চীনকে কড়া বার্তা, লাদাখের ১৪ হাজার ফুট উচ্চতায় চলছে সেনা মহড়া

0
50

খাস খবর ডেস্ক: পূর্ব লাদাখে চীনা নজরদারি ক্রমবর্ধমান। সেই নজরদারিকে কড়া বার্তা দিতে এবার তাৎপর্যপূর্ণ পদক্ষেপ নিল ভারতীয় সেনা। সোমবার থেকে সেনার তরফে এক সামরিক মহড়ার আয়োজন করা হয়েছে লাদাখের এইসমস্ত সীমান্তবর্তী অঞ্চলগুলিতে। বিশেষজ্ঞদের দাবি, নিজেদের কুইক রেসপন্স এবং শত্রুকে শক্তি প্রদর্শন করাই এই মহড়ার উদ্দেশ্য।

আরও পড়ুন: Foreign Affairs: সবচেয়ে শক্তিশালী ইঞ্জিন দিয়ে পঞ্চম প্রজন্মের যুদ্ধবিমান গড়ার পথে ভারত

প্রসঙ্গক্রমে সেনার জনৈক আধিকারিক এক সর্বভারতীয় গণমাধ্যমকে জানান, “৫টি ভিন্ন মাউন্টিং ঘাঁটি থেকে ইউএস-অরিজিন C-130J স্পেশাল অপারেশন এয়ারক্রাফট এবং সোভিয়েত-অরিজিন AN-32 মিডিয়াম ট্রান্সপোর্ট প্লেনে ড্রিলের জায়গায় নিয়ে আসা হয়। আন্তঃ-থিয়েটার গতিবিধি এবং ত্রুটিবিচ্যুতি যাচাই করতেই এ ব্যবস্থা।”

ভারত-চীনের মধ্যে সন্ধির যেটুকু আশা ছিল, তাও এখন আর নেই। গত ১০ অক্টোবর ভেস্তে গিয়েছে দু’দেশের শান্তি আলোচনা। চীনের পিপল’স লিবারেশন আর্মিই তা ভেস্তে দেয় ভারতের প্রস্তাব খারিজ করে। এ পরিস্থিতিতে ভারতীয় সেনার এই মহড়া যথেষ্টই ইতিবাচক বলে মনে করা হচ্ছে।

আরও পড়ুন: জিন্স কিনলে ফোন ফ্রি, নয়া স্কিম চালু করল Samsung

জানা গিয়েছে, ১৪ হাজার ফুটেরও অধিক উচ্চতার একটি স্থানে এই মহড়া আয়োজিত হয়েছে। যেখানে স্ট্যান্ড অব ড্রপস, কুইক গ্রুপিং এবং যত দ্রুত সম্ভব শত্রুকে আটক করার মত বিষয়গুলিতেও জোর দেওয়া হচ্ছে। প্যারাট্রুপারদের নিয়ে গঠিত ‘শত্রুজিৎ’ নামক একটি এয়ারবোর্ন ব্রিগেডকে নিয়ে মোট তিনদিন চলবে এই মহড়া। নর্দার্ন কমান্ডের প্রাক্তন লেফটেন্যান্ট জেনারেল বিএস জয়সওয়াল বলেন, “চীনকে নিজ শক্তি এবং কৌশলের কিছুটা আভাস দিয়ে রাখছে ভারতীয় সেনা। স্ট্যান্ড-অফের পর রুখে দাঁড়িয়েছিল, আরও একবার PLA কে জবাব দিচ্ছে ভারত। অতীতেও এ ধরণের ড্রিল হয়েছে, তবে এই আকারে নয়।”