বিহারে দেখা মিলল গোপাল ভাঁড়ের, ভিরমি খাওয়ার জোগাড় Nitin Gadkari

0
216

খাস প্রতিবেদন: হাসির রাজা গোপাল ভাঁড়কে মনে পড়ে! মিষ্টির দোকানির ছেলের কাছ থেকে মিষ্টি খাওয়ার পর দোকানির ছেলে’কে বলেছিলেন, তোর বাবা আমাকে চেনেন৷ ওনাকে বলিস মাছিতে মিষ্টি খেয়ে গিয়েছে! অনেকটা সেই স্টাইলেই ১৭১০ কোটি টাকা ব্যায়ে গঙ্গার ওপর তৈরি হওয়া সেতুর একাংশ ভেঙে পড়ার কারণ হিসেবে আইএএস অফিসার বললেন, ‘‘স্যার, দমকা হাওয়ার জন্যই ভেঙে গিয়েছে সেতুর একাংশ!’ যা শুনে কার্যত ভিরমি খাওয়ার জোগাড় কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহণ মন্ত্রী নিতিন গড়কড়ীর (Nitin Gadkari )।

আইএএস অফিসারের রসিকতাটি অবশ্য চেপে রাখেননি কেন্দ্রীয় সড়ক পরিবহণ মন্ত্রী৷ নিজেই সেকথা ফলাও করে টুইটার হ্যান্ডেলে শেয়ার করেছেন৷ নিতিন (Nitin Gadkari ) লিখেছেন, ‘‘দমকা হাওয়ায় সেতু ভেঙে পড়ার তথ্য মেনে নিতে পারছি না৷ একজন অভিজ্ঞ আইএএস অফিসার সেকথা কীভাবে বিশ্বাস করলেন সেটাও আশ্চর্যের৷’ সন্দেহ প্রকাশ করেছেন, ‘‘নিশ্চয়ই বড়সড় কোনও গলদ আছে৷ সেতু নির্মাণের গুণমান খতিয়ে দেখা জরুরি৷’’

ঘটনার সূত্রপাত, গত ২৯ এপ্রিল৷ বিহারের সুলতানগঞ্জে গঙ্গার উপরে ভেঙে পড়ে নির্মীয়মান একটি সেতুর একাংশ। বস্তুত, ওই সেতু ভাঙার কারণ জানতে চেয়ে জবাবি উত্তরে তাজ্জব বনে গিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী (Nitin Gadkari )৷ বস্তুত, ইতিমধ্যেই সেতু ভেঙে পড়ার ঘটনায় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন বিহারের মুখ্যমন্ত্রী নীতীশ কুমার। তবে সেতু ভাঙার পর থেকেই জনমানসে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, সেতু নির্মাণে ব্যবহৃত সামগ্রীর গুণগত মান নিয়ে৷ আইএএস অফিসারের ‘দমকা হাওয়া’র তথ্য সামনে আসার পর সেই আশঙ্কা আরও জোরাল হয়েছে৷ এখন দেখার, কেঁচো খুড়তে কেউটে না বেরিয়ে পড়ে!

আরও পড়ুন: জঙ্গলমহলে মাওবাদী শিকড়, বাঁকুড়া থেকে গ্রেফতার এক