হয়েছে, “ভারতের ডিজিটাল রূপান্তর এবং সংযোগকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যেতে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিী ভারতে 5G পরিষেবা চালু করবেন।” মোদী সরকার স্বল্প সময়ের মধ্যে দেশে 5G টেলিকম পরিষেবার ৮০ শতাংশ কভারেজের লক্ষ্য মাত্রা দিয়েছে বলেই কেন্দ্রীয় যোগাযোগ, ইলেকট্রনিক্স এবং তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব গত সপ্তাহে জানিয়েছিলেন। জানা গিয়েছে জানা গিয়েছে, প্রথম ধাপে 5G পরিষেবা মিলবে কলকাতা, আমদাবাদ, বেঙ্গালুরু, চণ্ডীগড়, চেন্নাই, দিল্লি, গাঁধীনগর, গুরুগ্রাম, হায়দরাবাদ, জামনগর, লখনউ, মুম্বই, পুণেতে। এখন অপেক্ষা শুধু চালু হওয়ার। একটি রিপোর্টে উল্লেখ করা হয়েছে যে, ২০৩০ সালের মধ্যে ভারতে মোট সংযোগের এক তৃতীয়াংশেরও বেশি 5G হবে অন্যদিকে 2G এবং 3G-এর শেয়ার ১০ শতাংশেরও কম হবে।

- Advertisement -

আরও পড়ুন-প্রধানমন্ত্রী মোদীর উপর হামলা চালাতে প্রশিক্ষণ শিবির তৈরি করেছিল PFI, চাঞ্চল্যকর তথ্য পেশ ইডির

গত বুধবার জাতীয় রাজধানীতে একটি শিল্প ইভেন্টে ভাষণ দেওয়ার সময় কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেছিলেন, “5G এর যাত্রা খুবই চমকপ্রদ হতে চলেছে এবং উল্লেখ্য করা জরুরি যে অনেক দেশ ৪০ শতাংশ থেকে ৫০ শতাংশ কভারেজে পৌঁছাতে বহু বছর সময় নিয়েছে। কিন্তু আমরা দ্রুততার লক্ষ্যমাত্রা নিয়েছি এবং সরকার স্বল্প সময়ের মধ্যে ৮০ শতাংশ কভারেজের লক্ষ্যমাত্রা দিয়েছে এবং আমাদের অবশ্যই খুব অল্প সময়ের মধ্যে কমপক্ষে ৮০ শতাংশ কভার করা উচিত।” বিশেষজ্ঞরা বলেছেন 5G প্রযুক্তি ভারতকে ব্যাপকভাবে উপকৃত করবে। এটি ২০২৩ এবং ২০৪০ সালের মধ্যে ভারতীয় অর্থনীতিতে ৩৬.৪ ট্রিলিয়ন (৪৫৫ বিলিয়ন) অংশে লাভবান হতে পারে বলেই মোবাইল নেটওয়ার্ক অপারেটরদের প্রতিনিধিত্বকারী একটি বিশ্বব্যাপী শিল্প সংস্থার একটি সাম্প্রতিক প্রতিবেদন অনুমান করেছে। একবার ভারতে 5G পরিষেবা চালু হলে প্রযুক্তির ক্ষেত্রে নতুন দিগন্ত খুলে যাবে বলেই অনুমান করা হচ্ছে।