রাজ্যে বাতিল হবে লক্ষাধিক গাড়ি, আপনারটাও নেই তো, দেখে নিন তালিকা

0
23

কলকাতা: না কলকাতা শহরে আর বুড়ো গাড়ি ভেলকি দেখাতে পারবে না। এবার শেষ হতে চলছে ১৫ বছরের পুরানো বানিজ্যিক গাড়ির জামানা। এমনটাই সিদ্ধান্ত নিয়েছে কলকাতা পুরসভা। এবার থেকে আর চলচবে না ১৫ বছর বয়স হয়ে যাওয়া বানিজ্যিক গাড়ি। কারণ রাজ্য পরিবহণ দফতর বাতিল করতে চলছে সেই গাড়িগুলি। এই পুরানো গাড়ির সংখ্যা প্রায় দেড় লাখের কাছাকাছি রয়েছে। আপনারর গাড়ি নেই তো এই তালিকার। নিয়ে নিন সেই খোঁজ।

পরিবেশ দূষণ রোধ করতে একাধিক পদক্ষপে নিচ্ছে কলকাতা পুরসভা। সেই কাজের অংশ হিসাবেই এই সিদ্ধান্ত বলেই জানাচ্ছেন ওয়াকিবহল মহল। একেবাড়ে নয় ধীরে ধিরেই গাড়ি গুলিকে সরিয়ে নেওয়া হবে। জানা গিয়েছে বয়স হয়ে যাওয়া বাণিজ্যিক গাড়ি বাতিল করা হবে মোট তিন দফায়। সূত্ররে খবর প্রথম ধাপে বাতিল করা হবে ১৯৭০ সালের থেকে ১৯৯৯ সালের মধ্যে নথিভুক্ত হওয়া গাড়ি। একবিংশ শতকে নথিভুক্ত হওয়া গাড়িগুলি বন্ধ করা হবে দ্বিতীয় ধাপে আর ২০০৮ সালের পর থেকে যে গাড়িগুলিকে সিএনজিতে রূপান্তর করা হয়নি সেগুলিকে তৃতীয় ধাপে বাতিল করা হবে। পরিবহণ বিভাগ সূত্রে জানা গিয়েছে সরকার ১৫ বছরের বেশি পুরনো যানবাহন ১ আগস্ট থেকে নিষিদ্ধ করতে প্রস্তুত।

আরও পড়ুন- ভুল করে কাঁটাতার পেরিয়ে ভারতে আসা ৩ বছরের শিশুকে পাকিস্তান ফিরিয়ে দিল ভারত

রাজ্য পরিবহন দফতরের প্রিন্সিপাল সেক্রেটারি সুমন্ত চৌধুরী এই বিষয়ে জানিয়েছেন, “পরিবহন দফতরের আধিকারিকরা, পুলিশ এবং মোটর গাড়ি বিভাগের আধিকারিকরা এই পুরানো গাড়িগুলিকে নিষিদ্ধ করার জন্য পুরো কলকাতা মেট্রোপলিটন এলাকায় অভিযান চালাবেন। অপারেটররা ধর্মঘটে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিলে আমরা সরকারি ভোটাধিকারের মাধ্যমে বাণিজ্যিক যান চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছি।” ইতিমধ্যেই পরিবহণ দফতর সেই সমস্ত গাড়ির মালিকদের চিঠি পাঠাতে শুরু করেছে যাদের ১৫ বছরের পুরনো গাড়ি রয়েছে। এমনটাই খবর। অন্যদিকে কলকাতা মেট্রোপলিটিয়ান বাস এবং মিনি বাস মালিক সমিতির স্বর্ণকমল সাহা বলেছেন, “আমরা শুধুমাত্র ১৫ বছরের পুরনো বাণিজ্যিক যানবাহন প্রত্যাহার করব তবে অন্যান্য যানবাহন চলবে।”

আরও পড়ুন- বিদ্রোহীদের থেকে ডাক পেলেও গুয়াহাটি না যাওয়ার বড় কারণ জানালেন সঞ্জয় রাউত

উল্লেখ্য, কলকাতা হাইকোর্ট ২০০৮ সালের জুলাই মাসে কলকাতা এবং এর বাইরের এলাকা থেকে ১৯৯৩ সালের ১ জানুয়ারীর আগে নথিভুক্ত হওয়া বাণিজ্যিক যানবাহন নিষিদ্ধ করার নির্দেশ দিয়েছিল। রায়ে বলা হয়েছিল আদেশটি ৩১ ডিসেম্বর ২০০৮ এর মধ্যে কলকাতা মেট্রোপলিটন এলাকায় কার্যকর করা উচিত, যার মধ্যে উত্তর ও দক্ষিণ ২৪-পরগনা, হাওড়া এবং হুগলি জেলার অংশ রয়েছে। পরে, সরকারী আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে নিষেধাজ্ঞা আরোপের তারিখ ২০০৯ সালের ৩১ জুলাই পর্যন্ত পিছিয়ে দেওয়া হয়। আদালতের আদেশ বাস্তবায়নে ২৫ জুলাই থেকে পুরনো যানবাহন বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয় সরকার। সেই আদেশই এবার কার্যকর হতে চলছে।