পরকীয়ার জের, হবু স্ত্রীকে শ্বাসরোধ করে খুন করল যুবক

0
33

কলকাতা: ফের খবরের শিরোনামে গরফা। অন্য একজনের সম্পর্ক গড়ে উঠেছে হবু স্ত্রীয়ের। আর তার জেরেই হবু স্ত্রী-কে শ্বাসরোধ করে খুনের অভিযোগ উঠল এক যুবকের বিরুদ্ধে। শনিবার ধৃতকে আলিপুর আদালতে তোলা হয়। তাঁকে পুলিশি হেফাজতে পাঠান বিচারক। ঘটনায় আর কেউ জড়িত কি না, তা খতিয়ে দেখছেন তদন্তকারীরা।

আরও পড়ুনঃ রাতারাতি বদল রাজ্যের শিক্ষা কমিশনার, এলেন এই বিশেষ ব্যাক্তি

জানা গিয়েছে, মৃত তরুণীর নাম সুস্মিতা দাস (২৬)। পঙ্কজ নামে এক যুবকের সঙ্গে এগারো বছরের সম্পর্ক। দুই বাড়িতেই বিয়ের কথা পাকা হয়ে গিয়েছে। মে মাসেই রেজিস্ট্রি হওয়ার কথা। ঢাক-ঢোল পিটিয়ে সাড়ম্বরে বিয়ে হয় নভেম্বর মাসে। বিয়ে ঠিক হয়ে যাওয়ায় বাগদত্তার কাছে মাঝেমধ্যে আসতেন হবু স্বামী। সেইমত রবিবার দুপুরে হবু স্ত্রীয়ের গরফার বাড়িতে আসেন হবু স্বামী পঙ্কজ ওরফে প্রবীর দাস।

আরও পড়ুনঃ ভয়াবহ বন্যায় বিধ্বস্ত অসম, জলের তলায় ২ হাজারের বেশি গ্রাম

দুজনে একসঙ্গে খাওয়াদাওয়াও করেন। এরপর বিকেল সাড়ে চারটে নাগাদ বেরিয়ে যান পঙ্কজ। হবু জামাই বেরিয়ে গেলেও ঘরের ভেতরে ঢোকেন মেয়ের মা। তিনি দেখেন, বিছানায় পড়ে রয়েছে সুস্মিতা। মুখ থেকে গ্যাঁজলা বেরচ্ছে। সঙ্গে সঙ্গে মেয়েকে হাসপাতালে নিয়ে যায় তরুণীর পরিবার। সেখানে চিকিত্‍সকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন তাঁকে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষই খবর দেয় গরফা থানায়। সুস্মিতার পরিবার ওই যুবকের বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ দায়ের করেছে।

পুলিশি তদন্তে জানা যায়, ওই যুবকের বাড়ি হাবড়ায়। এরপরই হাবড়ার বাড়ি থেকে পঙ্কজ নামে ওই যুবককে গ্রেফতার করে পুলিশ। জেরায় যুবক জানায়, কিছুদিন আগে সুস্মিতার সঙ্গে অন্য একজনের সম্পর্ক গড়ে উঠেছে। যে কারণে তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ কমিয়ে দিয়েছেন সুস্মিতা। সেকথা জানতে পারেন পঙ্কজ। এমনকী, সুস্মিতা ঘনিষ্ঠদের জানিয়েছিলেন, তিনি পঙ্কজকে বিয়ে করতে চান না। এরপরেই তিনি হবু স্ত্রীকে পৃথিবী থেকে সরিয়ে দেওয়ার ছক কষেন। সেইমতো হাজির হন সুস্মিতার বাড়িতে। নানা কথা প্রসঙ্গে পঙ্কজ জানতে চান, সুস্মিতার কারও সঙ্গে সম্পর্ক আছে কি না। ওই তরুণী জানান, একজনের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক তৈরি হয়েছে। একথা শোনার পরই মেজাজ হারান ওই যুবক। শ্বাসরোধ করে খুন করেন হবু স্ত্রীকে।