বেছে বেছে ২৭৩ জনকেই কেন বাড়তি ১ নম্বর, প্রশ্ন বিচারপতির : TET Recruitment Scam

0
57
SSC Recruitment

কলকাতা: পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিল লক্ষাধিক৷ সেখানে বেছে বেছে ২৭৩ জনকে কেন ১ নম্বর দেওয়া হল? এটাকে কি বেনিয়ম বলা যায় না? লক্ষ্মীবারের সকালে প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ কেলেঙ্কারির মামলায় প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের আইনজীবীর কাছে ঠিক এই প্রশ্নটাই রাখলেন হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি৷ বস্তুত, নিয়োগ কেলেঙ্কারি মামলায় ইতিমধ্যেই বাড়তি নম্বর দিয়ে চাকরিতে নিযুক্ত করা প্রার্থীদের বরখাস্ত করার নির্দেশ জারি করেছিলেন সিঙ্গল বেঞ্চের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়৷ একই সঙ্গে পর্ষদের সভাপতি মানিক ভট্টাচার্যকেও সভাপতি পদ থেকে সরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ জারি করেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়৷

বিচারপতির ওই নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে ডিভিশন বেঞ্চে গিয়েছিলেন মানিক৷ তারই মাঝে এদিন প্রধান বিচারপতির এই নির্দেশকে ঘিরে নতুন করে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে শিক্ষা মহলে৷ আদালত সূত্রের খবর, নিয়োগে গড়মিলের বিষয়টা আরও ভালভাবে স্পষ্ট হয়েছে এই নম্বর বৃদ্ধির ঘটনা থেকেই৷ এদিন এজলাসেই বিচারপতি প্রশ্ন তোলেন, প্রশ্নপত্রে যদি একটি এক নম্বরের প্রশ্ন ভুলই থেকে থাকে এবং যদি নম্বর বৃদ্ধি করার প্রয়োজনই ছিল, তাহলে কৃতকার্য ও অকৃতকার্যদের সকলকে এক নম্বর দেওয়া হল না কেন? সবাইকেই কি বাড়তি ১ নম্বর দেওয়া উচিত ছিল না? নাকি বিশেষ কোনও কারণে ওই ২৭৩ জনকে বাড়তি ১ নম্বর দেওয়া হয়েছিল?

বস্তুত, নিয়োগে বেনিয়মের অভিযোগে ইতিমধ্যেই চাকরি থেকে বরখাস্ত হয়েছেন মন্ত্রীকন্যা অঙ্কিতা অধিকারী৷ একই সঙ্গে ২৬৯ জনকেও চাকরি থেকে বরখাস্ত করার নির্দেশ দিয়েছে আদালত৷ ইতিমধ্যে ঘটনার তদন্তে নেমেছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই৷ তারপরই সামনে আসছে একের পর এক চাঞ্চল্যকর তথ্য৷ যার জেরে কেচো খুঁড়তে কেউটে বেরিয়ে পড়ার আশঙ্কা বাড়ছে খোদ শিক্ষা মহলের অন্দরেই৷

আরও পড়ুন: পুলিশের চাকরি করতে এসেছিলাম, এভাবে গরু সামলাতে হবে কে জানত