FIFA WC 2022: নিজেদের দল হারার পর সেলিব্রেট করছেন ইরান ফ্যানেরা, Viral Video

0
43
FIFA WC 2022 Iran Football Team Fans Celebrated Their Teams Loss Video Of Streets Went Viral

স্পোর্টস ডেস্ক: ফিফা বিশ্বকাপে আমেরিকার বিপক্ষে ০-১ গোলের ব্যবধানে হেরে গিয়েছে ইরান। এই হারের পর ইরানে যা ঘটল তা সকলকে অবাক করে দিয়েছে। নিজেদের দলের পরাজয়ের পর ইরানের সমর্থকরা ঘর থেকে বেরিয়ে রাস্তায় নেমে সেলিব্রেট করতে শুরু করে। ইরানের হারের পর সমর্থকদের এই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে। গোটা ফুটবলবিশ্ব এই ভিডিও দেখে অবাক। সাধারণত দল হারলে কোনও দেশের সমর্থকরা হতাশ হয়, কিন্তু মন খারাপের পরিবর্তে সেলিব্রেট করতে শুরু করে ইরানের ফ্যানসরা। আসলে ইরানে প্রতিনিয়ত প্রতিবাদ চলছে।

ইরানের জনগণ তাদের দেশের সরকারের প্রতি অত্যন্ত ক্ষুব্ধ এবং সরকারের সঙ্গে সম্পর্কিত সবকিছু বয়কট করছে। সমর্থকরা তাদের দেশের ফুটবল দলকে সরকারের অংশ বলে মনে করেন। এই কারণে ইরানের জনগণ তাদের দলের পরাজয় সেলিব্রেট করতে শুরু করে। এটা ছিল প্রতিবাদের একটা উপায়। ইরানের মানুষ এর আগে টায়ার জ্বালিয়ে এবং মিছিল করে বিক্ষোভ করেছিল। এখন এসব মানুষ তাদের ফুটবল দলের হার সেলিব্রেট করতে প্রতিবাদ করছে। ইরানের বর্তমান পরিস্থিতির পরিপ্রেক্ষিতে ফিফা বিশ্বকাপে দলের অংশগ্রহণে ক্ষুব্ধ সমর্থকরাও। ইরানের জনগণ বলছে, সবার আগে এই অত্যাচারী সরকারকে অপসারণ করতে হবে। এরপরে অন্য যা মনোযোগ দেওয়া উচিত। ইরানে মাহসা আমিনি (২২) নামে এক নাগরিকের গত ১৬ সেপ্টেম্বর পুলিশ হেফাজতে মৃত্যু হয়। এরপর থেকে গত দুই মাসে গোটা ইরানে সরকারের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ চলছে।

- Advertisement -

আরও পড়ুন: “ইরানে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়ার কোনও নিয়ম নেই”

দেশে শিশুসহ ৩০০ জনের বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। কুর্দি বংশোদ্ভূত ২২ বছর বয়সী ইরানী আমিনিকে তেহরানে গ্রেফতার করা হয়েছিল। এর তিন দিন পর তার মৃত্যু হয়। আমিনির বিরুদ্ধে ইরানের ড্রেস কোড লঙ্ঘনের অভিযোগ আনা হয়। ইরানের ড্রেসকোডে হিজাব বাধ্যতামূলক। লন্ডন-ভিত্তিক ইরান ওয়্যার ওয়েবসাইট টুইটারে লিখেছেন, “ইরানের ফুটবল দলের বিরুদ্ধে প্রথম মার্কিন গোলের পর সাকেজের নাগরিকরা উদযাপন করে এবং আতশবাজি ফেলে।” ইরানের ক্রীড়া সাংবাদিক সাইদ জাফরনি পরাজয়ের পর টুইট করেছেন “কে ভেবেছিল আমি তিন মিটার লাফ দিয়ে আমেরিকার গোল সেলিব্রেট করব!” এই ঘটনার প্রতিবাদেই ইরানের খেলোয়াড়রা সরকারের বিরুদ্ধে চলমান বিক্ষোভের সমর্থনে জাতীয় সঙ্গীত গাওয়া এবং সেলিব্রেট না করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।