স্কুল খুলতেই ফের বন্ধের নোটিস! শিক্ষাঙ্গনে ছেলেখেলা করার অভিযোগ

0
57
প্রতিকী ছবি

কলকাতা: ক’দিন আগেই খুলেছে স্কুল৷ আজ বহু স্কুলে পড়ুয়াদের পরীক্ষাও ছিল৷ তৈরি হয়ে নির্দিষ্ট সময়ে স্কুলে গিয়ে অবশ্য তাঁরা দেখেন গেটে তালা৷ টাঙানো রয়েছে নোটিস৷ তাতে লেখা, আদিবাসী সমাজের হুল দিবস পালন উপলক্ষ্যে আজ ছুটি৷ পরীক্ষার দিন পরে জানিয়ে দেওয়া হবে৷ বহু মাধ্যমিক স্কুলেই বৃহস্পতিবর এমনই অভিজ্ঞতার মুখোমুখি হতে হয়েছে পড়ুয়াদের৷ যার জেরে মধ্যশিক্ষা পর্ষদের ভূমিকা নিয়েই বড়সড় প্রশ্ন তুলেছেন বঙ্গীয় শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মী সমিতির (বিটিইএ) সাধারণ সম্পাদক স্বপন মণ্ডল৷

তিনি বলেন, ‘‘এটা সরকার চলছে না সার্কাস! গভীর রাতে নোটিস দিয়ে আজ পরীক্ষা বন্ধ করতে বলছে মধ্যশিক্ষা পর্ষদ। এটা কি সম্ভব। খামখেয়ালিপনার চূড়ান্ত। সব ছাত্রদের বলা হয়ে গিয়েছে আজ পরীক্ষা নেওয়া হবে। তারপর মাঝরাতে এমন নোটিস কেন!’’ উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদের প্রসঙ্গ উত্থাপন করে মধ্যশিক্ষা পর্ষদের দায়িত্ব জ্ঞানহীনতা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছেন তিনি, ‘‘উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ সঠিক সময়ে নির্দেশ জারি করায় উচ্চ মাধ্যমিকের যে প্র্যাকটিক্যাল পরীক্ষাগুলো ছিল, সেটা বন্ধ করতে স্কুল গুলোর কোনও সমস্যা হয়নি৷ এই নোটিসটা কি সঠিক সময়ে, একদিন আগে বা গতকালই (বুধবার) দুপুরে দেওয়া যেত না?’’

খানিক থেমে জবাবও দিয়েছেন তিনি৷ বঙ্গীয় শিক্ষক ও শিক্ষাকর্মী সমিতির (বিটিইএ) সাধারণ সম্পাদক স্বপন মণ্ডল বলেন, ‘‘শিক্ষাটাকে নিয়ে ছেলে খেলা খেলছে সরকার৷ আদিবাসী মানুষকে কি বোঝাতে চাইছেন যে দেখুন, আপনাদের জন্য আমরা পরীক্ষা বন্ধ করে দিলাম৷ এর থেকেই স্পষ্ট এই সরকার কতটা খামখেয়ালী৷ এদের কোনও পরিকল্পনা নেই৷ শিক্ষামহলের মতামতও নিচ্ছে না৷ ইচ্ছে মতো রাত দুপুরে নোটিস জারি করছে৷ ভবিষ্যতে কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে ভাল করে ভাবুন৷ সেটা যেন যুক্তিযুক্ত হয়!’’ যদিও এই বিষয়ে মধ্যশিক্ষা পর্ষদের কোনও প্রতিক্রিয়া এখনও সামনে আসেনি৷ তবে রাত দুপুরে এমন নোটিসকে ঘিরে পর্ষদের ভূমিকায় ক্ষুব্ধ স্কুলের শিক্ষকদের একাংশও৷ তাঁরা বলছেন, সময়ের নোটিস সময়ে জারি করা হলে এভাবে হয়রানির মুখে পড়তে হত না পড়ুয়াদের৷

আরও পড়ুন: লালগড়ের পথে শুভেন্দুকে বাধা, আদালতের প্রশ্নের মুখে পুলিশ কর্তারা