শিক্ষকের অমানবিক নির্যাতনের শিকার, প্রাণ বাঁচাতে মাদ্রাসা থেকে পালাল ছাত্র

0
38

বিক্রম কর্মকার, ত্রিপুরা: তিনদিন ধরে শিক্ষকের অমানবিক নির্যাতনের শিকার হল ১০ বছরের শিশু। অবশেষে প্রাণ বাঁচাতে মাদ্রাসা থেকে পালিয়ে গেল ওই ছাত্র। চাঞ্চল্যকর ঘটনাটি ঘটেছে ত্রিপুরার সোনামুড়া মাদ্রাসায়। বর্তমানে ওই দশ বছরের ছাত্রটি ত্রিপুরা গোমতী জেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

জানা গিয়েছে, ত্রিপুরা সোনামুড়া রাঙ্গামাটি মাদ্রাসা স্কুলে দশ বছরের এক নাবালক রাঙ্গামাটি মাদ্রাসার আবাসিক স্কুলে পড়ার জন্য ভর্তি হয়। এরপরেই মাদ্রাসার এক শিক্ষক তাকে তিনদিন ধরে মারধোর করে বলে অভিযোগ করে ওই আহত ছাত্র। আর এই শিক্ষকের হাত থেকে রক্ষা পেতে অবশেষে নাবালক ছাত্রটি মাদ্রাসা আবাসিক স্কুল থেকে পালিয়ে উদয়পুরে চলে যায়।

- Advertisement -

আরও পড়ুন-লক্ষ্মীবারে চড়চড়িয়ে বাড়ল হলুদ ধাতুর দাম, জেনে নিন আজ কলকাতায় কত…

এরপর উদয়পুরে ওই ছাত্রকে সন্দেহজনক ভাবে ঘুরাঘুরি করতে দেখে কয়েকজন লোক জিজ্ঞাসা করলে ছাত্রটি গোটা ঘটনাটি খুলে বলে। তারপর ওই পলাতক নাবালককে কয়েকজন লোক নিয়ে যায় গোমতী জেলা হাসপাতালে। হাসপাতালে সে জানায় যে, মাদ্রাসার প্রিন্সিপালকে সে ঘটনাটি জানালে স্কুল কোনও পদক্ষেপ গ্রহণ করেনি। তাই সে বাধ্য হয়ে শিক্ষকের নির্যাতনের হাত থেকে রক্ষা পেতে চলে আসে উদয়পুরে। তার হাতে, পিঠে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে।

বর্তমানে ওই ১০ বছরের নাবালক ছাত্রটিকে গোমতী জেলা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। এরপর উদয়পুর রাধাকিশোরপুর থানার পুলিশ আধিকারিক দেবব্রত বিশ্বাস নাবালক ওই ছাত্রের পরিবারকে এই ঘটনার খবর দেয়। পরে নাবালকটির মা উদয়পুরে আসলে তাকে তার মায়ের হাতে তুলে দেন পুলিশ আধিকারিক দেবব্রত বিশ্বাস।