বিমানের পদে থাকা বা না থাকা নিয়ে দ্বন্দে আলিমুদ্দিনের ম্যানেজাররা

0
43

 

কলকাতা:কমিটির নেতা হিসেবে আর কাজ নয়, কাজ সাধারণ সদস্য হিসেবেও করা যায় এই বার্তা এতদিন দিতেন সাধারণ দলীয় কর্মীদের কিন্তু নিজের ক্ষেত্রেও এবার এই সিদ্ধান্ত নেওয়ার পক্ষপাতী বামফ্রন্ট চেয়ারম্যান তথা সিপিএম এর প্রবীণ পলিটব্যুরো সদস্য বিমান বসু।

- Advertisement -

আরও পড়ুন  :মমতার স্তুতি গাওয়ার জের: নেতৃত্বের ‘কোপ’ কি সহ্য করবেন অনিল কন্যা, প্রশ্ন দলেই

আলিমুদ্দিন স্ট্রীট তথা সিপিএম এর অভ্যন্তরে অনেকে যদিও বিমান বসুকে চিরনবীন বলে থাকেন পিছনে। বাংলায় সাম্প্রতিক বিধানসভা নির্বাচনে বেনজির বিপর্যয়ের পর সিপিএম এর কেন্দ্রীয় কমিটিতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বিভিন্ন কমিটির ক্ষেত্রে নেতাদের বয়সের সীমা বেঁধে দেওয়া হবে। কেন্দ্রীয় কমিটির ক্ষেত্রে বয়স সীমা ৭৫ বছর, রাজ্য কমিটির ক্ষেত্রে বয়স সীমা ৭২ বছর, জেলা কমিটির ক্ষেত্রে ৭০ বছর, এরিয়া কমিটির ক্ষেত্রে বয়স সীমা ৬৫ বছর। এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হওয়া সিপিএম এর সম্মেলন প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে।

আরও পড়ুন  :এক ছবিতেই আবার বিড়ম্বনায় সিপিএম

সিপিএম দলের মধ্যে যদিও এর আগেও বয়সের কোঠা বাঁধার চেষ্টা হয়েছে, তবে তা তেমনভাবে বাস্তবায়ন হয়নি। অনেক নেতাই ব্যাতিক্রম হিসেবে থেকে গেছিলেন। কিন্তু এবারের সিদ্ধান্ত প্রয়োগ করতে বদ্ধপরিকর আলিমুদ্দিন স্ট্রীট থেকে শুরু করে দিল্লীর এ কে গোপালন ভবন। এর ফলে এক ঝাঁক শীর্ষ নেতা বাদ পড়তে চলেছেন রাজ্য কমিটি থেকে একেবারে পলিটব্যুরো পর্যন্ত, তাদের মধ্যে সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য নাম বিমান বসু, কারণ বিমান বসুর বয়স ৮১ তাই বিমান বাবু আর কোন কমিটিতেই থাকতে পারবেন না।

আরও পড়ুন  :আফগান শরণার্থীদের আশ্রয় জন্য বিশ্বের সমস্ত দেশকে আহ্বান জাতিসংঘের

বিমান বসুর ক্ষেত্রে ব্যাতিক্রম হিসেবে গণ্য করা হোক এমনই দাবী উঠছে আলিমুদ্দিনের অন্দরে। তবে রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র পরিস্কার করে দিয়েছেন এবার আর কোন ব্যাতিক্রম গণ্য হবে না। শেষ পর্যন্ত এটাই দেখার ৩১ নম্বর আলিমুদ্দিন স্ট্রীট কি পারবে বিমান বসুকে সব কমিটি থেকে অব্যাহতি দিতে? সময়েই মিলবে এর সদুত্তর।