বনেদি বাড়ির প্রতিমায় সিংহের মুখ ঘোড়ার মত কেন

0
61

বিশ্বদীপ ব্যানার্জি: একাধিক বনেদি বাড়ির পুজোতেই (Durga Puja) দেখা যায়, দেবীর বাহন সিংহের মুখ ঘোড়ার মত। হিন্দু পুরাণ অনুযায়ী, দেবীকে সিংহ প্রদান করেছিলেন গিরিরাজ হিমালয়। এমন সিংহ কি তিনি-ই সৃজন করেছিলেন? যদি তা না হয়, তাহলে দেবীর বাহন সিংহের মুখ ঘোড়ার মত হয়ে গেল কী করে?

আরও পড়ুন: ৩৫০ বছরের এই পুজোয় দ্বিভুজা অভয়াকে আরাধনা করা হয়, রয়েছে আরও এক চমক

- Advertisement -

খাস খবর এ বছর একাধিক বনেদি বাড়ির পুজো (Durga Puja) ঘুরে দেখেছে। সেইসঙ্গেই খোঁজার চেষ্টা করেছে এই উত্তর। যা দেখা গেল, একেকটি বাড়িতে এর উত্তর একেকরকম। খড়দহের মেজোবাটীর দুর্গাপুজো শুরু করেন খোদ গৌর-নিতাইয়ের নিতাই অর্থাৎ প্রভু নিত্যানন্দ। বর্তমানে পুজোর বয়স ৪৯২ বছর। এখানে সিংহের মুখ ঘোড়ার মত হওয়ার নেপথ্যে স্বয়ং শ্রীকৃষ্ণ। নিত্যানন্দ প্রভুর ১৪ তম বংশধর শ্রী সরোজেন্দ্রমোহন গোস্বামী মহাশয়ের কথায়, “কেশী নামক অসুরকে বধ করে কেশব নামের অধিকারী হয়েছিলেন কৃষ্ণ। এই কেশী ঘোড়ার ছদ্মবেশে এসেছিল। সেই ঘটনার কথা মাথায় রেখে সম্পূর্ণ বৈষ্ণব মতে পূজিত হওয়া আমাদের কাত্যায়নীরূপী দুর্গাপ্রতিমার সিংহ ঘোড়ার আদলে।”

Durga Puja

বেহালার বিখ্যাত রায় বাড়ির পুজোতে-ও সিংহের মুখ ঘোড়ার আদলে। কিন্তু সেখানে এই সংক্রান্ত ধারণাটি কিছুটা ভিন্ন। বীরেন রায় পরিবারের অন্যতম এক সদস্য খাস খবরকে এ প্রসঙ্গে বলেন, “এই সিংহ হল দেব-সিংহ। সে কারণেই তার চেহারা আর পাঁচটা সাধারণ সিংহের মত নয়। তার চেহারা ঘোড়ার মত।”

অর্থাৎ দেখাই যাচ্ছে, একেকটি পরিবারে একেকটি আলাদা আলাদা কারণে সিংহের মুখ ঘোড়ার মত। অর্থাৎ কোনটি যে সঠিক, তা জোর গলায় বলার উপায়-ই নেই। হয়ত সবকটি-ই সঠিক। স্ব স্ব পরিপ্রেক্ষিতে। আসলে এ-ই তো হিন্দু পুরাণের মজা। এত প্রক্ষেপ যে সঠিক বৃত্তান্তটিকে চিহ্নিত করার কোনওই উপায় নেই আজ। তবে একটি বহুল আলোচিত ঐতিহাসিক ধারণা অনুসারে, যে সমস্ত বাড়িতে শাক্ত মতে দুর্গাপুজো হয় সেখানে সিংহের মুখ সিংহের-ই মত। আর যে যে দুর্গাপুজো বৈষ্ণব মতে হয়, সেখানে সিংহ ঘোড়ার আদলে হয়ে থাকে।

খাস খবর ফেসবুক পেজের লিঙ্ক:
https://www.facebook.com/khaskhobor2020/

কিন্তু এর ব্যখ্যা কী, তা খুব স্বাভাবিকভাবেই কেউ জানে না। যদিও একটি বিষয় এ থেকে স্পষ্ট। গিরিরাজ হিমালয় মোটেই দেবীকে এমন সিংহ দান করেননি, যার মুখ ঘোড়ার মত। তাই যদি হত, তাহলে এ তর্কের প্রসঙ্গ-ই আসত না। সকল দুর্গাপ্রতিমাতে-ই সিংহের মুখ হত ঘোড়ার মত।