নিজের পাড়ায় জিততে পারে না, ব্যারাকপুরে গেছে লেজ নাড়াতে, শুভেন্দুক কটাক্ষ কুনালের

0
47

কলকাতা: সম্প্রতি বিজেপি ছেড়ে নিজের পুরনো দলে ফিরেছেন অর্জুন সিং। এরপরই ব্যারাকপুরের বিজেপি দায়িত্ব দিয়েছে শুভেন্দু অধিকারীকে। এদিন সিজিও কমপ্লেক্স সিবিআই দফতরে উপস্থিত হয়ে শুভেন্দু অধিকারীকে কটাক্ষ করলেন তৃণমূলের মুখপাত্র কুণাল ঘোষ। পাশাপাশি, কলকাতার বাইরে থাকার জন্য তিনি সিবিআই দফতরে একটি আবেদন পত্র জমা দিলেন। পূর্ব মেদিনীপুর মহিষাদলে সভা আছে তাঁর। 28 তারিখ হলদিয়ায় দলীয় কর্মসূচি। তারপর সেখান থেকে ত্রিপুরায় যাবেন তিনি। তিনি বলেন, ‘যেটা আমার কন্ডিশনে দেওয়া আছে সিবিআইকে ইন্টিমেশন দেওয়ার সেটাই দিয়ে গেলাম।’

আরও পড়ুনঃ দেশ জুড়ে মোদী সরকারের ৮ বছর পূর্তি উৎযাপন করতে কেন্দ্রীয় মন্ত্রীদের সঙ্গে বিশেষ বৈঠক করছেন নাড্ডা

কুণাল ঘোষ শুভেন্দুকে কটাক্ষ করে বলেন, গরুর গাড়ির হেডলাইট হয় তিনি তাই। যে কাঁথিতে নিজের বুথে, নিজের ওয়ার্ডে, নিজের পুরসভায় যিনি জিততে পারেন না, ও গেছে ওখানে লেজ নাড়াতে। কাকে দিয়েছেন রাজার পাট। একবার লোডশেডিং বলে জাতীয় নির্বাচন কমিশনকে কাজে লাগিয়ে জিতেছেন। আদালতে সেই মামলা চলছে। আর মামলার যাতে শুনানি না হয়, তিনি পালিয়ে বেড়াচ্ছেন।

বঙ্গ বিজেপিতে দিলীপ ঘোষের গুরুত্ব বাড়ানো প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এটা তাঁদের দলীয় ব্যাপার। দিলীপবাবু যেভাবে বলছেন শুভেন্দু অধিকারী জননেতা নন, শুধু মেদিনীপুরের নেতা। তিনি দল বদলুদের তুলোধোনা করছেন। আদি বিজেপি বনাম তৎকাল বিজেপি বনাম পরিযায়ী বিজেপি এগুলো তো জানারই কথা এগুলো তো হওয়ারই ছিল।’ সৌমিত্র সৌমিত্র খাঁয়ের তৃণমূলে যোগদান প্রসঙ্গে কুনাল ঘোষ জানান, সৌমিত্র খাঁর গরম পড়লে মাথা ঠিক থাকে না বর্ষাকাল যাক শরৎকাল আসুক তারপর দেখা যাবে তিনি কি বলেন।

জিটিএ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘অপদার্থ সুকান্ত মজুমদার তিনি আগে নিজের দল সামলাক। একজন ট্রেনী সভাপতি রাজনীতি শেখেননি ও সভাপতি হওয়ার পর থেকে যা রেজাল্ট হচ্ছে ফেসবুকে ও প্রেস কনফারেন্সে আছে ফেসবুক উঠে গেলে সুকান্তর বিজেপি উঠে যাবে।’