দায়িত্ব নিতে বিরক্তি, বৃদ্ধা শাশুড়ি’কে ফ্রাইং প্যান দিয়ে খুন, ধৃত পুত্রবধূ

0
135

দিল্লি: কলকাতাতে একার সংসারে দিন কাটত বৃদ্ধা হাসি সোম-এর। বয়স হয়েছিল ৮৬ বছর। ছেলে থাকেন দিল্লিতে। মায়ের অসুস্থতার খবর পেয়ে মা’কে কলকাতার বাড়ি থেকে দিল্লিতে নিজের কাছে নিয়ে গিয়ে রাখেন। মা’কে নিজের কাছে রেখে সুস্থ করতে চেয়েছিলেন, শেষ বয়সে শক্ত হাতে পাশে থাকতে চেয়েছিলেন। কে জানত নিজের কাছে রাখতে গিয়ে চিরকালের মতো মা’কে হারিয়ে ফেলবেন দক্ষিণ দিল্লির নেব সরাই এলাকার সুরজিত।

ঘটনাটি গত ২৪ এপ্রিলের, দক্ষিণ দিল্লির নেব সরাই এলাকার একটি ফ্ল্যাটে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার হন বয়স ৮৬’র এক বৃদ্ধা। বাতের সমস্যায় ভুগছিলেন, ছেলের বাড়ির সামনে একটি ফ্যাটে থাকতেন, শাশুড়ির সঙ্গে ভালো সম্পর্ক ছিল না বৌমার। বাতের সমস্যায় জর্জরিত বৃদ্ধা হাসি সোম ঘরের কোনও কাজই করতে পারতেন না। দিনের পর দিন বৌমার চোখের বিষ হয়ে উঠছিলেন।

- Advertisement -

বার্থরুম থেকে পড়ে গিয়ে আরও অসুস্থ হয়ে পড়েন। দায়িত্ব নিতে বিরক্তি হয়ে শেষমেশ বৃদ্ধা শাশুড়ি’কে ফ্রাইং প্যান দিয়ে পিটিয়ে খুন করেন ৪৮ বছরের শর্মিষ্ঠা সোম। মায়ের দেখভালের স্বার্থে ঘরে সিসিটিভি ক্যামেরা লাগিয়েছিলেন ছেলে সোম, সেই ক্যামেরায় ধরা পড়ে ঘটনার বেশ কিছু দৃশ্য। ফাঁকা ঘর পেয়ে রান্না ঘর থেকে বের করে আনা ফ্রাইং প্যান দিয়ে বার বার মাথায় আঘাত করেন শর্মিষ্ঠা, নির্মম ভাবে শাশুড়ি’কে খুন করার পর সিসিটিভি ফুটেজের যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন তিনি। ময়নাতদন্তের রিপোর্টে, মৃতার শরীরে ১৪টা আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গিয়েছে। সুরজিতের সাক্ষ্য, সিসিটিভি ফুটেজ এবং পোস্টমর্টেম রিপোর্টের ভিত্তিতে ৩০২ ধারায় গ্রেফতার করা হয়েছে শর্মিষ্ঠা সোম’কে। ঠাম্মার খুনের তদন্তে মায়ের বিরুদ্ধে বয়ান দিয়েছে একমাত্র মেয়েও।