নিয়োগে কেলেঙ্কারির দায় নেবে না সরকার, সাফ জানালেন শিক্ষামন্ত্রী

0
35

কলকাতা: নিয়োগ দুর্নীতি কাণ্ডে তোলপাড় রাজ্য৷ ইতিমধ্যে হাজতে রাত কাটছে রাজ্যের প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় সহ শিক্ষা দফতরের একাধিক পদস্থ কর্তার৷ শুক্রবারই সাংবাদিক বৈঠক করে ১৯১১ জনের চাকরি বাতিলের কথা ঘোষণা করেছে স্কুল সার্ভিস কমিশন৷ শুধু এখানেই থেমে থাকা নয়, আগামী সপ্তাহে ৮০৩ জন নবম দশম স্তরের শিক্ষকের চাকরির সুপারিশ পত্র বাতিলের প্রক্রিয়াও শুরু করা হবে বলে জানিয়েছেন চেয়ারম্যান সিদ্ধার্থ মজুমদার৷ এমন আবহে এদিন সাংবাদিক বৈঠক করে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু সাফ জানিয়ে দিলেন, ‘‘দালালের ফাঁদে পা দিলে দায় পর্ষদের নয়!’’

বস্তুত, নিয়োগ দুর্নীতি কাণ্ডে সম্প্রতি কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা গ্রেফতার করেছে হুগলির যুহব তৃণমূল নেতা কুন্তল ঘোষকে৷ কুন্তলের বাড়ি থেকে ওএমআর শিট বাজেয়াপ্ত করেছেন তদন্তকারীরা৷ এদিন ওই বিষয়েই মুখ খুললেন ব্রাত্য বসু। বিকাশ ভবনে সাংবাদিকদের তিনি জানান, ‘‘কেউ দালালের ফাঁদে পা দিলে তার দায় পর্ষদের নয়’’

- Advertisement -

স্বাভাবিকভাবে প্রশ্ন উঠছে, হুগলির ধৃত যুব তৃণমূল নেতাকে তবে কি ঝেড়ে ফেলতে চাইছে দল? তাই কি দালালের সঙ্গে তুলনা? সরাসরি কোনও জবাব মেলেনি ব্রাত্যবাবুর কাছ থেকে৷ তবে প্রকারন্তরে ব্রাত্যবাবুকে সামনে রেখে শীর্ষ নেতৃত্ব দলের সঙ্গে লেপ্টে থাকা দালালদের কড়া বার্তা দিল বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল৷ কারণ, প্রাথমিক টেটের ফলপ্রকাশের মাত্র কয়েক ঘণ্টা পরই সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু।

তিনি বলেন, ‘‘এবারের টেটের ওএমআর শিট পর্ষদের পাশাপাশি পরীক্ষার্থীর কাছেও রয়েছে। ওই ওএমআর শিট কেউ যদি দালালকে দেয়, তার দায় পর্ষদের নয়। তেমন হলে দালাল যতটা দায়ী, প্রার্থীও ততটাই। কোনও চাকরিপ্রার্থী দালালের ফাঁদে পা দেবেন না। কেবলমাত্র মেধা, শ্রম, যোগ্যতা ও পর্ষদের স্বচ্ছতার উপর নির্ভর করুন।’’ একই সঙ্গে ‘লখিন্দরের বাসর ঘরে’র প্রসঙ্গ টেনে শিক্ষা মন্ত্রী বলেন, ‘‘কালনাগিনী ঢোকার কোনও উপায় নেই। নিয়োগে স্বচ্ছতা আনতে সচেষ্ট রাজ্য সরকার।’’

আরও পড়ুন: এবার ফুচকা দোকানেও হানা দেবে হাতি, স্থায়ী সমাধান চেয়ে অবরোধে বাসিন্দারা