ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে বাড়ছে আত্মহত্যার প্রবণতা, ঠেকাতে বিশেষ উদ্যোগ প্রশাসনে

0
17

ইছাপুর: দুনিয়াদারির ইঁদুর দৌড়ের সঙ্গে পাল্লা দিতে গিয়ে হাঁফিয়ে উঠছে সকলেই৷ তারই জেরে বাড়ছে আত্মহত্যার ঘটনা৷ ইদানিং এই প্রবণতা ভীষণভাবে বেড়েছে ছাত্র, ছাত্রীদের মধ্যে৷ তাই পড়ুয়াদের মধ্যে থেকে আত্মহত্যার প্রবনতা দূর করতে ও তাদের স্বাভাবিক জীবন দিতে বিশেষ কাউন্সেলিংয়ের ব্যবস্থা করল প্রশাসন।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, করোনার দাপট এবং লকডাউনের আবহে দীর্ঘ প্রায় দু’বছর বন্ধ থেকেছে স্কুল। ছাত্রানাং অধ্যায়নং তপ:, চিরাচরিত এই অভ্যাসে হাত বসিয়েছে মোবাইল ফোন, ফেসবুক। প্রযুক্তির সুফলের পাশাপাশি কুফলও প্রবেশ করেছে ছাত্র ছাত্রীদের মধ্যে। যার নিট ফল, কচি বয়স থেকেই হতাশায় মানসিক অবসাদের নাগপাশে জড়িয়ে গিয়েছে তারা। যার পরিণতি খুব খারাপ হচ্ছে। ছোট ছোট ছেলে মেয়েদের মধ্যে বাড়ছে আত্মহত্যা করার প্রবণতা৷ এবার এমন পরিস্থিতি থেকে তাজা প্রাণগুলোকে রক্ষা করতে এগিয়ে এল নোয়াপাড়া থানা, গারুলিয়া ও উত্তর ব্যারাকপুর পুরসভা৷ তাঁরা যৌথ উদ্যোগে নোয়াপাড়ার বিভিন্ন স্কুলে আয়োজন করছে আলোচনা সভার৷ যার পোশাকি নাম, ‘বাঁচতে চাই’৷

- Advertisement -

শুক্রবার তেমনই একটি আলোচনা সভা হল ইছাপুর নবাবগঞ্জ স্কুলে। যেখানে মনোবিদ চিকিৎসক রেশমী দত্ত ছাত্রীদের মানসিক পরিস্থিতি, সমস্যা ও তার সমাধান নিয়ে বৈঠক করেন। এদিনের এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন নোয়াপাড়া থানা ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক পার্থসারথি মজুমদার সহ উত্তর ব্যারাকপুর পুরসভার কাউন্সিলররা। থানার ভারপ্রাপ্ত ওসি পার্থসারথী মজুমদার বলেন, “ছোট ছোট ছেলে মেয়েদের মধ্যে মানসিক চাপ বাড়ছে। নানা কারণে তারা মানসিক অবসাদের শিকার হচ্ছেন। তাদের অন্ধকার থেকে আলোয় আনতে হলে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকের পরামর্শ দরকার। তাই আমাদের একটা চেষ্টা মাত্র। আশা করছি আগামী দিনে এই ধরনের কাউন্সেলিং আরও বেশি করে করার ব্যবস্থা করা হবে৷’’

আরও পড়ুন: আন্দোলন করে পড়াশোনাও করা যায়, দেখাল জেএনইউ, যাদবপুর