টাকার বদলে চাকরি দিয়েছেন মহিলা, পাওনা আনতে গিয়ে অপহৃত ভাই

0
13

সোনারপুর: পাওনা টাকা শোধ করার টোপ দিয়ে অপহরণ করা হল এক যুবককে। দিদির কাজের টাকা আনতে গিয়েই এই ঘটনা ঘটে। পুলিশের তৎপরতায় ওই যুবককে উদ্ধার করা সম্ভব হয়। অপহরণকারী কয়েকজনকে গ্রেফতার করা গেলেও এখনও কয়েকজন অভিযুক্ত অধরা।

আরও পড়ুন: আট তলা থেকে ঝাঁপ, স্বাস্থ্যের বেআব্রু পর্দা ফাঁস করে যমে-মানুষে টানাটানি সুজিতের

জানা গিয়েছে, ঊষারানী দেবী একটি তথ্য প্রযুক্তি সেক্টরে জব প্লেসমেন্টের কাজ করেন। সেখান থেকেই কয়েকজনকে চাকরি পাইয়ে দিয়েছিলেন। তাঁর কমিশন বাবদ কয়কজনের কাছ থেকে কিছু টাকা বাকি ছিল। তারাই হাওড়ায় এসে টাকা নিয়ে যাওয়ার প্রস্তাব দেয়। সেইমত ঊষারানীর ভাই পুক্কালি আমিনকে পাঠান। অভিযোগ, গত ৯ জুন পাওনা ৭ লক্ষ টাকা আনতে যান আমিন। কিন্তু সেখানে একটি হোটেল রুমে নিয়ে গিয়ে তাঁকে ব্যাপক মারধর করা হয় এবং বলপূর্বক ঘুমের ওষুধ খাইয়ে মারধর করে এরপর একটি গাড়িতে করে ওই যুবককে অন্ধ্রপ্রদেশ নিয়ে যাওয়া হয়। যুবকের বাড়িতে ফোন করে ৭০ লক্ষ টাকা মুক্তিপণ চাওয়া হয়। দ্রুত টাকা আদায়ে মারধরের ভিডিও পাঠানো হয় পরিবারের কাছে। গত ১২ জুন সোনারপুর থানায় অপহরণের অভিযোগ দায়ের হয়।

আরও পড়ুন: সারদা কর্তাকে ব্ল্যাকমেলের অভিযোগ, শুভেন্দুর বিরুদ্ধে সিবিআই তদন্তের দাবি বিজেপি সাংসদের

তদন্তে নেমে পুলিশের একটি দল অন্ধ্রপ্রদেশে যায়। ভিন রাজ্যে একটি অটোচালকের সাহায্য নেয়। সেই অটোচালক অপহরণকারীদের সঙ্গে যোগাযোগ করে পুলিশের শেখানো কথা বলে। এরপর মুক্তিপণের টাকা দেওয়ার জন্য একটি হোটেলে ডেকে পাঠানো হয়। সেখান থেকেই গ্রেফতার করা হয় অপহরণকারীদের। ধৃতদের ট্রানজিট রিমান্ডে সোনারপুরে নিয়ে আসে পুলিশ। এই ঘটনায় আরও অনেকেই যুক্ত। তাদের সন্ধান শুরু হয়েছে।